সত্য বলা, চলা ও প্রচারই হোক বিসর্গের ভাষা...

যে ব্যক্তি কখনোই জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না!

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর যারা
উম্মত রয়েছেন, তাদের জান্নাতে
যাওয়ার রাস্তাটা অতি সহজ। মহান
আল্লাহ তায়ালা আখেরী জামানার নবী
মুহাম্মদ (সা.) এর উম্মতদের জন্য সে
রাস্তা অতি সহজ করে দিয়েছেন। কিন্তু
এর মধ্যেও এমন কিছু ব্যক্তি রয়েছে
যারা কখনোই জান্নাতে প্রবেশ করতে
পারবে না। বিষয়টি আল কোরআন এবং
সহিহ হাদিসে স্পষ্ট করা হয়েছে।
আল্লাহ রাব্বুল আল আমীন পবিত্র
কোরআনে বলেছেন, ‘যে বেশি বেশি
কসম খায় আর যে (বার বার মিথ্যা কসম
খাওয়ার কারণে মানুষের কাছে)
লাঞ্চিত- যে পশ্চাতে নিন্দা করে
একের কথা অপরের কাছে লাগিয়ে
ফিরে সে কখনো জান্নাতে প্রবেশ
করবে না।’ (সূরা- আল কালাম ৬৮: ১০-১১)
এ বিষয়ে মহানবী (সা.) বলেছেন,
চোগলখোর ব্যক্তি কখনো আল্লাহ
তা’য়ালার জান্নাতে প্রবেশ করবে না।
(সহিহ মুসলিম ১/৪৫, হাদিস নং-১০৫)।

আপনার রেটিং: None

কবিতা

মৌলবাদের চোখ রাঙ্গানো দেখেও বিশ্বাস করি লিঙ্গ উন্মুক্তকরন স্বাধীনতায়।স্ত্রীর লিঙ্গ দিয়েছি উন্মুক্তটেন্ডার যেকেউ পাড় অংশ নিতে সেথায়।আমার স্ত্রী ইয়াসমীন সে নিজেকে ভাবে লিঙ্গ স্বাধীনতার পথিকৃত যদি চাও তার স্বাদ নিতে সিরিয়ালের আগে জলদি যাও তার কাছে।মেয়ে আমার কঠিন মাল প্রতি মাসে পাল্টায় বয়ফ্রেন্ডের পাল।মুক্তমনা শুশীল সেজে পরেছি মুখোস দিয়েছি টেন্ডার স্ত্রী মেয়ের স্বাধীনতায়, কে আমি বল দেখি।আমি জাফর ইকবাল, বাল নামেও ডাকতে পরো সমস্যা নাই দীর্ঘকাল

আপনার রেটিং: None

বান্দরবন ট্যুর

বান্দরবন ট্যুরে স্বর্ণমন্দিরে,নীলাচলে,মেঘলায় সবাই একসাথে

ছবি: 
আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

প্রশংসা করবো শির্ক নয়!

প্রশংসার সবটুকুই মহান আল্লাহর! এই বিশ্বজাহানের সমস্ত ভালো, সমস্ত
সৌন্দর্য, সমস্ত মাধুর্য, সমস্ত পূর্ণতা, সমস্ত অনুগ্রহ একমাত্র আল্লাহ
তা'য়ালার জন্যই নির্দিষ্ট! আমরা যে যা কিছুই পেতে চাই, পেতে আকাংখি হই,
ব্যকুল হই, দূর্লভ চেষ্টা করি, প্রার্থনা করি, আবেদন করি, কাকুতি-মিনতি
করি, রোনাজারি করি, ভরসা করি, একমাত্র মহান সৃষ্টিকর্তা আল্লাহর কাছেই তা
চাই! আর সেই চাওয়া পূর্ণ করতে পারেন একমাত্র মহান আল্লাহই! যখন সমস্ত
সৃষ্টিই তার, আর তিনিই স্রষ্টা! এবং সকল ইচ্ছা পূর্ণ করার ক্ষমতাও তার তবে
আমাদের সকলের উচিৎ স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে আল্লাহর প্রশংসায় মত্ত থাকা!

জীবনে
যাকিছু পেয়েছি তার জন্যে তো প্রশংসা করা উচিৎই তারপর যা পেতে আকাংখি,
বেকুল, যার জন্য দূর্লভ প্রচেষ্টা করি তার জন্য আরো বেশী বেশী প্রশংসায়
লিপ্ত থাকা উচিৎ! আমাদের সকল বিষয়ে ইচ্ছা পূরণের ক্ষমতা একমাত্র আল্লাহরই!
আমাদের প্রিয় রাসূল (সঃ) এর জীবনী পড়লে পাই তিনি কিভাবে আল্লাহ তা'য়ালার
শানে প্রশংসা করতেন। আমরা দেখি; আমাদের প্রিয় নবী (সঃ) প্রতিদিন

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4.5 (2টি রেটিং)

ভিন্ন আলোয় উদ্ভাসিত ‘সিন্ধুদ্রাবিড়ের ঘোটকী’: কাব্য বিশ্লেষণ- মুনশি আলিম

Normal
0

false
false
false

MicrosoftInternetExplorer4

 

ছবি: 
আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)

[sb]বৃহঃ বারের অপেক্ষা![/sb]

Normal
0

false
false
false

MicrosoftInternetExplorer4

বাস বদল করে লেগুনায় উঠলাম। সাথে আমার ইছামতি কলেজের
অধ্যক্ষ মহোদয়সহ অন্যান্য সহকর্মীবৃন্দ। ছাতা থাকা সত্ত্বেও আমরা কেউ-ই এলোপাথারি
বৃষ্টির ছোবল থেকে রেহাই পাইনি। অনেকটাই কাকভেজা হয়ে জড়োসড়ো হওয়ার মতো অবস্থা!
হঠাৎ আমার চোখ পড়ল লেগুনায় কর্মরত ফুটফুটে এক শিশু কন্ট্রাকটারের ওপর। বয়স ছয় কী

ছবি: 
আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

বিনা হিসাবে যারা জান্নাতে যাবে যারা

মানুষের মধ্যে কিছু গুণ ও বৈশিষ্ট্য থাকলে তারা বিনা
হিসাবে জান্নাতে প্রবেশ করবে। হজরত ইবনে
আব্বাস (রা.) হতে বর্ণিত প্রিয় নবী হজরত
মুহম্মদ (সা.) ইরশাদ করেছেন, আমার উম্মতের
মধ্যে সত্তর হাজার লোক হিসাব-নিকাশ
ব্যতিরেকেই বেহেশতে প্রবেশ করবে।
তারা হলো, মন্ত্রতন্ত্র দ্বারা ঝাড়-ফুঁক করায় না,
অশুভ লক্ষণাদিতে বিশ্বাস করে না এবং তারা শুধু
তাদের প্রতিপালকের ওপর নির্ভর করে।
(বোখারি ও মুসলিম)।
এই হাদিস দ্বারা প্রমাণিত হয়, যারা সুখে-দুঃখে
সর্বাবস্থায় একমাত্র আল্লাহর ওপর আস্থা রাখে,
অবিচল বিশ্বাস স্থাপন করে তারাই আল্লাহর প্রিয়
বান্দা। এর দ্বারা আরও প্রমাণিত হয়, আমাদের
সমাজে প্রচলিত জাদুবিদ্যা, মন্ত্রতন্ত্র, ঝাড়ফুঁক,
কবিরাজি ইসলাম সমর্থন করে না। কারণ এতে
নাজায়েজ অনেক কাজও হয়। আল্লাহর ওপর
কোনো আস্থা থাকে না। থাকে কবিরাজের
কারিশমা ও জাদুমন্ত্রের ওপর। তবে চিকিৎসা করা
সুন্নত। কারণ, নবী করিম (সা.) নিজেও অসুস্থ
হয়ে চিকিৎসা করেছিলেন।
আল্লাহর ওপর পূর্ণ আস্থা রেখে জায়েজ
উপায়ে যদি চিকিৎসা করা হয় তাতে কোনো
সমস্যা নেই। পবিত্র কোরআন শরিফের কিছু

ছবি: 
আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4 (2টি রেটিং)

বিপর্যয়ের মুখে বিএনপি !!

টানা দুইবার আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে অনেকটাই ব্যাকফুটে বিএনপি। চলমান পরিস্থিতিতে কোনোভাবেই ঘুরে দাঁড়াতে পারছে না, ফলে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে দলটি। প্রতিষ্ঠার পর বিভিন্ন সময় বিপর্যয়ের মুখে পড়লেও বার বার ঘুরে দাঁড়িয়েছে দলটি। কিন্তু এবারই প্রথম সবচেয়ে বড় বিপর্যয়ে দেশের অন্যতম বৃহৎ এ রাজনৈতিক দলটি। বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে এমনটাই জানা গেছে।

তবে বিএনপির এই অবস্থার জন্য দলের কেউ কেউ সরকারের নির্যাতন-নিপীড়নকে দায়ী করছেন। আবার অনেকেরই দাবি, জিয়াউর রহমানের আদর্শ থেকে দূরে সরে যাওয়ার ফলে দলের এই বিপর্যয়। কেউ আবার বলছেন, জিয়ার আদর্শকে ধারণ করেই বিএনপি ঘুরে দাঁড়াবে, এটা সময়ের ব্যাপার মাত্র।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 2 (টি রেটিং)

ফেইজবুক-কা-লীলা!

বর্তমান তথ্য প্রযুক্তির যুগে সামাজিক
যোগাযোগের অন্যতম একটি মাধ্যম হচ্ছে ফেইজবুক। ২০০৪ সালে মার্ক জুকারবার্গ
নামে জৈনক ব্যক্তি এই জনপ্রিয় যোগাযোগ মাধ্যমটি আমাদের উপরহার দেয়।
বর্তমানে এসে এর দৈনন্দিন ব্যবহার বেড়ে চলেছে অত্যধিক মাত্রায় যা বর্ণনা
করা দূরহ ব্যাপার। বর্তমান বিশ্বে এই ফেইজবুক ছোট বড় সবার কাছে অত্যন্ত
জনপ্রিয়, কারন হিসেবে আমরা দেখতে পায়-
১। সহজেই সবার সাথে যোগাযোগ রাখা যায়।
২। খুব কম সময়ের মধ্যে যেকোন খবর সবার কাছে পৌছে দেওয়া যায়।
৩। নিজের মনের অনুভুতি গুলো সবার সাথে ভাগাভাগি করা যায়।
৪। যেকোন বাণিজ্যিক প্রচারনা করা যায়।
৫। আমাদের অবসর সময় কাটানোর অন্যতম একটি মাধ্যম।
৬। নগ্নতা, বেহায়াপনা ও বেপর্দার স্বাদ।

কিন্তু এতসব সু্যোগ সুবিধার পাশা-পাশি প্রতিনিয়ত ধীর গতির
অন্ত্রালে আমাদের ঠেলে দিচ্ছে ধংসের দিকে! আসুন দেখেনি ফেইজবুক আমাদের কাছ
থেকে যা যা কেড়ে নিচ্ছে -
১। স্বাভাবিক বন্ধুত্বের খোলামেলা আড্ডা।
২। অবসর সময়ের বাইরের আনন্দ।
৩। ভাল চরিত্রগুন।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4 (2টি রেটিং)

বিমাতাসুলভ আচরণ

দলীয় নেতা কর্মীদের হয়রানী, হামলা-মামলা, ধরপাকড় ও নানাধরনের হূমকী
ধামকীর পর শির্ষব্যক্তি বিবৃতি দিলেন – সরকার আমাদের প্রতি বিমাতা সূলভ
আচরণ করছে, মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করছে।

পত্র-পত্রিকায়, টকশোতে, খবরে, র্শীষনিউজে বিবৃতি প্রচার হতে লাগলো।
পত্রিকার নিউজ হেডলাইন হলো – সরকারের বিমাতাসূলভ আচরণ। বিমাতাসূলভ আচরণের
কাব্যিক ব্যবহারে ব্যবহারকারী নিজেই মুগ্ধ। একেবারে ক্লাসিক একটি বাগধারা
তৈরি করা হয়েছে। ঘরে-বাইরে, হাটে-মাঠে-ঘাটে, দেশে-বিদেশে, রাঁধুনীর
রান্নাঘর থেকে সরকারের উচ্চপর্যায়ে এমনকি বিশ্বায়নের যুগে পুরো বিশ্ব
বিশ্লেষনে বিমাতার অবাধ চলাফেরা।
বিমাতার বাস ঘরে বিশেষ করে পাকশালায় কিন্তু তার আচরণের ফিরিস্তি গায় বিশ্ব বাঙ্গালী। জয়তু বিমাতা, যত দোষের দোষী।

আপনার রেটিং: None
Syndicate content