'আবীর' -এর ব্লগ

“নেপালের রাজধানী নেপচুন”!!! এটাও কি সম্ভব? সম্ভব আমাদের এ+ পাওয়ার স্টুডেন্টদের দিয়ে । আজব এ+!!!

একটা ভিডিও দেখলাম। মাছরাঙা টিভির একজন সাংবাদিক
কথা বলছিল এস.এস.সি পরীক্ষায় GPA 5 পাওয়া
স্টুডেন্টদের সাথে।
সাংবাদিকঃ GPA এর পূর্ণরূপ কি? ছাত্রঃ great point
সাংবাদিকঃ SSC এর পূর্ণরূপ কি? ছাত্রঃ জুনিয়র স্কুল
সার্টিফিকেট।
সাংবাদিকঃ অনুবাদ করো- আমি জিপিএ-৫ পেয়েছি।
ছাত্রঃ I am GPA 5.
সাংবাদিকঃ শহীদ মিনার কোথায়? ছাত্রঃ সরি জানিনা।
– সাংবাদিকঃ অপারেশন সার্চ লাইট কি? ছাত্রঃ
অপারেশন করার সময় যে লাইট ব্যবহার করে।
– সাংবাদিকঃ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস কবে? ছাত্রঃ
জানিনা।
সাংবাদিকঃ স্বাধীনতা দিবস কত তারিখ? ছাত্রঃ ২৬শে
ডিসেম্বর।
– সাংবাদিকঃ মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশকে কয়টি
সেক্টরে ভাগ করা হয়েছিল? ছাত্রঃ ৯টি।
– সাংবাদিকঃ নেপালের রাজধানীর নাম কি? ছাত্রঃ
নেপচুন – সাংবাদিকঃ পিথাগোরাস কে ছিলেন? ছাত্রঃ
উপন্যাসিক।
– ২০০১ সালে জিপিএ-৫ পেয়েছিল সারা
বাংলাদেশে ৭৬ জন। ২০১৬ সালে সেটি বেড়ে
দাঁড়িয়েছে ১ লক্ষ ১০ হাজারের বেশী! –
ভাগ্যিস যাদের প্রশ্ন করা হয়েছে তাদের
বাপের নাম জিজ্ঞেস করা হয় নাই। জিজ্ঞেস
করলে হয়তো বলত- সরি এটি আমার সিলেবাসে
নাই! – যাইহোক উপরোক্ত জোকস গুলো

আপনার রেটিং: None

```````````` Life Is Not Enjoy `````````````

জাফর ইকবাল যখন বলে,"মেয়েরা
রসগোল্লার মত
যেখানেই রাখবেন সেখানেই পিপড়া
ধরবে" সেটা হয়ে যায় বিজ্ঞান সম্মত
কথা..
.
হুমায়ুন আহমেদ যখন লিখেন,
"গর্ভবতী মেয়েদের দেখতে লাগে একদম
গাভিন গরুর মত" তখন সেটা হয়
বাস্তব সম্মত কথা..
.
১লা বৈশাখের দিন যখন প্রকাশ্য
দিবালোকে ছাত্রলীগ কর্মীরা মেয়েদের
বস্রহরন করে আর তা নিয়ে পুলিশের
আইজিপি বলে,
"১লা বৈশাখের ঘটনা স্রেফ ৪-৫
ছেলের দুষ্টমি ছাড়া আর কিছুই না"..
তখন সেটাও সবাই মেনে নেয়..
.
আর তর্কের খাতিরে যখন
আল্লামা আহমদ শফি সবচেয়ে
সঠিক,বাস্তব ও বিজ্ঞান সম্মত
কথাটি বলেন যে,
"নারীরা হলো তেতুলের মত,
তাদের দেখলে পুরুষের লালা ঝড়ে"...
তখন সেটা হয় কুৎসিত কুরুচিপুর্ন
বক্তব্য....
বাহ বাঙালির রুচির প্রশংসা না
করে আর পারলাম না,, বৈশাখের বস্র-
হরনও যদি হয় দুষ্টমি তবে দেখা যাবে
আগামি ধর্ষন করে তারা বলবে,
"এ এমন কিছু না যাষ্ট ছেলেগুলো
দেখছিলো মেয়েটা ভার্জিন কিনা ।
.
এই পোষ্টের কথাগুলো পুরনো । তারপর ও
সামনে পহেলা বৈশাখ । গতবছরের টিএসসির ঘটনার
যে আবার রিপ্লে হবেনা তার কি কোন নিশ্চয়তা
আছে ?
.
কেননা আমাদের দেশের আইন ব্যবস্হাতো

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 1 (টি রেটিং)

তনু হত্যাসহ নারী ধর্ষণের বিচার চাই !

"তনু" তুমি অপরাধ করেছো!!!
তুমি অপরাধ করেছো এমন একটা
দেেশ জন্মগ্রহণ করে, যেদেশে এমন
এক শ্রেণীর মানুষ রূপের ঘৃণ্য পশুর বাস
যাদের কাছে একটা মেয়ের জীবন,
একটা মেয়ের ইজ্জতের কোন মূল্য নেই।
তারা শুধু মেয়ে মানুষের শরীরের
নরম-অংশটাকে চিনে। তাদের কাছে
মেয়েদের মা, বোন, স্ত্রী, কন্যা
রূপটা মূল্যহীন।
"তনু" তুমি অপরাধ করেছো এমন একটি
দেশে জন্মগ্রহণ করে যেদেশে এমন
এক শ্রেণীর মানুষের বাস, যারা
নিজেদের মা-বোনের,স্ত্রী-কন্যার
ইজ্জত না নিলে প্রতিবাদ করতে
জানেনা।
"তনু" তুমি অপরাধ করেছো এমন একটি
দেশে জন্মগ্রহণ করে, যেদেশে
বিচার বলতে কিছুনাই। অন্তত দুর্বলের
জন্য তো বিচার পাওয়ার আশাই করা
যায়না।
"সোহাগী জাহান তনু" কুমিল্লা
ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের
ইতিহাস বিভাগের স্নাতক ২য়
বর্ষের ছাত্রী। অলিপুর বালিকা উচ্চ
বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী
ইয়ার হোসেনের কন্যা। আর্থিক
অস্বচ্ছলতার কারণে মেয়েটি
অলিপুরেই একটি বাসায় টিউশনি
করতো। ১৯ বছর বয়সী এই
মেয়েটিকে ধর্ষণের পর হত্যা করা
হয়েছে তাও আবার কুমিল্লা
সেনানিবাসের মতো একটি
জায়গায়। অথচ সেনাবাহিনী, পুলিশ,
বা সরকার কেউই এই হত্যার পেছনের

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 1 (টি রেটিং)

আমেরিকাতে ভালো আছেন কি মুসলিম জনগোষ্ঠি?

আমেরিকাতে মুসলমানরা কতটা অসহায়,
তা বলার আর অপেক্ষা রাখে না। সে
দেশে যে মুসলিমরা বৈষম্যের শিকার
হচ্ছে তা সাম্প্রতিককালে বৌদ্ধ সন্নাসীর
ওপর হামলার ঘটনাটিই সাক্ষ্য দেয়। কনে
না, দেশটিতে মুসলিম ভেবেই বৌদ্ধ
সন্ন্যাসীর ওপর হামলা চালানো.হয়েছিল।
আক্রান্ত ওই বৌদ্ধ সন্ন্যাসীর নাম
কোজেন সাম্পসন। ৬৬ বছর বয়সী সাম্পসন
জানিয়েছেন, তিনি যখন ওরেগন প্রদেশে
হুড নদীর ধারে ঘুরছিলেন, তখন মুসলিম
ভেবে ভুল করে তাকে আক্রমণ করা হয়।
হুড রিভার পুলিশ ডিপার্টমেন্ট
জানিয়েছে, সাম্পসনের গাড়ির দরজায়
লাথি মারা হয়। দরজাটা এসে লাগে তার
মাথায়। এরপর ঘটনাস্থল থেকে চলে যায়
অভিযুক্ত ব্যক্তি। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে
পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত
শ্বেতাঙ্গ।
সাম্পসন জানিয়েছেন, তার আঘাত গুরুতর
নয়। অল্প ক্ষত হয়েছে। কিন্তু কয়েক
মিনিটের জন্য স্তম্ভিত হয়ে গিয়েছিলেন
তিনি। সাম্পসন বলেন, কোনও কারণ ছাড়াই
আমার ওপর হামলা করা হয়। আমার পোশাক
দেখেই সম্ভবত আমায় মুসলিম বলে মনে
হয়েছিল। আমি জানি এই ঘটনা রাগেরই
প্রতিফলন। প্রতিদিন এমনই ঘটনার শিকার
হতে হয় মুসলিমদের।
তিনি বলেন, এভাবে কারও রাগ নিয়ে

আপনার রেটিং: None

অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা দুঃখজনক ঘটনার জন্মদিল। বাংলাদেশে জনাব আতিউর রহমানের মত মানুষের শূন্যস্থানের বিকল্প নেই।

এ কথা ঠিক যে দেশের স্বার্থে অর্থ চুরি যাওয়ার
বিষয়টি আমি প্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীকে
একটু পরে জানিয়েছিলাম। তবে দেশের
স্বার্থেই সেটা আমি করেছি। কারণ সঙ্গে
সঙ্গে জানাজানি হয়ে গেলে আরও সাইবার অ্যাটাক
হওয়ার আশঙ্কা ছিল..." "...“আমি প্রধানমন্ত্রীর
অপেক্ষায় আছি। আমি সাত বছর দায়িত্ব পালন
করেছি। বাংলাদেশ ব্যাংককে সন্তানের মতো
মনে করেছি। রিজার্ভের ২৮ বিলিয়ন ডলার
থেকে অর্থ চুরি হোক- এটা আমি কখনও চাইন..."
-- পদত্যাগের অপেক্ষায় থাকা বাংলাদেশ ব্যাংকের
গভর্নর আতিউর রহমান। . এই নিরপরাধ মানুষটাকে
বলির পাঠা হতে হচ্ছে!

ছবি: 
আপনার রেটিং: None

""""""কালো দিবস""""""

বাংলাদেশের ইতিহাসে ১৮ ই
নভেম্বরছিল ফেইসবুকের ১টি কালো
দিন !!!ওইদিন বাংলাদেশ হানাদার
বাহিনীরহাতে ৮০% ফেসবুক
মুক্তিবাহিনী নিহতহবার পর
স্বাধীনতার ডাক দিলো
আমাদেরপ্রাণ প্রিয় নেতা
# UC_ব্রাউজার ,লেফটেন্যান্ট
# VPNওকর্নেল #Opera !!!এক্ষেত্রে
আর্থিকভাবে সাহায্যে এগিয়ে
এসেছেজাপান, সিংগাপুর,ফ্রান্স,
# USA_UKসহআরোকিছু দেশের # Proxy
সার্ভারবাহিনী । কবে এই যুদ্ধশেষ
হবে?
# স্টাফ_রিপোর্টার
# যুদ্ধের_মাঠ_থেক

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

"সূর্য্য সন্তান" মুসলিম

আলজেরিয়ান এই "সূর্য্য সন্তান" মুসলিম
ভাইটি বিভিন্ন ইসরাইলি ব্যাংক থেকে
প্রায় দুইশত মিলিয়ন ডলার হ্যাকিং করে
ফিলিস্তিনি হতদরিদ্র মানুষদেরকে
সাহায্য করেছিলেন বলেই ইহুদীজাতি
ইসরাইলীরা তাকে প্রকাশ্যে ফাঁসি
দিয়েছে। ফাঁসি
কার্যকরের আগে ইসরাইল তাকে একটি
লোভনীয় প্রস্তাব(টোপ)দিয়েছিল, যদি সে
তার মেধাকে ইসরাইলের জন্য ব্যবহার করে
তাহলে তাকে ক্ষমা করে দেওয়া হবে, সেই
সাথে তার জন্য উন্নত জীবন যাপনের
ব্যবস্থা করা হবে। কিন্তু তিনি ইহুদিদের
প্রস্তাব ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করে দেন।
এবং শাহাদাৎ এর অমিয় সুধা পান করেন
এখানে যেন সেই হযরত খাব্বাব (রা:) এর
জ্বলন্ত প্রতিচ্ছবি ফুটে উঠেছে,সাচ্চা
মুসলিমদের তো এমনই হওয়া উচিৎ।আল্লাহ
তাকে(ভাইটিকে) জান্নাতুল
ফেরদাউস দান করুক, আমিন..

ছবি: 
আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 1 (টি রেটিং)

সুজিতে হলুদ দেয়ার অপরাধে হ্যাপীর পেটে লাথি মেরেছিল শাহাদাত!

কতটা নিষ্ঠুর আর বিবেকহীন হলে একজন
মানুষ ১১ বছরের ছোট্ট শিশুকে সামান্য
সুজিতে হলুদের গুড়া দেয়ার অপরাধে
উপর্যপুরি পেটায়? তাকে কোন মানুষই নরপশু
বলে গালি দিতে দ্বিধাবোধ করবে না।
আর সে যদি কোন সেলিব্রেটি হয়ে থাকে,
তার পরও গালি দেয়া থেকে বিন্দু মাত্রও
পিছপা হবে না কেউই।
বাংলাদেশ জাতীয় দলের পেসার
শাহাদাত হোসেন একজন নামজাদা
খেলোয়াড় হলেও মাঠের বাহিরে যে তার
এক কুৎসিত চরিত্র আছে সেটা ছোট একটি
ঘটনার মধ্য দিয়ে জেনেছে বিশ্ববাসী। ১১
বছরের ছোট্ট কাজের মেয়েকে নির্যাতন
করে এবং নির্যাতনের অভিযোগে
ফেরারী আসামী হয়ে পালিয়ে
বেড়াচ্ছেন পরিবার নিয়ে।
আর অন্যদিকে, ঢাকা মেডিকেলে বসে
শাহাদাতের নির্যাতনের বর্ণনা দিলেন
নির্যাতিতা হ্যাপি।
হ্যাপি জানায়, শাহাদাতের বাচ্চার জন্য
রান্না করা সুজিতে হলুদ-মরিচ দেওয়ার
অপরাধে তার পেটে লাথি মারেন
শাহাদাত।
হ্যাপী জানায়, প্রায় ছোট ছোট ভুলের
জন্য শাহাদাত ও তার স্ত্রী তাকে লাঠি ও
হ্যাঙ্গার দিয়ে পেটাতো। পরশুদিন
বাচ্চার সুজি গরম করার পর ফ্রিজে রেখে
দিলে হলুদ হলুদ দেখায়। সেটা দেখে
শাহাদাত ভাইয়া আমার পেটে লাত্থি
দিয়ে বলে তুই সুজিতে হলুদ-মরিচ দিছিস?

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 1 (টি রেটিং)

আয়নালকে জীবন দিয়ে প্রমান করতে হল মানবতা মরেনি!

৩ বছরের শিশু আয়নাল কুর্দি । সিরিয়ার কোবানিতে
জন্ম নেয়া পবিত্র মুখটি জগতবাসীর রূঢ়তার বলি হল
কেন ? মায়ের বুকে খুনসুঁটি করে, বাবার কাঁধে
চড়ে, খেলনার আওয়াজ শুনে বেড়ে ওঠাই তার
অধিকার ছিল । কিন্তু কিভাবে হেসে খেলে
বেড়ে উঠবে ? ওর সবচেয়ে দূর্ভাগ্য ওর
জন্ম সিরিয়ায়, শিশুটির দূর্ভাগ্য ওর জন্ম যুদ্ধে
আক্রান্ত দেশে । যে দেশে মানুষ মানুষকে
হত্যা করে পাশবিক সুখে উল্লাস করে ।
পৃথিবীতে ভূমিষ্ঠ হয়েই ওকে শুনতে
হয়েছে কামানের শব্দ । বাবা আব্দুল্লাহর সুখের
আশ্রয় ছিল যেই ছো্ট্ট সোনামনি সেই
আয়নালকে শেষ রক্ষা করতে পারেনি বাবা । নিথর
দেহটি সমুদ্র উপকূলে ভেসে উঠে শুধু
আব্দুল্লাকে বাকশুণ্য করেনি বরং বিশ্বের সকল
মানুষকে মূহুর্তকালের জন্য হলেও থমকে
দিয়েছে । পকেট থেকে রুমাল/টিস্যু বের
করে চোখ মুছতে বাধ্য করেছে । তবে
দূর্ভাগ্য আয়নালের । জীবন দিয়ে প্রমান করতে
হল, যে মানবতা এখনো মরেনি । আয়ানালের
মৃত্যু হলেও ক্ষণে ক্ষনে মরছে ওর বাবা ।
স্ত্রী রেহান, প্রিয় বড় ছেলে গালিপ(৫) ও
ছোট ছেলে আয়নাল কুর্দিকে হারিয়ে
আব্দুল্লাহ মৃত্যু কামনায় ব্যস্ত ।
আয়নাল কুর্দির জন্মের পূর্ব থেকেই সিরিয়ায়

ছবি: 
আপনার রেটিং: None

আয়লানের ছবি দেখে কাঁদলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট!

ছবি: 
আপনার রেটিং: None
Syndicate content