'অর্ণব' -এর ব্লগ

শিক্ষা ও মানব সম্পদ-ভিশন ২০৩০

 

১। শিক্ষাখাতে জিডিপির ৫% অর্থ ব্যয় করবেন বলে
খালেদা জিয়া ঘোষণা দিলেও চার দলীয় সরকারের শাসনামলের অভিজ্ঞতায় এতটুকু বলা যায়
৪.৯৯% যাবে নতুন হাওয়া ভবনের খাতে, কোন শিক্ষা খাতে নয়।

 

আপনার রেটিং: None

এয়ারপোর্ট রোডে দৃষ্টিনন্দন ফাইকাস বনসাই

 

 

আপনার রেটিং: None

ইতিহাসের অমূল্য স্মারক বাঙালীর বীরত্বের ইতিহাস স্মরণ করিয়ে দেয়

আপনার রেটিং: None

আজকের শিশুরাই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ

আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। একটি
জাতির সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ সম্পদ হচ্ছে শিশুরা। আজ যারা শিশু তাদেরকে যদি আমরা
সচেতন, সুস্থ-সুন্দর পরিবেশে বিকাশ লাভের সুযোগ করে দেই, তাহলে ভবিষ্যতে তারা হবে
এদেশের এক একজন আদর্শ, কর্মক্ষম, সুযোগ্য নাগরিক। এমন এক সময় আসবে যখন তারা দেশের
প্রতিটি সেক্টরে অসাধারন দক্ষতার পরিচয় দিয়ে এ দেশকে অগ্রগতির দিকে এগিয়ে নিয়ে
যাবে। অথচ যুগের নাম দিয়ে ধ্বংসের জীবাণু খুব সহজেই চারদিকে বিস্তার করছে।
রং-বেরঙের গল্প ছড়ার বইও এখন হার মানছে ভিডিও গেমসের কাছে। কারো জন্মদিনে তাকে যদি
বই উপহার দেওয়া হয় তখন সে বইটা হাতে নিয়েই মুখ কালো করে ফেলছে। সঙ্গে সঙ্গেই বলে

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 3 (টি রেটিং)

দূরত্ব কমছে রংপুর-ঢাকা রেলপথের ১১২ কিলোমিটার

 

 

আপনার রেটিং: None

প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় নিতে হবে আগাম প্রস্তুতি

সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্বব্যাপী প্রাকৃতিক দুর্যোগ বেড়েই চলছে।
জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে দুর্যোগ বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ জীবকুল ও
সম্পদের ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রতিরোধের শক্তি মানুষের নেই, কিন্তু আগাম দুর্যোগ-প্রস্তুতি নিয়ে
ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমিয়ে আনা এবং দুর্যোগ আক্রান্ত এলাকা থেকে লোকজন নিরাপদ স্থানে
সরিয়ে আনা সম্ভব। ক্রমাগত জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশে সমুদ্রস্তরের উচ্চতা
বৃদ্ধি, লবণাক্ততা, হিমালয়ের বরফ গলার
কারণে নদীর গতিবেগ পরিবর্তন, বন্যা ইত্যাদি কারণে বাড়ছে
প্রাকৃতিক দুর্যোগসমূহ। প্রাকৃতিক দুর্যোগের ওপর মানুষের নিয়ন্ত্রণ নেই বলে প্রতি
বছর হাজারো বসতি উজাড় হয়, লাখ লাখ মানুষ হয় গৃহহীন। ১৯৯৮

ছবি: 
আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 3 (টি রেটিং)

দেশপ্রেম বিবর্জিতরা এরকমই!!!

 

আপনার রেটিং: None

আধুনিক হোটেল-রেস্তরা শহর এখন রাজধানী

ছবি: 
আপনার রেটিং: None

তাহলেই পূর্ণ হবে সুন্দর আগামীর আশা

বাংলাদেশ
এখন যে কোনো আধুনিক রাষ্ট্রের মতোই ইনফরমেশন টেকনোলজির সঙ্গে যুক্ত। ডিজিটাল
বাংলাদেশ কিংবা ডিজিটাল জীবনযাপনে সবাই অভ্যস্ত হয়ে পড়ছে। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে নতুন
প্রজন্মের মধ্যে এখন সচেতনতা অনেক তুঙ্গে। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারে সবাই একমত। কেউ
চায় না এ দেশে জঙ্গিদের উত্থান হোক, চেপে বসুক কোনো
অপশক্তি। এখন সবাই দেশ গড়তে চায়, দেশাত্মবোধে উজ্জীবিত। বিশাল জনশক্তি দেশের সঙ্গে
সম্পৃপৃক্ত হয়ে কাজ করতে চায়। প্রতিযোগিতায় দেশকে ঊর্ধ্বে দেখতে চায়, দুর্নীতিমুক্ত-স্বয়ংসম্পূর্ণ দেশ চায়। এই ভূখন্ডকে বড় করে তুলতে চায়।
সুস্থভাবে নিরাপত্তার সঙ্গে খেয়ে-পরে বাঁচবে – সবার একই স্বপ্ন। দেশের অনেক মেধাবী
মানুষ আছেন তারা মেধা বা যোগ্যতাবলে বিদেশে ভালো কাজ করছেন, দেশের

ছবি: 
আপনার রেটিং: None

গন্তব্যহীন যাত্রার শেষ কোথায়?

২০১৪ সালের নির্বাচনে অংশ না নিয়ে বিএনপি এখন সংসদীয় রাজনীতি
থেকে ছিটকে পড়েছে। আন্দোলন করে ক্ষমতাসীন সরকারের পতন ঘটানোর কথা বললেও বাস্তবে তা
করা সম্ভব হয়নি বিএনপির পক্ষে। সরকারবিরোধী আন্দোলনের নামে বিএনপি দীর্ঘদিন দেশে
সন্ত্রাস ও নাশকতা চালিয়ে নিয়মতান্ত্রিক ও গণতান্ত্রিক রাজনীতির ধারা থেকেই সরে
গিয়েছিল। দেশে আগুনের রাজনীতির চর্চা দিয়ে শুরু বিএনপির। যানবাহনে আগুন দেওয়া, পেট্রোল বোমায় পুড়িয়ে মানুষ মারা, সম্পদ বিনষ্ট করার

ছবি: 
আপনার রেটিং: None
Syndicate content