'এম এস লায়লা' -এর ব্লগ

প্রশংসা করবো শির্ক নয়!

প্রশংসার সবটুকুই মহান আল্লাহর! এই বিশ্বজাহানের সমস্ত ভালো, সমস্ত
সৌন্দর্য, সমস্ত মাধুর্য, সমস্ত পূর্ণতা, সমস্ত অনুগ্রহ একমাত্র আল্লাহ
তা'য়ালার জন্যই নির্দিষ্ট! আমরা যে যা কিছুই পেতে চাই, পেতে আকাংখি হই,
ব্যকুল হই, দূর্লভ চেষ্টা করি, প্রার্থনা করি, আবেদন করি, কাকুতি-মিনতি
করি, রোনাজারি করি, ভরসা করি, একমাত্র মহান সৃষ্টিকর্তা আল্লাহর কাছেই তা
চাই! আর সেই চাওয়া পূর্ণ করতে পারেন একমাত্র মহান আল্লাহই! যখন সমস্ত
সৃষ্টিই তার, আর তিনিই স্রষ্টা! এবং সকল ইচ্ছা পূর্ণ করার ক্ষমতাও তার তবে
আমাদের সকলের উচিৎ স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে আল্লাহর প্রশংসায় মত্ত থাকা!

জীবনে
যাকিছু পেয়েছি তার জন্যে তো প্রশংসা করা উচিৎই তারপর যা পেতে আকাংখি,
বেকুল, যার জন্য দূর্লভ প্রচেষ্টা করি তার জন্য আরো বেশী বেশী প্রশংসায়
লিপ্ত থাকা উচিৎ! আমাদের সকল বিষয়ে ইচ্ছা পূরণের ক্ষমতা একমাত্র আল্লাহরই!
আমাদের প্রিয় রাসূল (সঃ) এর জীবনী পড়লে পাই তিনি কিভাবে আল্লাহ তা'য়ালার
শানে প্রশংসা করতেন। আমরা দেখি; আমাদের প্রিয় নবী (সঃ) প্রতিদিন

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4 (টি রেটিং)

জীবনটা ছোট্ট স্বপ্ন ছোট নয়!

মানুষের জীবনটা ছোট্ট কিন্তু দু'চোখের স্বপ্ন ছোট নয়! জীবনের স্বপ্নগুলো দীর্ঘ থেকে দীর্ঘায়ু! সে স্বপ্ন পূরনের আকাংখাও কম নয় মানবিক অন্তরে! প্রত্যেক মানুষের মনেই ভিন্ন ভিন্ন আকাংখায় পূর্ণ! সবাই সেই স্বপ্নের বাস্তবায়ন চায় তবে সবাই পূর্ণতা পায়না! কেউ অল্পতেই পায় আর কেউ পাওয়ার আকাংখা বুকে নিয়ে বেঁচে থাকে! আর কেউ কখনোই পায়না! জীবনের এই ছোট্ট পরিসরে অপূর্ণই থেকে যায় তা!

ছোট্ট এই জীবনের পরিসরে কত প্রিয় প্রিয় ব্যক্তিত্বের সাথে পরিচয় ঘটেছে তা লিখে শেষ হবেনা! তবে কিছু কিছু ব্যক্তিত্বকে মনে রাখতেই হয়! মনে রাখতে হয় তাদের থেকে পাওয়া ভালোবাসাকেও হোক তা অল্প! আন্তরিকতাই মূল বিষয়! পৃথিবীর গোল বৃত্তের মাঝে চলতি পথে অনেকের সাথেই পরিচয় হয়, লেন-দেন হয়, সম্পর্ক হয়! আবার সময়ের ব্যবধানে ভুলেও যেতে হয়! তারপরও কিছু কিছু মানুষের স্মৃতি মনের মণি-কোঠায় স্থান করে আছে তারা কখনোই মনের সেই জায়গা থেকে সরে না! কারন তাদের নম্রতা, তাদের উদারতা, তাদের ভালোবাসা, ভালো ব্যবহার, তাদের মানুষকে উজার করে উপকার করার মন-মানষিকতা এতটাই গভীর যে, তাদের সেই উপকারকে ভুলে গেলে নিজের ব্যক্তি সত্তাকেই ভুলে যেতে হবে!

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4.7 (3টি রেটিং)

"হতবাক নির্বাক আমি" (ছোট গল্পের শেষ পর্ব)

বড়বউ
মেয়েকে নিয়ে চলে যায় বাপের বাড়িতে! সেখানে গিয়ে বাপের মোবাইল দিয়ে প্রবাসী
স্বামীর সাথে কথা বলে! তাকে জানায় মেয়ের বর্তমান অবস্থা! সে তো শুনেই
অস্থীর! কেন আগে তাকে জানানো হলোনা? বউ বলে জানালে তো তুমি স্টোক করবে কেন
জানাবো? স্বামী বলে এখানে থাকো পনেরোদিন এরপর এখানেই ডাক্তার দেখাও আমি পরে
টাকা ম্যানেজ করে দেব! তখন স্ত্রী বলে তোমার টাকার আমার কোন দরকার নেই,
তোমার টাকা তোমাকে বাপ ডাকলেও আমাকে মা ডাকবেনা! তুমি তোমার টাকা নিয়ে থাকো
আর মনে রেখ মানুষের জীবনের চাইতে টাকা বড় নয়! টাকার চাইতে মানুষের জীবনের
দাম অনেক বেশী! আর শুনে রাখো আমি অন্যের বাড়িতে কাজ করে খেলেও তোমার বাড়িতে
আর যাবোনা! কারন সেখানে আমার ও আমার মেয়ের খাবারের কষ্ট হয় বলেই ফোন রেখে
দেয় বউ!

যখন ছেলে ফোন করে বাবা-মাকে বলে জীবনের চেয়ে টাকা বড় নয়,
টাকার চেয়ে জীবনের দাম অনেক অনেক বেশী তখন তারা টাকা নিয়ে দৌড়ে দৌড়ে আসে

আপনার রেটিং: None

"হতবাক নির্বাক আমি (ছোট গল্প ২ পর্ব)"

২য়
ঘটনাঃ- সেই বোনের বড় ভাই বিয়ে করলো বাবা-মা ও আত্মীয় স্বজনদের পছন্দে! এই
পরিবারের সবাই ইসলামের মর্যাদা না বুঝলেও স্বামী দ্বীন ইসলাম বুঝার কারনে
মেয়েটা কষ্টের সাথে শশুরালয়ে নিজেকে মানিয়ে নিতে চেষ্টা করে! দিন তাদের
ভালোই কাটছিলো! শশুর-শাশুড়ী আর দেবরদের নিয়ে! মেয়েটা পর্দানশীল তাই
সংসারের পাশাপাশি আল্লাহর হুকুমকে প্রাধান্য দিতে সচেষ্ট হয়! স্বামীর
পরামর্শে প্রতিদিন বিকেলে শশুর-শাশুড়ীর সাথে খোশ গল্পের পাশাপাশি দ্বীনি
চর্চাও শুরু করেন! প্রতিদিন আল-কোরআন থেকে কয়েকটি আয়াত পড়েন অর্থ ও
ব্যাখ্যা সহকারে! সহীহ হাদীস থেকে হাদীস পড়েন! প্রতিদিন এক একজন সম্মানিত
সাহাবী (রাযিঃ) গণের জীবনী থেকে একটি করে ঘটনা পড়েন! প্রথম দিকে বউয়ের এসব
মানতে কষ্ট হলেও মেনে নেন সবাই! আস্তে আস্তে বউ শশুর-শাশুড়ীর খুবই প্রিয়
হয়ে যায়! দিন যেতে যেতে প্রায় চার মাস হয়ে যায় বিয়ের!

বউ শাশুড়ীকে

আপনার রেটিং: None

"হতবাক নির্বাক আমি" (ছোট্ গল্প)


ভোরের
শীতল বাতাস বইছে! নিরবে দুলছে গাছের সবুজ পাতাগুলো! গাছে গাছে ছোট পাখিরা
কলকল কন্ঠে গান গাইছে! এলোমেলো হাওয়া নদীর ঢেউকে তাড়িয়ে বেড়াচ্ছে! নির্ঝরণী
ঝমঝম রবে ঝরে চলেছে! আকাশে উড়ে চলেছে সাদা মেঘের পালকি! মাচায় এখনো ছড়িয়ে
ছিটিয়ে আছে লাউয়ের ডগাগুলো! ঘরের পীঁড়ায় বসে আছে বাড়ির সবার আদরের ছোট্ট
বিড়ালটা! বাড়ির পেছনে শুঁকিয়ে জীর্ণ-শীর্ণ হয়ে আছে বটগাছটা! ঘরের
দক্ষিন-পশ্চিম কোণে এখনো আছে তুলা গাছটা! সে এখনো ফলন দেয়! তবে তূলনা মূলক
কমে গেছে! বাড়িতে প্রবেশের চিকন রাস্তার দু'পাশে এখনো সবুঝ ঘাসের গালিচা
বিছানো আছে! বাড়ির ছোট মেয়েটার শখের বাগানে রজনী গন্ধা, গোলাপি, লাল, আর
সাদা গোলাপের সমারোহ! অহরহ সুরভী বিলিয়ে যাচ্ছে! আজো প্রাকৃতির চারিদিকটার
সবকিছু যেন আগের মতই রয়েছে! উঠোনের পাশে এখনো সেই মেহেদী গাছটা আছে! পাশে
আছে বরই গাছের মিষ্টি ছায়া! আজো নদীর কূলে সাদা কাশফুল গুলো দুলে দুলে

আপনার রেটিং: None

গুনাহের পরিণতি!


সম্মানিত পাঠকবৃন্দ, মনে রাখতে হবে, গুনাহ মানুষের দুনিয়া ও আখেরাত উভয় জগতের জন্যই ক্ষতিকর। গুনাহের কারণে মানুষ দুনিয়াতে লাঞ্ছনা-বঞ্চনা, অপমান- অপদস্থের শিকার হয়। দুনিয়ার জীবনে তার অশান্তির অন্ত থাকে না। অনেক সময় দুনিয়ার জীবন দূর্বিষহ হয়ে পড়ে। ফলে দুনিয়াতেও গুনাহের কারণে তাকে নানাবিধ শাস্তি ও আজাব-গজবের মুখোমুখি হতে হয় এবং আখেরাতে তো তার জন্য রয়েছে অবর্ণনীয়- সীমাহীন দূর্ভোগ। এ ছাড়া গুনাহ কেবল মানুষের আত্মার জন্যই ক্ষতিকর নয় বরং আত্মা ও দেহ দুটির জন্যই ক্ষতিকর। গুনাহ মানুষের জন্য কঠিন এক ভয়ানক পরিণতি ডেকে আনে। গুনাহ মানুষের আত্মার জন্য এমন ক্ষতিকর যেমনিভাবে বিষ দেহের জন্য ক্ষতিকর। গুনাহের কয়েকটি ক্ষতিকর দিক ও খারাব পরিণতি নিম্নে আলোচনা করা হল। যাতে আমরা এগুলো জেনে গুনাহ হতে বিরত থাকতে সচেষ্ট হই।

আপনার রেটিং: None

একটি শিক্ষনীয় গল্প!!

প্রবাসীর কাংখিত অনুভুতি!

মানুষের
জীবনে চাহিদার শেষ নেই! শেষ নেই সে চাহিদাকে বাস্তবে পূর্ণতা দেয়ার
চেষ্টাও! প্রত্যেকটি মানুষের চাহিদাই আলাদা আলাদা! কেউ সচেষ্ট হয় ভালো কাজ
করতে আর কেউ খারাপ কাজে লিপ্ত হয় ছয়/ নয় না ভেবে। এখানে ছয়/ নয় এজন্যই
বললাম দুনিয়া বা আখেরাতের চিন্তা না করেই! কথায় বলে কেউ মদ বিক্রি করে দুধ
পান করে আর কেউ দুধ বিক্রি করে মদ পান করার মত! কেউ হালাল পথে উপার্জন করে
হালাল ভাবেই খরচ করে নেকী অর্জন করে। আর কেউ হালাল পথে উপার্জন করেও হারাম
পথে ব্যয় করে শুধু মাত্র বুদ্ধি বিবেচণা না করার কারনে! মনে করে যে, আমি
কামাই করছি আমি খরচ করবো কাকে জিজ্ঞাসা করবো? আমার যা ইচ্ছা তাই করবো! সে
মতেই সে কাটিয়ে দেয় জীবনের মহা-মূল্যবান সময়গুলো! হয়তো এরই মাঝে কেউ কেউ

আপনার রেটিং: None

"ভালবাসি"

রজনী গন্ধা প্রিয় ফুল

গোলাপ আরো বেশী।

ভালবাসি না বিদেশী ফুল

ভালবাসি দেশী।

ভালবাসি দোয়েল কোয়েল

ভালবাসি টিয়া।

আমার দেশকে ভালবাসি

পূর্ণ হৃদয় দিয়া।

এই আকাশকে ভালবাসি

ভালবাসি তার সাজ।

ভালবাসি এই স্বাধীনতা

সেই তো মনের তাজ।

ভালবাসি ভোরের নিরবতা

ভালবাসি বাংলা কথা

ভালবাসি রাসূল(সাঃ)কে

ভালবাসি তাঁর প্রথা।

ভালবাসি বাংলা কবিকে

ভালবাসি কবির কবিতাকে

আমি যেন আমার স্বপ্ন খুঁজে পাই

কবির মনোমুগ্ধকর ভাষাতে।

আপনার রেটিং: None

আত্মার খোরাক (১৯)(মাহে রমাদ্বানে আলোচনা)

ঈর্ষা বা (হাসাদ) সম্পর্কিত হাদীসঃ-

হযরত
আবু হোরায়রা (রাযিঃ) হতে বর্ণিত, নবী করীম (সঃ) বলেছেনঃ তোমরা অবশ্যই
ঈর্ষা হতে নিজেদেরকে বাঁচিয়ে রাখবে। কেননা অগ্নি যেভাবে কাঠকে জ্বালিয়ে
ভষ্ম করে দেয়, অনুরুপভাবে ঈর্ষা ও মানুষের নেক আমলকে নষ্ট করে দেয়।"

(আবু দাউদ)

ব্যাখ্যাঃ-
অন্যের নেয়ামতের ধ্বংস কামনাকে বলা হয় ঈর্ষা। সমাজে কিছু লোক দেখা যায়
যারা অপরের স্বচ্ছলতা কর্মকুশলতা, পদমর্যাদা ও ধন-সম্পদ দেখে নিদারুণ
অন্তর্জ্বালা অনুভব করে এবং মনে মনে তার ধ্বংস কামনা করে নিজে অনুরুপ
নেয়ামত হাসিলের প্রচেষ্টা দোষণীয় নয়। তাকে হাসাদ বা পরশ্রীকাতরতাও বলা যায়
না।

দ্বিমুখীপনা সম্পর্কে হাদীসঃ

হযরত আবু হোরায়রা (রাযিঃ)
হতে বর্ণিত, নবী করীম (সঃ) বলেছেনঃ কিয়ামতের দিন তোমরা দ্বিমুখী লোকটিকেই
সবচেয়ে জঘন্য অবস্থায় পাবে। (দুনিয়ায়) সে কারো কাছে একরুপে আবির্ভুত হয়েছে

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (3টি রেটিং)

আত্মার খোরাক (১৮)(মাহে রমাদ্বানে আলোচনা)

অহংকার সম্পর্কিত বিষয়ে হাদীসঃ-

হযরত
আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রাযিঃ) হতে বর্ণিত, নবী করীম (সঃ) বলেছেনঃ যার
অন্তরে বিন্দু পরিমাণ অহঙ্কার থাকবে, সে জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না। এক
ব্যক্তি বললো হুযুর (সঃ)! কেহ যদি তার লেবাসে-পোষাকে ও জুতা উত্তম হওয়া
পছন্দ করে? (তাহলে সেটাও কি অহংকার?) হুযুর (সঃ) জবাব দিলেনঃ অবশ্যই আল্লাহ
সুন্দর এবং তিনি সৌন্দর্যকে পছন্দ করেন। প্রকৃত পক্ষে অহঙ্কার হলো আল্লাহর
গোলামী হতে বেপরোয়া হওয়া এবং মানুষকে তুচ্ছ জ্ঞান করা।"

(বুখারী)

ব্যাখ্যাঃ-
যে সমস্ত চরিত্রগত ত্রুটি মানুষকে মানবতাহীন করে, তার মধ্যে আত্মাভিমান বা
অহঙ্কার হলো অন্যতম। মানুষ সৃষ্টিকর্তার মুখাপেক্ষী হওয়া ছাড়াও পৃথিবীতে
সে পদে পদে অন্যের মুখাপেক্ষী। সুতরাং যে নিয়তই অন্যের মুখাপেক্ষী বা
মোহতাজ, তার পক্ষে আত্মাভিমানী বা অহংকারী হওয়া আদৌ শোভা পায় না। অহঙ্কারী

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)
Syndicate content