'আতাউর রহমান সিকদার' -এর ব্লগ

তাওবা

আল্লাহ তাআলার নিকট তার বান্দার তাওবা বিরাট এক খুশীর বিষয়। মানুষ অপরাধ করার পর আল্লাহ তাআলার নিকট তাওবা করা ও গুনাহের জন্য প্রার্থনা করাকে তিনি অত্যধিক পছন্দ করেন। তিনি তাওবা কবুল করেন এবং তাওবার মাধ্যমে তার বান্দাকে পুত পবিত্র করেন।

রাসুল সাল্লাল্লাহু অালাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, অাল্লাহ বলেন: “হে অামার বান্দারা তোমরাতো রাত্রি দিন ভুল করে যাচ্ছ, সুতরাং অামার নিকট ক্ষমা চাও, অামি তোমাদের ক্ষমা করে দেব।“ (হাদিসু কুদসী)

রাসুল সাল্লাল্লাহু অালাইহি ওয়া সাল্লাম অারও বলেছেন, অাল্লাহ বলেন: “অামি অামার বান্দার নিকট ঠিক ঐরকম যেরকম সে অামার সম্পর্কে ধারণা করে। যদি সে অামাকে মনে মনে স্মরণ করে অামিও তাকে মনে মনে স্মরণ করি। যদি সে কোনও সমাবেশে অামাকে স্মরণ করে অামি তার চাইতে উত্তম সমাবেশে তাকে স্মরণ করি। যদি সে অামার প্রতি এক বিঘত অাসে অামি তার প্রতি এক হাত অাসি। যদি সে অামার দিকে দিকে হেটে অাসে অামি তার দিকে দৌড়ে অাসি।“ (হাদিসু কুদসী)

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (3টি রেটিং)

মুসলিমের দায়ীত্ব কর্তব্যের কিছু --

হুযাইফা ইবনুল ইয়ামান রা: থেকে বর্ণিত। রাসুল সা: বলেছেন: অামি অাল্লাহর নামে শপথ করে বলছি যার নিয়ন্ত্রনে অামার জীবন। অবশ্যই তোমরা সৎ কাজের নির্দেশ এবং অসৎ কাজের নিষেধাজ্ঞার ব্যবস্থা করবে। যদি তা না কর তাহলে তোমাদের মধ্যেকার অসৎ, অযোগ্য, অাল্লাহদ্রোহী ও নীচ প্রকৃতির লোকদেরকে তোমাদের শাসক বানিয়ে দেয়া হবে। অত:পর তোমরা সে শাসকের যুলুম থেকে মুক্তিলাভের জন্য অাল্লাহর নিকট দোয়া করবে কিন্তু তোমাদের দোয়া কবুল হবেনা। (মুসলিম, মুসনাদু অাহমাদ)

অাবু সাইদ অাল খুদরী রা: থেকে বর্ণিত। রাসুল সা: বলেছেন, তোমাদের কেউ যদি কোন যুলম , অন্যায় কিংবা পাপ কাজ হতে দেখে তাহলে সে যেন তা তার হাত দিয়ে বাধা দেয়। যদি তা না পারে তাহলে যেন মুখ দিয়ে বাধা দেয়। যদি সে শক্তিও তার না থাকে তাহলে যেন অন্তর দিয়ে তা ঘৃণা করে। তবে এটা দুর্বল ইমানের লক্ষণ। (মুসলিম, মুসনাদু অাহমাদ, অাবু দাউদ)

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (3টি রেটিং)

সংগঠনভুক্ত জীবন

মোয়ায ইবনু জাবাল (রা) থেকে বর্নিত। রাসুল (সা:) বলেছেন: মেষ পালের নিকট বাঘ যেমন তদ্রুপ মানুষের বাঘ হচ্ছে শাইতান। মেষ পালের মধ্য হতে বাঘ সেই মেষটিকেই ধরে নিয়ে যায়, যে একাকী বিচরণ করে কিংবা পাল থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে অালাদা হয়ে যায়। অতএব সাবধান, তোমরা বিচ্ছিন্ন অবস্থায় থেকোনা। অবশ্যই সংগঠনভুক্ত হয়ে সাধারণের সাথে থাকবে। (মুসনাদু অাহমাদ)

অাবদুল্লাহ ইবনু উমার (রা:) থেকে বর্ণিত। রাসুল (সা:) বলেছেন: তিন ব্যক্তি যদি কোন জংগলেও বসবাস করে তাহলেও তাদের মধ্যে একজনকে নেতা নির্বাচন না করে বিচ্ছন্নভাবে অবস্থান করা জায়েয নয়। (মুসলিম, তিরমিযি, মুসনাদ অাহমাদ)

অাবদুল্লাহ ইবনু উমার (রা:) থেকে বর্ণিত: রাসুল (সা:) বলেছেন: অাল্লাহ তায়ালা অামার উম্মাতকে কখনও ভুল সিদ্ধান্তের উপর সংঘবদ্ধ করবেননা। অতএব তোমরা সংগঠনভুক্ত থেকো। অার সংগঠনভুক্ত জীবনের উপরই অাল্লাহর রাহমাত। (তিরমিযি)

হারিস অাল অাশঅারী (রা:) থেকে বর্ণিত। রাসুল সা: বলেছেন: অামি তোমাদেরকে ৫ টি বিষয়ের নির্দেশ দিচ্ছি:

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4.7 (3টি রেটিং)
Syndicate content