সত্য বলা, চলা ও প্রচারই হোক বিসর্গের ভাষা...

সত্যটা আর কবে বুঝবেন?

এ দেশের রাজনীতির মাঠের শীর্ষ খেলোয়াড়দের পরিচিতি
সবারই জানা, জানা আছে
তাদের সক্ষমতা, সহজাত প্রবণতা আর অতীতের সাফল্য-ব্যর্থতার নাড়ি-নক্ষত্র। কিন্তু এই
খেলোয়াড়দের অনেকেই তাদের দৃশ্যমান তৎপরতার সাথে পর্দার অন্তরালের অদৃশ্য খেলোয়াড়দের
সাথে গোপন আঁতাতে ম্যাচ ফিক্সিং এর মতো দূরভিসন্ধিমূলক নানা নাটকীয়তার জন্ম দিতে
সদা তৎপর। এরা কে যে কখন, কার জন্য কবর খুঁড়ে চলেছে তা বলা মুশকিল। তবে সচেতন
মানুষ মাত্রই জানেন, এদের কারণেই এ দেশে রাজনৈতিক মাঠে বৈরী হাওয়ার এতো দাপাদাপি, হাওর-বাঁওড়
থেকে রাজধানী, গ্রাম থেকে নগর বন্দর সবখানে মানুষ অস্বস্তিতে

আপনার রেটিং: None

আদিবাসী নয়; উপজাতি

 

 

আপনার রেটিং: None

বিএনপি চেয়ারপার্সনকে দেশে ফিরতে না দেওয়ার ইঙ্গিত

 

আপনার রেটিং: None

মাদকের আগ্রাসন রোধে সরকারের পদক্ষেপ

 

 

আপনার রেটিং: None

সম্প্রতি বেগম জিয়ার তাজ হোটেলে বৈঠক এবং অতীত ইতিহাস

 

আপনার রেটিং: None

সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে জনপ্রিয় হচ্ছে ‘স্কুল ব্যাংকিং’ কার্যক্রম

সময়ের সঙ্গে
পাল্লা দিয়ে জনপ্রিয় হচ্ছে ‘স্কুল ব্যাংকিং’ কার্যক্রম। স্কুল শিক্ষার্থীদের
মধ্যে সঞ্চয়ের মনোভাব গড়ে তুলতে ২০১০ সালের নবেম্বরে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে ‘স্কুল ব্যাংকিং’

আপনার রেটিং: None

পাচ্ছে না আশার আলো

 

 

আপনার রেটিং: None

যুদ্ধ

প্রতিবছর গড়ে ৮ লক্ষ লোক সুইসাইড করে। এটি গোটা পৃথিবীতে যেসব কারণে মানুষের মৃত্যু হয় তার মধ্যে উপরের দিক থেকে ১৭তম কারণ।
এইডসে প্রতিবছর যত লোক মারা যায় তার চাইতে ৩ গুণ বেশী মানুষ ডিপ্রেশনে ভুগে সুইসাইড করে।
প্রতি চল্লিশ সেকেন্ডে কেউ না কেউ দুনিয়ার কোন এক প্রান্তে সুইসাইড এটেম্পট করে জীবন থেকে পালাতে। ইউরোপে এক সময় সুইসাইড কে ফৌজদারী অপরাধ হিসেবে দেখা হতো। যদিও এখন তা আর হয়না।
নিম্বোক্ত কারণে সুইসাইড মানুষ বেশী করে। এ কারণগুলোকে আপনি সুইসাইড এটেম্পট করতে যাওয়া মানুষের সিম্পটম হিসেবেও দেখতে পারেন।
১. তারা ডিপ্রেসড: মোস্ট কমন রিজন অফ সুইসাইড। ডিপ্রেসড যে কোন কারণে হতে পারে।
১. স্টাডি ব্যার্থতা
২ . বেকারত্ব
৩. আর্থিক সমস্যা
৪. পারিবারিক কলহ
৫. একাকি কৈশোরকাল
৬. বন্ধুবিহীন জীবন।
৭. ভালোবাসায় প্রতারিত।

আপনার রেটিং: None

কেটে যাবে সকল সাময়িক স্থবিরতা

 

 

আপনার রেটিং: None

জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে সরকারের সাহসী পদক্ষেপ এবং ভবিষ্যত কর্মকৌশল

 

আপনার রেটিং: None
Syndicate content