"কোটা"র বিশ্লেষণে কৌটা কৌটা কেরামতি বেরিয়ে আসছে (সংগৃহীত)

কোটা সংস্কার আন্দোলন

দেশের মোট জনসংখ্যা =১৫,২৫,১৮১৫০ জন।
মুক্তিযোদ্ধা =২ লাখ। কোটা=৩০%
প্রতিবন্ধী =২০লাখ ১৬ হাজার। কোটা =১%
উপজাতি =১৫লাখ ৮৬ হাজার। কোটা =৫%
নারী কোটা =১০%। জেলা কোটা =১০%
----------------------মোট কোটা =৫৬%

৯৭.৩৭% মানুষের জন্য কোটা ৪৪%!
আর মাত্র ২.৬৩% মানুষের জন্য কোটা ৫৬%!
----
মনে করুন ৩৮তম বিসিএস-এ সরকারীভাবে ২০২৪জন ক্যাডার নিয়োগ দেয়া হবে। ইন্টারভিউ কল করা হয়েছে। যারা উত্তির্ণ হবেন তাদের মধ্যে
মুক্তিযোদ্ধা =২ লাখের জন্য =৩০% কোটা
প্রতিবন্ধী =২০লাখ ১৬ হাজারের জন্য =১%
উপজাতি =১৫লাখ ৮৬ হাজারের জন্য =৫%
নারীদের জন্য =১০%
বিশেষ জেলার জন্য =১০%

সর্বমোট ২.৬৩% মানুষের জন্য =৫৬% কোটা=১১৩৪টি বিসিএস ক্যাডার পদ বরাদ্দ। আর সাধারন ৯৭.৩৭% মানুষের জন্য ৪৪% কোটা= ৮৯০টি পদ বরাদ্দ।

এর মানে আপনি যত মেধাবীই হোন না কেন, চাকরি পাবেন না। আপনার চেয়ে কম মেধাবী- তার জন্য কোটা খালি থাকার কারনে চাকরি পেয়ে যাবে অনায়েশেই।

২.৬৩% লোক ১১৩৪টি পদ পাবে বিনা কন্ট্যাস্টে। আর ৯৭.৩৭% লোক ৮৯০টি পদের জন্য লড়তে হবে।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4.6 (5টি রেটিং)

কোটাগুলো যখন পাস হয়, তখন আন্দোলন হওয়া উচিত ছিল।

আমরা মূলতঃ দেয়ালে পিঠ না ঠেকলে নড়াচড়া করতেও রাজি না।

-

আমার প্রিয় একটি ওয়েবসাইট: www.islam.net.bd

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4.6 (5টি রেটিং)