আওয়ামী মিডিয়া

বাংলাদেশে রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশন চ্যানেল বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ (বিটিভি) পাঁচটি বেসরকারি টিভি স্টেশন তাদের সংবাদ পরিবেশনে তাত্পর্যপূর্ণ মাত্রায় রাজনৈতিক পক্ষপাতদুষ্ট বলে জানিয়েছে ডেমোক্র্যাসি ইন্টারন্যাশনাল। এসব চ্যালেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া সম্পর্কে মূলত নেতিবাচক বা কূত্সামূলক সংবাদ প্রকাশ করে থাকে। বিটিভির পাশাপাশি চারটি প্রাইভেট চ্যানেলের মধ্যে চ্যানেল আই এবং একাত্তর খালেদা জিয়া সম্পর্কে সবচেয়ে বেশি পরিমাণ নেতিবাচক খবর প্রচার করে। এরপরেই আছে সময় টিভি ও এটিএন বাংলা। খালেদা জিয়া সম্পর্কে নেতিবাচক সংবাদ প্রকাশে কম যায়নি এনটিভিও। আন্তর্জাতিক এই এনজিওর অধীনে পরিচালিত চলমান এক সংবাদ মনিটরিংয়ে বিষয়টি ধরা পড়েছে, যা প্রকাশ করেছে ইংরেজি দৈনিক নিউ এজ। যে পাঁচটি চ্যানেলকে এই গবেষণার জন্য বেছে নেয়া হয়েছিল, সেগুলো হলো এটিএন বাংলা, চ্যানেল আই, সময় টিভি, এনটিভি এবং একাত্তর।ডেমোক্র্যাসি ইন্টারন্যাশনালের ডাটাবেজ অনুযায়ী, এটিএন বাংলা শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে ইতিবাচক সংবাদ প্রচারের বিপরীতে ৩ গুণ বেশি পরিমাণ নেতিবাচক সংবাদ প্রচার করেছে (১০/৩২) অন্যদিকে খালেদা জিয়া সম্পর্কে প্রচারিত ইতিবাচক খবরের ৮ গুণ বেশি নেতিবাচক খবর প্রচার করেছে (৬/৫২) এনটিভিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্পর্কে ৫৫টি নেতিবাচক এবং ১৬টি ইতিবাচক বিবৃতি প্রচার করা হয়।সেখানে খালেদা জিয়া সম্পর্কে ৪৩টি নেতিবাচক এবং মাত্র ৩টি ইতিবাচক বিবৃতি প্রচার করা হয়।চারটি প্রাইভেট চ্যানেলের মধ্যে চ্যানেল আই এবং একাত্তর খালেদা জিয়া সম্পর্কে সবচেয়ে বেশি পরিমাণ নেতিবাচক খবর প্রচার করে।এনজিওটির গবেষণায় দেখা যায়,চ্যানেল আই বিরোধীদলীয় নেতা সম্পর্কে ৫৭টি নেতিবাচক মন্তব্য প্রচার করে।আর ইতিবাচক মন্তব্য প্রচার করে মাত্র ৩টি(২০:১ অনুপাতে)আর একাত্তর ৪৫টি নেতিবাচক মন্তব্যের বিপরীতে মাত্র একটি ইতিবাচক মন্তব্য প্রচার করে(১৫:১ অনুপাতে)অন্যদিকে দুটি চ্যানেলই শেখ হাসিনা সম্পর্কে যে নেতিবাচক ও ইতিবাচক মন্তব্য প্রচার করে,তার অনুপাতের ব্যবধান খুবই কম।চ্যানেল আই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্পর্কে ২৪টি নেতিবাচক খবরের বিপরীতে ১৬টি ইতিবাচক মন্তব্য প্রচার করে (১.৫:১ অনুপাতে) আর একাত্তর ৩৯টি নেতিবাচক মন্তব্যের বিপরীতে ১৫টি ইতিবাচক মন্তব্য প্রচার করে (২.৫:১ অনুপাতে) সময় টিভি শেখ হাসিনা সম্পর্কে ২০টি নেতিবাচক মন্তব্যের বিপরীতে সর্বোচ্চ ১৬টি ইতিবাচক মন্তব্য প্রচার করে।অন্যদিকে চ্যানেলটি খালেদা সম্পর্কে ৪৮টি নেতিবাচক মন্তব্যের বিপরীতে মাত্র ৭টি ইতিবাচক মন্তব্য প্রচার করে।রাজনৈতিক দলের নেতাদের সম্পর্কে খবর প্রচারের ক্ষেত্রেও চ্যানেলগুলো বিএনপি নেতাদের সম্পর্কেই বেশি নেতিবাচক খবর প্রচার করে।বিএনপি নেতাদের সম্পর্কে মন্তব্য প্রচারের ক্ষেত্রে এটিএন বাংলা ৯৪টি নেতিবাচক মন্তব্যের বিপরীতে মাত্র ৯টি ইতিবাচক মন্তব্য প্রচার করে; এনটিভি ৭৯টি নেতিবাচক মন্তব্যের বিপরীতে ৭টি ইতিবাচক মন্তব্য প্রচার করে; চ্যানলে আই ৯৬টির বিপরীতে ৪টি; সময় টিভি ৮৮টির বিপরীতে ৬টি এবং একাত্তর ৬৭টি নেতিবাচক মন্তব্যের বিপরীতে মাত্র ৩টি ইতিবাচক মন্তব্য প্রচার করে। তবে জরিপে দেখা গেছে, পাঁচ বেসরকারি টিভি চ্যানেলে তত্ত্বাবধায়ক সরকার সম্পর্কে প্রচারিত সংবাদের বক্তব্য এবং বিবৃতিগুলোর বেশিরভাগই ইতিবাচক ছিল। তত্ত্বাবধায়ক সরকার সম্পর্কে বিটিভি যতটা নেতিবাচক মন্তব্য প্রচার করেছে, তার চেয়ে অনেক কম নেতিবাচক মন্তব্য প্রচার করেছে বেসরকারি টিভি চ্যানেলগুলো। এটিএন বাংলা তত্ত্বাবধায়ক সরকার সম্পর্কে যে ৬০টি বিবৃতি এবং মন্তব্য প্রচার করে, তার মধ্যে ৫৩টিই ছিল খুবই ইতিবাচক। আর মাত্র ৪টি ছিল নেতিবাচক বা খুবই নেতিবাচক। একাত্তর টিভি তত্ত্বাবধায়ক সরকার সম্পর্কে ৪১টি ইতিবাচক মন্তব্য প্রচার করে এবং মাত্র ৬টি নেতিবাচক মন্তব্য বা বিবৃতি প্রচার করে।সূত্র আমার দেশ

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 2 (2টি রেটিং)

এ ধ্রনের লেখা চাই বেশী বেশী , ভালো লাগলো । আমার পাতায়  আমন্ত্রণ ।

-

k,h,mahabub

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 2 (2টি রেটিং)