আসুন ব্লগার অভিজিত্‍ রায় সম্পর্কে জেনে নেই

নর্দমার কিট নাস্তিক অভিজিৎ নাকি বিশাল এক ব্যাজ্ঞানি ছিল । এই চটি লেখক মুত্রমনা নামক একটি ব্লগ বানিয়ে সেখানে তাঁর ব্যাজ্ঞানচর্চা চালাতো। আসেন দেখি সেখানে সে কি কি বিজ্ঞানের সুত্র আবিস্কার করেছিল...!!!

ব্যাজ্ঞানি অভিজিৎ এর সুত্র দেখে মরারে আবার মারার কথা কেউ চিন্তা কইরেন না। এখন চিন্তার সময় এসেছে এইরাম বিশাল ব্যাজ্ঞানী ভোগে চলে যাওয়ায় যারা সেই ইস্যু নিয়ে ইসলামকে গালাগাল করার টেন্ডার নিয়েছে তাঁদের বিষয়ে বিহিত করা। আগে কিছু বিখ্যাত সুত্রগুলো দেখি -

১. “মুহাম্মদের যতই বুদ্ধি আর সাহস থাকুক না কেন, আজকের যুগে তার জন্ম হলে তিনি একজন বিন লাদেন, হিটলার বা বড়জোর একজন চেঙ্গিস খান হতে পারতেন, নবী হতে পারতেন না।”
বিস্তারিত দেখতে চাইলে ( http://goo.gl/uZL7Uu) লিঙ্ক থেকে ঘুরে আসুন।

২) "মুহাম্মদের ইসলাম অমুসলিমদের রক্ত পান করে বড় হয়েছিল, মুহাম্মদের মৃত্যুর পর থেকেই নিজেদের রক্ত মাংশ খেয়ে আজ পর্যন্ত বেঁচে আছে।"
বিস্তারিত দেখতে এখানে যান ( http://goo.gl/w4tLWF)

৩) "রেইপিষ্ট পাকিস্তানী আর আল্লাহর মধ্যে পার্থক্য কতটুকু? এই আল্লাহর পুজো মানুষে করে?"
বিস্তারিত দেখতে এখানে যান - ( http://goo.gl/7tNr3l)

৪) "মোল্লা ব্যাটা যখন শিশুটিকে ধর্ষণ করছিল আল্লাহ তখন হাসছিলেন, না কাঁদছিলেন? … শিশুটির যদি একটা কুত্তা থাকতো, সেই কুত্তার সামনে মোল্লার বাবারও ক্ষমতা হতোনা শিশুটিকে রেইপ করে। একটা নিরপরাধ, অসহায় শিশুকে ধর্ষণ থেকে বাঁচাতে আল্লাহর কি একটা কুত্তার শক্তিও নাই?"
বিস্তারিত দেখতে এখানে যান - ( http://goo.gl/vZNdo4)

৫) "কোরান হলো নাটকের পান্ডুলিপি, তা’ও ৭৫ভাগ অন্যান্য বই থেকে নকল করা।মুহাম্মদ তার পারিবারিক ঝগড়া-ঝাটি আর ব্যক্তিস্বার্থ চরিতার্থ করার লক্ষ্যে যে সকল আয়াত কোরানে যে ভাবে লিখেছেন, সেখান থেকে আসল ঘটনা উদ্ধার করা কঠিন।
বিস্তারিত দেখতে এখানে যান - ( http://goo.gl/z8kNkh)

এই হলো শুকোরছানাটার ব্যাজ্ঞানের নমুনা। এবার দেখেন তাঁর ভোগে যাওয়ার পরে কারা মেরেছে সেটার কোন তদন্ত না হতেই সরাসরি ইসলামের বিরুদ্ধে গালাগাল করে যুদ্ধে ঘোষণা করছে তাঁর চ্যালারা। এমন একজন চেলা হইলো তেজগাঁও বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ইউনিয়ন সভাপতি ফারুক সাদিক। তাঁর কথা হইলো- ইসলাম এই ভূখণ্ডে ঢুকেছেই নালন্দার লক্ষ লক্ষ জ্ঞানসাধককে পুড়িয়ে মেরে, মেরেই চলেছে অদ্যাবধি। আর জন্ম দিচ্ছে একেকটা মুসলমান, একেকটা উন্মত্ত কুকুর। এই পাগলা কুকুরের হাত থেকে মুক্ত হোক আমার জন্মভূমি।"

"শপথ করে বলছি, মৃত্যুর আগ পর্যন্ত লাগাতার তোদের ধর্মকে আক্রমণ করবো, মুসলিমের বাচ্চারা। অভিজিৎ রায়ের রক্তের
শপথ।’"

এইসব চ্যালারা তাঁদের প্রচারনা চালাচ্ছে চ্যাতনাধারী শাহবাগীদের ব্যানারে। অভিজিৎ হত্যার প্রতিবাদে গাঁজা চত্তর অনলাইনে একটি ইভেন্ট খুলেছে। “ব্লগার অভিজিৎ হত্যার প্রতিবাদে আজ সকাল দশটা থেকে শাহবাগে গণজাগরণ মঞ্চের অবস্থান” নামক ইভেন্টে “অপ্রিয় কথা” নামক এক আইডি লিখেছে

“ বুকে হাত দিয়ে বলছি, ইসলামকে আমি ছাড়ব না। আমার নিঃশ্বাস ত্যাগ পর্যন্ত বর্বর ধর্ম, খুনি ধর্ম, অসভ্য ধর্ম ইসলামের বিরুদ্ধে লড়ে যাবো।“

এইসব নাস্তিক জানোয়ারদের এখনি যদি প্রতিহত করতে না পারি একদিন এরা আমাদের মসজিদের যাওয়ার পথেও বাঁধা হয়ে দাঁড়াবে। এই ফারুক সাদিককে তাঁর প্রতিষ্ঠান থেকে বহিষ্কার করা হোক। টেক্সাইলে যেসব ভাইরা আছেন তাঁকে ধরে এনে জ্বীবটা কেটে ছেড়ে দেন। এটাই তাঁর উত্তর শাস্তি দেওয়া হবে।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)