অতীত

অনেক পেছনে তাকালে দেখি ছায়া... মাঠ, কোলাহল।
পাতা ভরা... জীবনের মহা খেলাঘর।

সময় অনেক দ্রুত পালায় আমায় পেছনে রেখে—
একাই আমি স্মৃতিদের পাল্লায় পরে হাড়াই সর্বস্ব,
এর পরও হাড়িয়ে যেতেই ভালোবাসি...
এই মাঠ কত বরষা কাঁদা জলে মেখে ফুটবলের সাথে জড়াজড়ি
সাঁতার না জানায় কত হাবুডুবু কত জলকেলি
এই সবই পানি মাখা দিন রাত্রী।
সব থেমে যেতো আজানের সূর লহড়ীতে

ঘাস পোকারা হাঁফ ছেড়ে বাঁচতো মৃত্যুর ভয় থেকে,
বিদ্যুত চলে গেলে মোমের আগুনে আলোকের সন্ধান;
কত কথা এখনো জমে আছে ইটের ভাঁজে ভাঁজে
হয়তো কোনোদিন এরা ছড়াবেনা প্রসস্ততার বুকে।

অনেক স্বপন অনেক প্রাণ... ভালবাসা ভরা জীবনের গান
কত অভিমান, কত কষ্ট,
চোখ বেয়ে নিভৃতে গড়িয়ে পড়া বেদনার রঙ
একা একা বয়ে যাওয়া আপন সময়
ফের হাসিখুশি... ফের আনন্দ
একসাথে সবে হাজিরা দিতে মহানের দরবারে।
এই মসজিদ, কাতারে কাতারে... ভরপুর।

অতীত পুরোনো হয়, বর্তমান আসে।
বর্তমান পুরোনো হয়, ভবিষ্যত আসে।
ভবিষ্যত পুরোনো হলে কি থাকে বাকি?
এর পরও সন্ধ্যা হতো ইতিহাস হয়ে দাড়িয়ে থাকা
বিশাল মহিরূহের পাতার তলে... ডালে, ছায়ায়।

অনেক পেছনে ফেলে আসা
বিদায়, বন্ধু, কোলাহল, ঘাস, প্রাণের কিছু খাটি নির্যাস,
সুর...
অনেক অনেক দূর...

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)

"সময় অনেক দ্রুত পালায় আমায় পেছনে রেখে"

চমৎকার!

ভবিষ্যত পুরোনো হলে কি থাকে বাকি?

কবিতাটি অফলাইন থেকে পড়েছি। কিন্তু কি করে যে মন্তব্য দেয়া হয়নি বুঝতেই পারছি না।

খুব ভাল লেগেছে। প্লিজ আরো দিন। কবিতা বোধ হয় এখন পর্যন্ত আপনি আর আমিই লিখছি এ ব্লগে।

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)