শিশুদের উপর নির্যাতন চালালে কৌমার্য ব্রত ভঙ্গ হয় না !

পাদ্রীদের  দ্বারা শিশু নির্যাতনের খবর প্রকাশিত হবার পর ক্যাথলিক খ্রিস্টান জগতে যখন তোলপাগ শুরু করেছে তখন অস্ট্রেলিয়ার অবসরপ্রাপ্ত একজন ক্যাথলিক বিশপ বলেছেন, যৌন নির্যাতনের সাথে জড়িত কোনো কোনো ক্যাথলিক পাদ্রী মনে করেন চিরকুমার থাকার যে ব্রত তারা গ্রহণ করেছেন শিশুদের উপর যৌন নির্যাতন চালানোর মাধ্যমে তা ভঙ্গ করা হয় না। তথ্যসূত্র

অস্ট্রেলিয়ার সিডনি নগরীর সহকারী বিশপ জিউফ্রি রবিন্সন সাপ্তাহিক অস্ট্রেলিয়ান উইমেন নামের একটি সাপ্তাহিককে দেয়া সাক্ষাৎকারে এ মন্তব্য করেছেন বলে ফরাসি বার্তা সংস্থা জানিয়েছে। তিনি বলেন, ক্যাথলিক চার্চে পাদ্রীদের দ্বারা যৌন নির্যাতিত শিশুদের বহু বছর ধরে কাজ করার সময় তিনি এই বিষয়টি লক্ষ্য করেছেন। তিনি জানান, পাদ্রীদের চিরকুমার থাকা অর্থে তারা বিয়ে করবেন এটাই বোঝানো হয়েছে এবং যৌন নির্যাতনের সাথে জড়িত পাদ্রীরা মনে করে, কোনো প্রাপ্ত বয়সী নারীর সাথে সম্পর্ক স্থাপন না করার পর্যন্ত তারা তাদের কৌমার্য ব্রত ভ্ঙ্গ করছেন না।

২০০৮ সালে সিডনী সফরকালে পোপ ষোড়শ বেনডিক্ট অস্ট্রেলিয়ায় ক্যাথলিক পাদ্রীদের কর্তৃক যৌন নিপীড়ন চালানোর জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেছিলেন।

যে পাদ্রীরা মানুষকে ধর্ম ও নৈতিকতার শিক্ষা দেন তারাই যদি নিজেদের লালসাকে চরিতার্থ করার জন্য এ রকম উদ্ভট ধারণা পোষণ করেন তাহলে মানুষ কাদের কাছে যাবে?

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 3.5 (2টি রেটিং)

ধর্মবিকৃতিকরণে খৃষ্টজগত তাদের হাজার বছরের ঐতিহ্য থেকে এখনো বেরুতে পারেনি।

-

বজ্রকণ্ঠ থেকে বজ্রপাত হয় না, চিৎকার-চেঁচামেচি হয়; অধিকাংশ সময় যা হয় উপেক্ষিত।

এটা ক্যাথলিকদের থিওলজিকাল ব্যাপার। আমরা যেমন ইসলামের ফিকহি ব্যাপারে অমুসলিমদের নাক গলানো পছন্দ করি না, অন্যদেরটাও আমাদের করা উচিৎ নয়।

প্রাপ্ত বয়স্কদের সাথে যারা কৌমার্যব্রত পালন করেন তাদের শিশুদের প্রতি আকৃষ্ট হওয়াটা কতটুকু স্বাভাবিক চিন্তা?

মনে হচ্ছে এটা তো রিপ্রেসন....

-

বিনয় জ্ঞানীলোকের অনেকগুলো ভাল স্বভাবের একটি

sl

মসজিদের  ভিতরে  যদি গণহারে  এভাবে শিশু  ধর্ষণের  ঘটনা  ঘটতো  , তাহলে   পাশ্চাত্যের  মিডিয়াতে    ইসলামকে হেয় করে   রাত -দিন অপপ্রচার চালানো হতো ।  অথচ সেই  একই মিডিয়া  এখন ধর্ষকদের  ধর্ম  নিয়ে  কোন কটাক্ষ করে  না 

  বা  যৌন নিপীড়ক  পাদ্রীদের  রক্ষা  করতে  ভ্যাটিকান যে  চেষ্টা চালিয়েছিল ,  সেজন্য  পোপকে দায়ী  করে   তেমন কোন  সমালোচনা করে না ।

 জনাব  ইমরান ,  ফিকাহ  শাস্ত্র  নিয়ে  কথা বলা

আর  শিশুদের  যৌন  নির্যাতনের প্রতিবাদ  করা  এক বিষয়  না ।  জ্ঞান  না  থাকলে  কোন ধর্মেরই  ধর্মশাস্ত্র  নিয়ে  আলোচনা করা সম্ভব  নয় ; তাই বলে কি   শিশু নির্যাতনের  প্রতিবাদ  করা যাবে না ?

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 3.5 (2টি রেটিং)