মুনশি আলিমের কবিতা 'মানবতা'

যেদিন আকাশের কাঁচুলি ছিড়ে একগুচ্ছ মেঘ নেমে এসেছিল আমার তল্লাটে

সেদিন বিদেশি স্বপ্নের চূড়া থেকে অবলীলায় চুয়ে পড়ছিলো মৌসুমী দরদ

মানবতা শিশুর মতো অন্ধকারের পাঁজর জুড়ে কেঁদেছিল

সে অনেকদিন হলো।

সূর্য জেগে ওঠলো,  পৃথিবী আলোর শাড়ি পড়লো কিন্তু কোথাও মানবতার খোঁজ নেই!

হায়!

ক্লান্ত পাখিরা নিজের নীড়ে ফিরে, পশুরাও- কেবল রোহিঙ্গারাই রয়ে গেল অনাথ, ঘরহীন, দেশহীন!

এ সভ্যতার সভ্যগণ একহাত সংকীর্ণ আইনকানুন ঘেটে নতুন নামকরণও দিল - উদ্বাস্তু‍!

হায়! আমরা এখনো এক অদ্ভুত সভ্যতার তীর ধরে হেঁটে চলেছি অনন্তের পথে, পথ জানা নেই...

বিবেকের আলোর ফসিল কথা বলে ওঠে-

সূর্য কখনো হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান বলে পার্থক্য করেনি- আলো কম দেয়নি- ধার্মিক, অধার্মিক  এমনকি ধর্মহীনকেও!

কেবল পোশাকি সভ্যরাই করে, করছে...

পৃথিবীর স্বার্থলোলুপ জটিল অন্ধকারের কটিদেশ থেকে অভিমান ভরে মানবতা কখন যেন বিদায় নিল-

কেউ খবর নেয়নি, আসলে কেউ খবর নেয় না!

----------------------

মুনশি আলিম

জাফলং, সিলেট

২৪.০৪.২০১৫

ছবি: 
আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)