চমক দেখতে উৎগ্রিব

 

বিএনপি সত্যিই সন্ত্রাসী দল হয়ে থাকলে রাজনৈতিকভাবে তাদের নিষিদ্ধ করা যেতে পারে। সাম্প্রতিককালে বিএনপি সন্ত্রাসী দলে পরিণত হয়েছে। আইনগত বিষয়গুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা উচিৎ। গণতান্ত্রিক রাজনীতিতে আগুন সন্ত্রাস
থাকা কারও কাম্য নয়। একটি মহল  দেশে গণতন্ত্র ও
গণতান্ত্রিক শক্তিসমূহকে দুর্বল ও নিঃশেষ করে দেওয়ার চেষ্টায় লিপ্ত আছে। কিছু বিপথগামী দেশে নৈরাজ্যকর অবস্থা সৃষ্টির চেষ্টা করছে। ২০০৮ সালের নির্বাচনের পর থেকেই বিএনপি-জামায়াত স্বাভাবিক গণতান্ত্রিক রাজনীতির পথ ছেড়ে সরাসরি সন্ত্রাস-নৈরাজ্য-অন্তর্ঘাত-নাশকতার পথ গ্রহণ করে, যার সর্বশেষ রূপ ছিল আগুনসন্ত্রাস-আগুনযুদ্ধ। বিএনপি-জামায়াত আজ নিজেরাই সন্ত্রাসবাদী-নৈরাজ্যবাদী রাজনৈতিক শক্তিতে পরিণত হয়েছে। আর বিএনপির সঙ্গে যুদ্ধাপরাধী-জঙ্গিবাদী-মৌলবাদী গোষ্ঠীর রাজনৈতিক সন্ধি দেশবাসীসহ কারও অজানা নয়। বিএনপি ও
জামায়াতের ২
জন প্রভাবশালী নেতা যখন ফাঁসির একেবারে দ্বারপ্রান্তে, তখনই খালেদা জিয়া ২
মাস পর দেশে ফিরে আসলেন। কানাঘুষা আছে, খালেদা জিয়ার লন্ডনে
বসে তাদের রক্ষার চেষ্টাও করেছিলেন, কিন্তু তার কান্নায় কারও মন গলেনি। একপ্রকার নির্ভার
হয়েই খালেদা জিয়া দেশে ফিরে এলেন। এখন বিএনপি নেতাকর্মী ও
দেশবাসী অপেক্ষায় আছেন, খালেদা জিয়া কি নিয়ে এলেন, কি চমক দেখাবেন,
তা দেখার জন্য।

আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None