স্বাধীন বিচার ব্যবস্থা রাষ্ট্রকে শক্তিশীলী করে

 

ক্ষমতায় থাকা মন্ত্রী, এমপি’রা হয়তো ভাবেননি আসামী হয়ে দুদক বা আদালতে হাত জোড় করে দাড়াতে হবে। অতীত আমাদের সে
কথাই স্মরণ করিয়ে দেয়। রাষ্ট্রযন্ত্রের প্রত্যক্ষ মদদে যখন ২১শে আগস্ট
শেখ হাসিনার জনসভায় গ্রেনেড হামলা হলো, বিচার তো দুরের কথা, অপরাধীদের নাম বলারও সাহস ছিলনা। আজ সে অবস্থা
নেই।
১৯৭৫
সালের পর থেকে বিচারহীনতার যে সংস্কৃতি চালু হয়েছিল বর্তমান সরকার তা ধীরে ধীরে সহনীয়
অবস্থায় নিয়ে এসেছেন। হত্যাকান্ড, লুটপাট করার জন্য এখন আর
পুরস্কার দেয়া হয়না। দেয়া হয়না রাষ্ট্রীয় কোন উচ্চ পদ বা বিদেশে
আমাদের মিশনগুলোতে লোভনীয় চাকরি। এখানেই অন্যান্য শাসকদের থেকে বর্তমান সরকার আলাদা, অনন্য। আদালত অবমাননার
দায়ে বর্তমান সরকারের দুই মন্ত্রী পেলেন। এমনকি তাদের তাদের মন্ত্রীত্বও চলে যেতে পারে। সাবাশ একেই বলে আইনের
শুদ্ধতা এবং যথাযথ প্রয়োগ।

 

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)