সামগ্রিকভাবে অর্থনীতির ইতিবাচক অবস্থা

 

 

উন্নয়নের মহাসড়কে
বাংলাদেশ যে অভিযাত্রা শুরু হয়েছে, তা কাক্সিক্ষত গন্তবে না পৌঁছানো
পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে। দ্বিতীয় প্রান্তিকে সামগ্রিকভাবে সামষ্টিক অর্থনীতির উল্লেখযোগ্য
চালকসমূহের ইতিবাচক অবস্থা, বিশেষ করে রপ্তানি আয়, বৈদেশিক বিনিয়োগ, কর রাজস্ব ও বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের
উর্ধগতি এবং মূল্যস্ফীতির নিম্নমুখী প্রবণতাই এটা প্রমাণ করেছে। বর্তমানে দেশে বিরাজমান
রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা দেশের অর্থনীতির এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করছে।
বাংলাদেশের
অর্থনীতির অন্তর্গত শক্তি,
বিভিন্ন আর্থ-সামাজিক অভিঘাতের পরিপ্রেক্ষিতে সরকারের
সুচিন্তিত বাস্তমুখী পদক্ষেপ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্ব ও নির্দেশনায়
অর্থনীতির প্রত্যাশিত প্রবৃদ্ধি অর্জন করে রূপকল্প-২০২১-এর অভিষ্ঠ লক্ষ্যে পৌঁছানো সম্ভব হবে।
দ্বিতীয়
প্রান্তিকে সরকারী ব্যয় ৭৬ হাজার ৭৭৮ কোটি টাকা হতে কমে ৭৬ হাজার ৬২২ কোটি টাকায় দাঁড়িয়েছে।
বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচী ৩ দশমিক ৩ শতাংশ বেড়ে ১৭ হাজার ৫৬৭ কোটি টাকা হয়েছে। রফতানি
আয় ১৪ দশমিক ৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার হতে বেড়ে ১৬ দশমিক ১ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে। মূলধনী
যন্ত্রপাতি ও শিল্পের কাঁচামাল আমদানির ঋণপত্র খোলার পরিমাণ যথাক্রমে ২৯ ও ৩ দশমিক
৮ শতাংশ বেড়েছে। আমদানি ঋণপত্র নিষ্পত্তির প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৩ দশমিক ৬ শতাংশ।

আপনার রেটিং: None

ইহাই কী ডিজিটাল প্রবোধ!!!
শান্তি সূচকীয় অবস্থান ঘরে ঘরে, মনে মনে, জনে জনে অবনমিত। কী যায় আসে! দেশ এগুচ্ছে! উন্নয়নে উপচে পড়ছে। কিন্তু পচে যাচ্ছি আমি, তুমি ও সে...

Rate This

আপনার রেটিং: None