সীমান্ত সুরক্ষায় বিজিবিকে শক্তিশালী করতে উদ্যোগ

বিজিবির আধুনিকায়নে বদ্ধপরিকর বর্তমান সরকার। সেই ধারাবাহিকতায় বিজিবি’র আধুনিকায়নে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়েছে। চোরাচালান প্রতিরোধ ও আন্তঃসীমান্ত অপরাধ দমন, অস্ত্র, গোলাবারুদ ও মানব পাচার রোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা
পালনে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) আরও শক্তিশালী করতে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বিজিবি অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা, দুর্যোগ মোকাবেলা ও গঠনমূলক বিভিন্ন কাজে সরকারকে সহায়তা করে বিধায় তাদের উন্নতিকল্পে অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি ক্রয় করা হচ্ছে। একই সঙ্গে ডিজিটাইজেশনের মাধ্যমে আধুনিকীকরণ করা হচ্ছে পাঁচটি বিজিবি হাসপাতাল। এ প্রকল্পের মাধ্যমে বিজিবি সদস্য ও তাদের পরিবারের সদস্যদের জন্য একটি স্বাস্থ্য ডাটাবেজ তৈরি করা হবে। এতে করে কম সময়ে তাদের রোগ শনাক্তকরণ ও চিকিৎসা সুবিধা নিশ্চিত সহজতর হবে। সীমান্ত নিরাপত্তা শক্তিশালীকরণ নামে একটি প্রকল্পের মাধ্যমে আধুনিক যন্ত্রপাতি ক্রয় করা হচ্ছে। বাংলাদেশ-ভারত ও বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে অবস্থিত বিজিবির বিওপিগুলোতে এসব অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি প্রদান করা হবে। সীমান্তে পাহারা জোরদার করতে গত কয়েক বছরে বেশকিছু বিওপি নির্মাণ করা হয়েছে। সীমান্ত পাহারার পাশাপাশি অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার বেশকিছু কাজেও বিজিবির অংশগ্রহণ বেড়েছে। সময়ের সাথে চাহিদার ভিন্নতা এসেছে। তাই এই বাহিনীকে আধুনিক ও যুগোপগি করে গড়ে তোলার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।


 

আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None