টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়নের পথে বাংলাদেশ

স্থিতিশীল
প্রবৃদ্ধি নিয়ে বাংলাদেশ টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়নের পথে হাঁটছে। এই
উন্নয়নের জন্য বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ এবং নিরাপত্তা নিশ্চিত করছে সরকার। চরমপন্ত্রী সন্ত্রাসীরা বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসের জাল
বিস্তার করেছে। এর প্রভাব  বাংলাদেশেও পড়েছে। গত জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহে সন্ত্রাসীরা
বাংলাদেশে হামলা চালায়। এতে সারা বিশ্ব থমকে যায়। তবে এ সময় বাংলাদেশ সরকার শক্ত হাতে
সন্ত্রাস দমন করেছে। বাংলাদেশ সরকার এবং পুলিশের দেওয়া বাংলাদেশে থাকা বিদেশি নাগরিকদের
নিরাপত্তাব্যবস্থাও ছিল বেশ প্রশংসনীয়। তবে বর্তমানে এশিয়ার
দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশে অর্থনীতি বেশ স্থিতিশীল। ফলে এখানে বিনিয়োগের বেশ সম্ভাবনা
রয়েছে। সম্প্রতি
বিশ্বব্যাংকের  ব্যবসা-বাণিজ্যে সহায়ক দেশগুলোর ‘ডুয়িং বিজনেস’ প্রতিবেদনে বাংলাদেশ
দুই ধাপ এগিয়েছে। তার পরও ১৯০টি দেশের মধ্যে অবস্থান ১৭৬। আর দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর
মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে রয়েছে আফগানিস্তান। ‘বাংলাদেশে যুক্তরাজ্য বিদেশি বিনিয়োগকারী
হিসেবে দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ। যা মোট বিনিয়োগের ১৩ শতাংশ। ব্যাংকিং, বস্ত্র এবং খাদ্য
খাতে বাংলাদেশে বিনিয়োগ রয়েছে। যুক্তরাজ্যে এই দেশের প্রায়
পাঁচ লাখ প্রবাসী রয়েছে। তারা বাংলাদেশে বৈদেশিক মুদ্রা পাঠাতে বড় ভূমিকা রাখছে। গত
বছর তারা প্রায় ৮১ কোটি ডলার বৈদেশিক মুদ্রা পাঠিয়েছে বাংলাদেশে। বাংলাদেশের পণ্য রপ্তানিতে
যুক্তরাজ্য তৃতীয় বৃহত্তম বাজার। বাংলাদেশের পোশাক খাতের প্রায় ১০ শতাংশ রপ্তানি হয়
যুক্তরাজ্যের বাজারে। বাংলাদেশ যুক্তরাজ্যের দীর্ঘদিনের উন্নয়ন সহযোগী দেশ। দেশটির
উন্নয়ন সংস্থা ডিএফআইডি বাংলাদেশের উন্নয়নে চলতি অর্থবছরে ৩৭ প্রকল্পের জন্য এক কোটি
৬৮ লাখ ডলারের অনুমোদন দিয়েছে। এভাবে স্থিতিশীল প্রবৃদ্ধি
নিয়ে বাংলাদেশ টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়নের পথে যাচ্ছে।

ছবি: 
আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4 (টি রেটিং)

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4 (টি রেটিং)