কেন এই কিশোর অপরাধ?

আমাদের সমাজের দিকে তাকালে একটা চিত্র ভেসে উঠে আর তাহল
কিশোর অপরাধ। বাংলাদেশে কিশোর অপরাধ বাড়ছে। সমাজের দিকে তাকালে এর বাস্তব চিত্র দেখা
যায়। প্রত্যেক মানুষ শিশু থেকে বেড়ে ওঠে। কিন্তু কঠিন বাস্তবতা হলো বড় হবার আগে অপরাধী
হয়ে ওঠে অনেক কিশোর। চুরি, ছিনতাই, মাদক পাচার,
মারামারি ও ইভটিজিংসহ নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ে। স্কুলের কিশোর ছাত্রটি
যখন ইয়াবার নেশায় পড়ে তখন বুঝতে হবে আমাদের সন্তানেরা ভয়ংকর এক সময়ের মধ্য দিয়ে পার
হচ্ছে। কিশোর অপরাধের চিত্র বর্ণনা করে শেষ করা যাবে না। প্রশ্ন হচ্ছে আমাদের এই সোনার
ছেলেরা কেন অপরাধী হয়ে উঠছে? প্রথমে যে বিষয়টির প্রতি আমি নজর
দেব তা হচ্ছে সঙ্গদোষ ও পরিবারের নানা অশান্তি। নিম্নবিত্ত, মধ্যবিত্ত
ও উচ্চবিত্ত অনেক পরিবারে অনেক কিশোর অভিভাবকের নজরদারির বাইরে আছে। আমি দেখেছি একেবারে
লেখাপড়ার সুযোগ নেই এমন নিম্নবিত্ত পরিবারে খোদ মা-বাবাই মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত।
এই মা-বাবারা সন্তানের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তা করা তো দূরের কথা। নিজের সন্তানকে মাদক
ব্যবসায় নামিয়ে দেয়। এই রকম অনেক উদাহরণ আছে। শুধু তাই নয়, এইসব
পরিবারের কিশোররা মা-বাবার বহু বিবাহ, ঝগড়া-বিবাদ-অশান্তি দেখে
হতাশায় ভোগে এবং এক সময় ঘর থেকে পালিয়ে যায় এবং অপরাধী গডফাদারদের পাল্লায় পড়ে। চুরি,
ছিনতাইসহ নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ে। এমনও দেখা গেছে পরিবারের আর্থিক অসচ্ছলতার
সুযোগ নিয়ে অপরাধ জগতের গডফাদাররা এইসব পরিবারের কিশোরদের টার্গেট করে। বাংলাদেশে অনেক
ভয়ংকর খুনি সন্ত্রাসী একেবারে কিশোর বয়সে সঙ্গদোষে পড়ে এবং গডফাদারদের পাল্লায় পড়ে
অপরাধী হয়ে উঠেছে। স্কুলে অনেক কিশোর সহজে মাদক পাচ্ছে। আদব-কায়দা বড় একটি বিষয়। এখন
আদব-কায়দা তো দূরের কথা, স্কুলের কিশোর ছাত্ররা দলবেঁধে গ্রুপিং
করে স্কুলে মারামারি করছে। এমনকী খুনও করছে। পরিবার মিলে তো সমাজ। মা-বাবাকে আগে চিন্তা
করতে হবে— সন্তানের মঙ্গলের জন্য তাদের দায়িত্ব কী? মা-বাবা নিজেদের দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন হলে সমাজের সকলের দায়িত্ব এসে যায়
সন্তানদের ঠিক পথে পরিচালিত হওয়ার জন্য তাদের কী করণীয়। সন্তানরা কোথায় কি করছে, তারা
ঠিকমত স্কুল, কলেজে যাচ্ছে কিনা, তাদের প্রতিদিনের কর্মসূচী সম্পর্কে অভিভাবকের নজরদারি
থাকতে হবে। তবেই সন্তান বখাটে হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে না বা খারাপ পথে যাওয়ার সম্ভাবনা
থাকবে না।  

ছবি: 
আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None