SAVE SUNDARBANS..

যখন স্কুলে পড়তাম তখন পরিবেশ পরিচিতি বিজ্ঞান নামে একটা বিষয় পড়ানো হত।অইটার বেশিরভাগ জুড়েই ছিল পরিবেশ দূষণ আর কিভাবে তা রোধ করা যায়।ছোটবেলায় শেখানো হয়েছে পরিবেশ বাচান, গাছ আমাদের পরম বন্ধু ইত্যাদি ইত্যাদি।।
............
কিন্তু বাংলাদেশ এর সরকার সুন্দরবনে(রামপাল এ।যা সুন্দরবনের মাত্র ৪ কিমি র ও কম দূরুত্বে) কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মান করছে।কয়লা পুড়িয়ে,বেশি বেশি কার্বন ডাই অক্সাইড, কার্বন মনোক্সাইড,সাল্ফার ডাই অক্সাইড সহ ক্ষতিকর গ্যাস তৈরি করবে আর তার মারাত্তক প্রভাব পড়বে সুন্দরবনের পরিবেশ আর জীব বৈচিত্র্য এর উপর। ফলাফল হবে এপারের সব প্রাণি ওপাড়ে চলে যাবে।গাছ পালা মরে যাবে।যাক তাতে কি!!???তাতে ওই এলাকার অনেক মানুষের জীবিকানির্বাহের আর কোন উপায় থাকবে না।অনেকে মারা যাবে।দেশে এমনিতেই বেকার সমস্যা। যেখানে দেশের এক বড় অংশ সুন্দরবন এর উপর নির্ভরশীল সেখানে এই ভাবে তাদের পেটে লাথি মারা কতটা যুক্তি সংগত?????
..........
সুন্দরবন বাঁচানো র জন্য আন্তর্জাতিক কোন পরিবেশ বাদী সংস্থা কে এগিয়ে আসতে দেখলাম না।কিন্তু দেশে যখন একটা মশাও মারা যায় তখন এনাদের মত সংস্থা গুলা চিল্লাপাল্লা শুরু করে দেয়।এরা আসলে দূমুখো সাপ।কোনদিন ই এরা আমাদের দেশের ভাল চায় নি আর ভবিষ্যৎ এও ভাববে না।
..............
এমনিতেই ভারত নানাভাবে আমাদের শাষন আর শোষন করছে।ফারাক্কা বা তিস্তার পানি না দেওয়া,প্রায় বিনামূল্যে ট্রানজিট আর এ দেশের সংস্কৃতি আর সমাজকে ধ্বংস ত করা ইতোমধ্যে এই শুরু করে দিয়েছে তারা।রামপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের মাধ্যমে এই দেশের পরিবেশ এর উপর এবার আঘাত হানতে চলেছে তারা।ওরা নিউক দিয়ে নয় নিজেদের বুদ্ধি দিয়েই এই দেশ কব্জা করার চক্রান্তে লিপ্ত।তাই এখনো সময় আছে চলুন ওদের ব্যাপারে সাবধান হই।
.............
আর রামপালের বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মান বন্ধ করা হোক।দেশের পরিবেশ আর আমাদের গর্ব সুন্দরবন রক্ষা পাক।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)