ঘাতকদের বাঁচাতে সাজানো হয়েছিল জজ মিয়া নাটক

v\:* {behavior:url(#default#VML);}
o\:* {behavior:url(#default#VML);}
w\:* {behavior:url(#default#VML);}
.shape {behavior:url(#default#VML);}

আজ সেই
কলঙ্কময় দিন ভয়াল ২১ শে আগস্ট। এই দিনেই ৭৫ এর ঘাতকদের সহযোগীরা জাতির জনকের বড়
কন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগকে নিশ্চিহ্ন করার মিশনে নেমেছিল।
আল্লাহ সহায় থাকায় তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
বেঁচে গেলেও হারিয়েছেন ২৪ জন নেতাকর্মীকে। আজকের এই দিনে বিএনপি-জামায়াত জোট
সরকারের আমলে বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনাসহ পুরো আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বেশূন্য করতে
পরিচালিত হয় এই ভয়াল গ্রেনেড হামলা। ঘটনাটি দেখতে দেখতে ১০টি বছর পেরিয়ে গেছে
ইতোমধ্যেই। কিন্তু ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার  ভয়াল
স্মৃতি এখনো তাড়িত করে আওয়ামী লীগের শত শত নেতাকর্মীকে। সেই ভয়াবহ হামলায় যারা আহত
হয়েছে তাঁরা জীবিত থেকেও যেন মৃত। ৭৫ এর ১৫ আগস্ট জাতির জনককে হত্যার মাধ্যমে
ষড়যন্ত্রকারীরা যে রক্ত গঙ্গা বয়ে দেওয়ার রাজনীতি শুরু করেছিল তারই ধারাবাহিকতায়
২১ আগস্টের ভয়াবহ এ গ্রেনেড হামলা।৭৫ এর ১৫ আগস্টের ঘাতকদের বাঁচাতে যেমন
ইনডেমনিটি হয়েছিল একই কায়দায় ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট ঘটনার জন্য সাজানো হয়েছিল জজ
মিয়া নাটক। ষড়যন্ত্রকারীরা এখনো থেমে নেই। তারা দেশের জঙ্গীবাদকে উস্কে দিয়ে
বাংলাদেশকে একটি ব্যর্থ রাষ্ট্র বানানোর ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছে। দেশের অগ্রগতিকে
যারা মানতে চায় না।তারাই গণমানুষের নেত্রীকে হত্যা করতে নানামুখী ষড়যন্ত্র অব্যাহত
রেখেছে।২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্য
বঙ্গবন্ধু এ্যাভিনিউর দলীয় কার্যালয়ের সামনে আওয়ামী লীগের সমাবেশে ভয়াবহ এই
গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। এতে নারী নেত্রী আইভি রহমানসহ ২৪ জন আওয়ামী লীগ
নেতাকর্মী নিহত এবং পাঁচ শতাধিকেরও বেশি নেতাকর্মী আহত হন। এই নারকীয় বীভৎস হামলার
ঘটনার ১০ বছর পেরিয়ে যাচ্ছে আজ।আজকের এই দিনের বোমা হামলায় বিশ্ব বিবেককে নাড়া
দিলেও একটুও অবস্থান পরিবর্তন করেনি তৎকালীন ৪ দলীয় জোট সরকার। স্বয়ং রাষ্ট্রীয়যন্ত্রকে
তারা ব্যবহার করে ঘটনাকে ভিন্ন পথে নেওয়ার চেষ্টায় মত্ত ছিলেন তৎকালীন সরকার। হামলাকারীদের
রক্ষা করতে সাজানো হয়েছিল জজ মিয়া নাটক। তাকে তৎকালীন সরকার মাসিক বেতনের লোভ
দেখিয়ে মামলার সাথে জাড়িত বলে স্বীকারোক্তি দিতে প্রলুব্ধ করেছিলেন। পরবর্তীতে
মিডিয়ার বদৌলতে বেরিয়ে আসে সেই জজ মিয়ার নাটক। পরবর্তীতে জজ মিয়ার সবকিছু অপকটে
স্বীকার করেছেন সাংবাদিকদের সামনে। বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন তার মাসিক
বেতনের টাকা বাড়িতে দিয়ে আসতেন  বলেও
স্বীকার করেছেন।যারা বঙ্গবন্ধুর খুনীদের বাচাতে চেষ্টা করেছিল ওই একই চক্র ২০০৪
সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার সাথে জড়িত। তারা ৭৫ এর কায়দায় ২১ আগস্টের হামলার
বিচার বন্ধ করতে সাজিয়েছিল জজ মিয়া নাটক। হামলাকারী মুফতি হান্নানসহ হাওয়া ভবন সংশ্লিষ্টদের
বাঁচাতে তৎকালীন সরকার বিগত সময়ের আইন ইনডেমনিটি অধ্যাদেশের মত কালো আইন না করলেও
জজ মিয়া নাটকের মাধ্যমে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছে হামলাকারীদের বাঁচাতে। পরবর্তীতে ’৯৬ সালে যেভাবে ইনডেমনিটি রহিতকরণের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার
প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে ঠিক তেমনি বিগত ৪ দলীয় জোট সরকারের বিদায়ের পরই ২১ আগস্ট
গ্রেনেড হামলার মূল রহস্য উন্মোচন হয়ে যায়। বর্তমানে মামলাটি বিচারাধীন আছে।
বর্তমান সরকার এ সমস্ত ঘটনার মুখোশ উম্মোচন করে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করেছে।

Normal
0
false

false
false
false

EN-US
X-NONE
BN

/* Style Definitions */
table.MsoNormalTable
{mso-style-name:"Table Normal";
mso-tstyle-rowband-size:0;
mso-tstyle-colband-size:0;
mso-style-noshow:yes;
mso-style-priority:99;
mso-style-qformat:yes;
mso-style-parent:"";
mso-padding-alt:0in 5.4pt 0in 5.4pt;
mso-para-margin-top:0in;
mso-para-margin-right:0in;
mso-para-margin-bottom:10.0pt;
mso-para-margin-left:0in;
line-height:115%;
mso-pagination:widow-orphan;
font-size:11.0pt;
mso-bidi-font-size:14.0pt;
font-family:"Calibri","sans-serif";
mso-ascii-font-family:Calibri;
mso-ascii-theme-font:minor-latin;
mso-hansi-font-family:Calibri;
mso-hansi-theme-font:minor-latin;
mso-bidi-font-family:Vrinda;
mso-bidi-theme-font:minor-bidi;}

ছবি: 
আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None