দিনদিন গণবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে বিএনপি

 

 

শুধু দেশ পরিচালনায় নয়, যে কোন কাজ করতে গেলে কোনো ভুল থাকবে না এরকম
নিশ্চয়তা কেউই দিতে পারে না, কাজের মধ্য দিয়ে উঠে আসে নানা ভুল-ত্রুটি আর সেই
ভুলগুলোকে শুধরে সঠিক পদক্ষেপ নেয়াতেই দক্ষতার পরিচয়। বর্তমান গণতান্ত্রিক সরকারের
আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে রোলমডেলের স্বীকৃতি পাওয়া চলমান অগ্রযাত্রাতে কোথাও কোনো
ত্রুটি ছিল না বা নেই তা হয়তো বলা যাবে না। কিন্তু অতীত অভিজ্ঞতা থেকে নিশ্চিতভাবে
বলতে পারি দেশের স্বাধীনতা আর মুক্তিযুদ্ধের অনির্বাণ চেতনায় অবিশ্বাসী অতীতে রাষ্ট্রক্ষমতায়
থাকা একটি চিহ্নিত অপগোষ্ঠির মতো তাদের জঙ্গিপ্রেম, রাজাকারপ্রেম আছে – এ অপবাদ কেউ দিতে পারবে না। দেশের গণমানুষও এখন
জঙ্গি-রাজাকারদের বিরুদ্ধে একাট্টা। তাই জনমতের বিরুদ্ধে গিয়ে, স্রোতের বিপরীতে
দাঁড়িয়ে বেগম খালেদা জিয়া রাজাকার ও জঙ্গিদের জন্য মায়াকান্না অব্যাহত রেখেছে বলেই
বিএনপি আজ জনবিচ্ছিন্ন দল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত
হয়েছে। ফলশ্রুতিতে দেশের সাধারণ মানুষও দলটির উপর কোন
আস্থা রাখতে পারছে না, সাধারণ মানুষকে দলে ভিড়াতে কোন আস্থাশীল কার্যক্রমও তারা তুলে ধরতে পারছে না। গত এক দশকে জাতীয় জীবনের কোনো গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুতেই
খালেদা জিয়ার বিএনপি উপযুক্ত গণমুখী ভূমিকা পালনে চরম ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে।
বিএনপির সবচেয়ে বড় দুর্বলতা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও আদর্শ থেকে বিচ্যুতি। বাংলাদেশের মানুষ এমন দলের
প্রতি কখনোই
সমর্থন যোগাবে না। ত্রিশ
লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে স্বাধীনতা অর্জন করার দেশ এই বাংলাদেশ। এই দেশের প্রতিটি
মানুষের মনে লালিত রয়েছে মুক্তিযুদ্ধের অনির্বাণ চেতনা আর তাই আমাদের দেশের
প্রত্যেক রাজনৈতিক দলকে হতে হবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় প্রতি আস্থাবান, অসাম্প্রদায়িক, ধর্মনিরপেক্ষ এবং প্রকৃত অর্থেই গণতন্ত্র ও আইনের শাসনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। বিএনপি যে তা নয় সেটা
দলটির নেতানেত্রীদের কথায় ও কাজে ইতোমধ্যেই প্রমাণিত ও প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আর
এ কারনেই দলটি বর্তমানে গণবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে এবং হারিয়ে ফেলছে সাধারণ মানুষের আস্থা।

 


আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None