‘সততা পয়েন্ট’ - দেশের প্রথম সততা অভ্যাসের বাক্স

Evil

 

প্রচলিত নিয়মে ভূমি অফিসে
সেবাপ্রত্যাশীদের বিভিন্ন সেবার জন্য আবেদন করার সময় প্রয়োজনীয় কোর্ট ফি পরিশোধ
করতে হয়। যারা কোর্ট ফি সঙ্গে করে নিয়ে
আসেন না তাদের পোহাতে হয় নানা দুর্ভোগ। কিন্তু এ অবস্থা এখন অনেকটাই পাল্টে গেছে। এই পাল্টে যাওয়াটা সম্ভব হয়েছে সততা
পয়েন্টের মাধ্যমে। ‘নিজ দায়িত্বে ২০ টাকা জমা দিয়ে একটি কোর্ট ফি সংগ্রহ করুন। আপনার সততা আমাদের উৎসাহিত করবে’- কথাগুলো লেখা রয়েছে
উপজেলা ভূমি অফিসের বারান্দায়। যশোরের অভয়নগর উপজেলা ভূমি অফিসে প্রবেশ করলেই নতুন এই উদ্যোগটি
চোখে পড়বে। কিন্তু এর সঙ্গে সততার সম্পর্ক
কী? আর
নাম-ই বা সততা পয়েন্ট কেন? কৌতূহল মিটবে
একটু সামনে এগুলেই। সততা পয়েন্টে রাখা দুটো বাক্স। একটিতে উন্মুক্তভাবে কোর্ট ফি রাখা। অপরটি মূল্য পরিশোধের জন্য। জনগণ নিজে থেকেই কোর্ট ফি নিয়ে পাশের
বাক্সে মূল্য পরিশোধ করবেন। থাকবে না কোনও নজরদারি। ফলে এটাকে সততা পয়েন্ট হিসেবে আখ্যায়িত
করা হয়েছে। সততা পয়েন্ট
নামের এই অভিনব উদ্যোগের যাত্রা শুরু হয়েছে চলতি বছরের ১১ এপ্রিল থেকে। সেবাপ্রত্যাশীরা এ পর্যন্ত ৪২২টি কোর্ট
ফি সততা পয়েন্টের মাধ্যমে নিয়েছেন। তবে, যেকোনও কারণেই হোক, ঘাটতি আছে মাত্র
১৫ টাকা। এমন আয়োজনের
দুটো উদ্দেশ্য। প্রথমত, যারা সেবা নিতে আসেন
তাদের জন্য বিষয়টি সহজ হবে। ব্যতিক্রমী এই আয়োজনের দ্বিতীয় উদ্দেশ্য, সততার অভ্যাস শুধু
সংশ্লিষ্ট খাতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে সীমাবদ্ধ থাকবে কেন?
সেবাপ্রত্যাশীদের মধ্যেও যাতে শুদ্ধাচারের অনুশীলন ছড়িয়ে দেয়া যায়,
কারণ সেটাও যে থাকা দরকার।

 

 


 

ছবি: 
আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None