"দুনিয়াকে তুমি যা দাও, দুনিয়া তা দ্বিগুণ ভাবে তোমাকে ফিরিয়ে দেবে।"

বেশ কয়েকটা ব্লগ নিয়মিত ফলো করি। সামহোয়ার, সচলায়তন। আমি একটু আর্শ্চয হচ্ছি, এই সব ব্লগের সুশীল, এটিম,বিটিম এই সব ব্লগাররা কই? আমারদেশ, চ্যানেলওয়ান, ফেসবুক ব্যান নিয়া কি তাদের কোন চিন্তা আছে? জানতে পারলে ভাল লাগত।

গুরু নানক একটা কথা বলেছিলেন, খুব খাটি কথা। "দুনিয়াকে তুমি যা দাও, দুনিয়া তা দ্বিগুণ ভাবে তোমাকে ফিরিয়ে দেবে।" বিএনপি যা দিয়েছিল, তা সব দ্বিগুণ ভাবে ইতোমধ্যই ফিরে পেয়েছে। আওয়ামী লীগ যখন ফিরে পাবে, তখন তারা সেটা সহ্য করতে পারবে তো?

একটা ছোট্ট জোকস মনে পড়লো। কিঞ্চিত অশ্লীল। একবার বিমান র্দুঘটনায় বাংলাদেশের তিন সাবেক প্রেসিডেন্ট আফ্রিকার বনে তশরীফ আনলেন। জান বাচানোর র্শত হিসেবে জঙলী র্সদার তাদের বন থেকে অদ্ভুত জিনিস নিয়ে আসার হুকুম দিলেন। প্রেসিডেন্ট "র" সুপারি নিয়ে ফিরে এলেন, র্সদারের পছন্দ না হওয়াতে সেটি তার গুহ্যপ্রদেশে প্রবেশ করানো হলো। প্রেসিডেন্ট "র২" পেয়ারা নিয়ে ফিরলেন, এবং তারটিও একই ট্রিটমেন্ট পেল। যখন তাকে ট্রিট করা হচ্ছিল, তখন তিনি হাসছিলেন, "র" সেটি দেখে থ বনে গেলেন। জিজ্ঞেস করার লোভ সামলাতে পারলেন না। "র২" হাসতে হাসতে জানালেন প্রেসিডেন্ট "এ" একটা কাঠাল নিয়ে ফিরে আসছেন।

তথাকথিক এইসব সুশীল ব্লগারদের প্রতিক্রিয়া কেন জানতে ইচ্ছে করছে জানেন? কারন তারা যে সজারু হাতে খুশি মনে ফিরে আসছেন !!

পুনশ্চঃ বির্সগে ছবি আপলোড করার কায়দা কানুন নিয়া একটা টিপসমূলক পোস্ট দেয়ার ইচ্ছে রাখি, কিন্তু আলস্য .....

ছবি: 
আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)

এটিম মানে আঁতেল টিমের কথা বলছেন? একটা সময় ছিল যখন ওরা আওয়ামী বিরোধীদের গণহারের রাজাকার আর ছাগু উপাধি দিতো। কিন্তু এখন আওয়ামী লীগে রাজাকার আর স্বাধীনতা বিরোধীদের সংখ্যা এত বেশী যে এ নিয়ে কথা বলার মত অবস্থা তাদের নাই। আরেকটা বিষয়, সারাদেশে ছাগুলীগের সবাই আখের গুছানোতে ব্যস্ত। তাই এটিমও  ব্লগে সময় না দিয়ে টেন্ডারবাজি ও চাঁদাবাজিতে ব্যস্ত  রয়েছে  হয়তো।

ধন্যবাদ, গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিলেন।

প্রশ্ন  হলো, কখন তারা বুঝতে পারবে যে তারা একটা সজারু নিয়ে ফিরে আসছেন যেটা জনগন পছন্দ করছে না?

এলাকার বখাটে ছেলেগুলোকে যেমন এক কথায় চোখ বন্ধ করে আওয়ামীলীগ বলা যায়, তেমনি ভার্চুয়াল জগতে র্ধম ও বিদেশের দালালীর কথা বলতে গেলে যারা তেড়ে আসে, তাদেরকেও চোখ বন্ধ করে 'এটীম' বলা যায়।

এভাবে সরলীকরণ না করাই উত্তম। কারন এলাকার বখাটে ছেলের দল যখন যে ক্ষমতায় থাকে তাদের শেল্টার নেয়াকেই পছন্দ করে। আর অনলাইনে এটীমের সদস্য সংখ্যা তত বেশি নয় যতটা এদের মনে হয়। বেশিরভাগ সময় আমজনতা হুজুগে যোগ দেয়।

পাবলিক অপিনিয়ন হলো সেই অপিনিয়ন যার পাবলিকের অপিনিয়ন Form করে। অধিকাংশ সময়ই পাবলিক ফলো করে সমাজের শক্তিশালী স্রোতকে।

এই ব্লগটা কারা খুলেছে??

বিসর্গে স্বাগতম।

সূরুত হাল দর্শনে এটা বলতে পারি যে, অন্তত "এটীম" খোলেনি। Eye-wink

বিডিআইডলকে স্বাগতম।

বিডিআইডলের লেখা চাই।

সহমত।

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)