সৌদিতে বাংলাদেশিসহ বিদেশি শ্রমিকদের দক্ষতা যাচাইয়ের উদ্যোগ


সৌদিআরবের টেকনিক্যাল অ্যান্ড ভোকেশনাল ট্রেনিং করপোরেশন (টিভিটিসি)
দেশটিতে কর্মরত বাংলাদেশিসহ বিদেশি শ্রমিকদের পেশাগত দক্ষতা যাচাইয়ের জন্য
নতুন কর্মসূচি ও নীতিমালা ঘোষণা করেছে।

মধ্যপ্রাচ্যের প্রখ্যাত সংবাদমাধ্যম আরব নিউজ জানায়, সৌদি আরবের শ্রম
মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ সংস্থাটি সেদেশে কর্মরত ৬০ লাখেরও বেশি প্রবাসী
শ্রমিকের পেশাগত দক্ষতা যাচাইয়ের জন্য পরীক্ষা নেওয়ার সব প্রস্তুতি সম্পন্ন
করেছে।

টিভিটিসি’র পেশাগত দক্ষতা পরীক্ষা বিভাগের পরিচালক সাদ আল সায়েব বলেন,
আগামী ২০১৩ সালের মার্চের মধ্যে সৌদি আরবের পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশীপ
বা পিপিপির অধীনে কর্মসূচিটি বাস্তবায়িত হবে।

আরব নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে আল সায়েব বলেন, সৌদি আরবে বিভিন্ন পেশায়
কর্মরত বিদেশি শ্রমিকদের পেশাগত দক্ষতা ও যোগ্যতা বৃদ্ধির লক্ষেই তারা এ
কর্মসূচি গ্রহণ করেছেন। এর পাশাপাশি সৌদি আরবের বিদেশি শ্রমিক নিয়োগের
ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা এবং সবার জন্য সমান সুযোগ বজায় রাখাও এই কর্মসূচির
অন্যতম লক্ষ। এই কর্মসুচি বাস্তবায়নের মাধ্যমে সৌদি আরবে শ্রমিক নিয়োগের
ক্ষেত্রে কিছু কিছু রিক্রুটিং এজেন্সির অসততা ও দুর্নীতি বন্ধ হবে বলেও
তিনি উল্ল্যেখ করেন।

সৌদি আরবের শ্রম মন্ত্রণালয়ের অধীনে প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হবে। সৌদি
আরবের ক্যাবিনেট মন্ত্রী সভায় সম্প্রতি এই কর্মসূচি অনুমোদিত হয়েছে বলে
জানিয়েছেন আল সায়েব। এছাড়া সৌদি আরবের শ্রমমন্ত্রী আদেল ফাকেহ কর্মসুচিটি
প্রত্যক্ষভাবে তত্বাবধান করছেন বলেও জানান তিনি। উল্লেখ্য আদেল ফাকেহ
টিভিটিসি বোর্ডের চেয়ারম্যান।

কর্মসূচি সঠিকভাবে প্রণয়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন দেশ থেকে অনুরূপ
প্রকল্পের ব্যাপারে বাস্তব অভিজ্ঞতা সম্পর্কিত তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে বলে
উল্লেখ করেন আল সায়েব। এই দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়া,
নিউজিল্যান্ড, কানাডা, জাপান, চীন, দক্ষিণ কোরিয়া ও জর্দান।

এছাড়া বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা যেমন ইন্টারন্যাশনাল কোড কাউন্সিল,
আমেরিকান গ্লাস অ্যাসোসিয়েশন প্রভৃতি থেকেও তারা প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ
করেছেন বলেও জানান তিনি।

সৌদি আরবের শীর্ষস্থানীয় কিছু সরকারি-বেসরকারি সংস্থা যেমন সৌদি কমিশন
অব হেলথ স্পেশালিস্ট, সৌদি কাউন্সিল অব ইঞ্জিনিয়ার, ন্যাশনাল সেন্টার ফর
মিজারমেন্ট অ্যান্ড ইভালুয়েশন, প্রিন্স সুলতান এভিয়েশন একাডেমি, দাল্লাহ আল
বারাকা গ্রুপ এবং সৌদি ইলেক্ট্রিসিটি কোম্পানি থেকেও তারা কর্মসূচি
প্রণয়নের লক্ষে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা গ্রহণ করেছে।

তবে সৌদি আরবে কর্মরত ১৭০টি ভিন্ন ভিন্ন জাতীয়তার প্রায় ৬০ লাখ
শ্রমিককে এই কর্মসূচির আওতায় এনে তাদের দক্ষতা পরীক্ষা করা অত্যন্ত কঠিন
কাজ বলে উল্ল্যেখ করেন তিনি। এই শ্রমিকদের মধ্যে অনেকেই লিখতে পড়তে জানেন
না উল্ল্যেখ করে তিনি বলেন, এদের মধ্যে বেশির ভাগ বিদেশি শ্রমিকই তাদের
মাতৃভাষা ব্যতীত অন্য কোন ভাষা বুঝতে বা বলতে পারেন না।

কর্মসূচিটির কার্যক্রম এবং প্রক্রিয়া সম্পূর্নভাবে কম্পিউটার বেসড
ইনফরমেশন বা সিবিআই এর ওপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে বলে জানান তিনি।
পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য প্রত্যেক প্রবাসী শ্রমিককে টিভিটিসির ওয়েবসাইট (www.tvtc.gov.sa ) প্রবেশ করে প্রথমে নিজের নাম রেজিস্ট্রেশন করাতে হবে। এ সময় তাদের ছবি ও ফিংগার প্রিন্ট রেজিস্ট্রেশনে সংযুক্ত করা বাধ্যতামূলক।

রেজিস্ট্রি সম্পন্ন হওয়া শ্রমিকদেরকে পরবর্তীতে পরীক্ষার সময় ও স্থান
জানানো হবে। পরীক্ষার সময় শ্রমিকদেরকে তাদের নিজ নিজ ভাষায় একটি প্রশ্নপত্র
দেওয়া হবে। যারা লিখতে-পড়তে জানেন না তাদেরকে প্রশ্নের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে
ভিডিও ক্লিপ ও ছবি সরবরাহ করা হবে বলেও জানান তিনি।

ইতিমধ্যেই টিসিটিবি বিভিন্ন ভাষায় প্রয়োজনীয় প্রশ্ন ও উত্তরপত্র তৈরি
করে রেখেছে বলে জানিয়েছেন আল সায়েব। পরীক্ষার ফলাফল পরবর্তীতে (কম্পিউটার
প্রিন্ট আউটের মাধ্যমে) প্রকাশ করা হবে।

পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রত্যেক শ্রমিককে একটি পেশাগত দক্ষতা সনদপত্র
ইস্যু করা হবে বলে জানান তিনি। সৌদি আরবে ওয়ার্ক পারমিট পাওয়ার ক্ষেত্রে
অবশ্যই প্রত্যেক শ্রমিকের কাছে এই সনদ থাকতে হবে বলেও জানান তিনি।

টিভিটিসির হিসাব অনুযায়ী সৌদি আরবে ৩ হাজার প্রফেশনাল ট্রেড রয়েছে।
এগুলোকে ২৭০ টি ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করা হয়। তবে প্রাথমিকভাবে সৌদি আরবের
নিত্যদিনের জীবনে সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলে এমন ১৫টি প্রধান ট্রেডের জন্য এই
পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। এগুলোর মধ্যে রয়েছে
ইলেক্ট্রিশিয়ান, প্লাম্বার, অটোমোবাইল মেকানিক, ফ্রিজ এবং এ/সি টেকনিশিয়ান,
কার্পেন্টার, বারবার ও বুচার।

ভবিষ্যতে এই পদ্ধতিকে এমনভাবে প্রয়োগ করা হবে যেন সৌদি আরবে পৌঁছার
আগেই প্রত্যেক শ্রমিকের পেশাগত দক্ষতা যাচাইয়ের পরীক্ষা সম্পন্ন করা সম্ভব
হয়। ভবিষ্যতে সৌদি আরবে কাজ করতে হলে ভিসা পাওয়ার জন্য এই পরীক্ষায়
উত্তীর্ণ হওয়া আবশ্যিক বলে গণ্য করা হবে বলেও জানান তিনি।

এই প্রকল্পের পরীক্ষাকালীন পর্ব আগামী ১০ মাসের মধ্যেই শেষ হবে বলে
জানান আল সায়েব। তবে প্রকল্পটি পরিপূর্ণভাবে আগামী মার্চ ২০১৩ এর মধ্যে
প্রয়োগের জন্য উপযুক্ত হবে বলে জানান তিনি। আল সায়েব বলেন, সৌদি আরবে
বিভিন্ন ট্রেডে কাজ করা বিদেশি শ্রমিকদের তাদের পেশাগত দক্ষতা প্রমাণের
জন্য আগামী ১৩’মার্চের মধ্যে পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে।

এ ব্যাপারে রিয়াদ থেকে বাংলানিউজের কন্ট্রিবিউটিং রিপোর্টার আল আমিন
জানান, সৌদি প্রবাসী বাংলাদেশিরা এ নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন। তারা আশা
করছেন, টিভিটিসি প্রকল্পকে সামনে রেখে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে বাংলাদেশ
সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, শ্রম ও প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় তথা সৌদি
আরবে বাংলাদেশি দূতাবাসের দ্রুত তৎপর হবে। অন্যথায় সামনে বাংলাদেশি
শ্রমিকদের নানান অযাচিত সমস্যার মুখে পড়তে হবে যা রেমিটেন্স প্রবাহে
নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।
বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 3.5 (2টি রেটিং)

সালাম

আপনাকে মোবারকবাদ এ তথ্য পোষ্ট করার জন্য, মহান আল্লাহ তা'য়ালা প্রবাসীদের প্রতি অনুগ্রহ করুন। আর তাদের সমস্যার সমাধান করুন।

আমিন! আমিন! আমিন!

-

▬▬▬▬▬▬▬▬ஜ۩۞۩ஜ▬▬▬▬▬▬▬▬
                         স্বপ্নের বাঁধন                      
▬▬▬▬▬▬▬▬ஜ۩۞۩ஜ▬▬▬▬▬▬▬▬

আশংকার খবর।

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 3.5 (2টি রেটিং)