ইমাম মাহদীর আবির্ভাবের মাধ্যমে সত্য প্রতিষ্ঠিত হবে


পবিত্র কুরআনের দৃষ্টিতে, هُوَ الَّذي أَرْسَلَ رَسُولَهُ بِالْهُدى وَدينِ الْحَقِّ لِيُظْهِرَهُ عَلَى الدِّينِ كُلِّهِ وَلَوْ كَرِهَ الْمُشْرِكُونَ দীন ইসলাম সকল দীনের উপর প্রতিষ্ঠিত হবে যদিও তাতে মুশরিকরা অসন্তুষ্ট হোক না কেন।

বার্তা সংস্থা ইকনা'র রিপোর্ট: মহানবীর রেখে যাওয়া ইসলাম ধর্ম যে পৃথিবীর সব থেকে বড় সভ্যতা তা আর নতুন করে বলার কিছু নেই। ইসলামী সভ্যতার থেকে বড় সভ্যতা আর খুঁজে পাওয়া যাবে না। কেননা ইসলামই পারে মানুষকে সঠিক পথের সন্ধান দিতে।

আল্লাহর কালামের সত্যতার সাক্ষী মুসলমানদের গৌরবময় অতীত। আরবের নিরক্ষর মরুচারীরা আল্লাহর কালাম ধারণ করে সত্যি তারা পৃথিবীর শাসক হয়েছিলেন। পৃথিবীর মানুষকে তারা শিক্ষা সভ্যতা ও জ্ঞান-বিজ্ঞানের পাঠদান করেছিলেন।

আল্লাহর অসামান্য মহিমা ও কর্তৃত্ব এবং ক্ষমতা প্রতিষ্ঠা করেছিলেন দুনিয়ায়। প্রকৃতপক্ষে আধুনিক বিশ্বের শিক্ষা সভ্যতা ও জ্ঞান-বিজ্ঞানের সকল বিভাগেই তারা রেখে গেছেন অপরিসীম অবদান। এ ইতিহাস কারো অস্বীকার করার উপায় নেই।

শিক্ষা ও জ্ঞান-বিজ্ঞানের উন্নয়নে এবং জ্ঞান গবেষণার নতুন নতুন অভিধার তালাশে মুসলিম বিজ্ঞানী ও মনীষীরা পৃথিবীর সামনে জ্বালালেন এমনি দীপ্ত শিখা যা সেই নবম-দশম শতাব্দী থেকে অষ্ট-ঊনবিংশ শতাব্দী পর্যন্ত দীর্ঘকাল পরিক্রমায় যুক্ত করলো এক অনন্য মাইলফলক। আধুনিক বিজ্ঞান ও আবিষ্কার যুগের পথিকৃৎ হয়ে রইলেন সেই যুগ প্রবর্তক বিজ্ঞানীগণ। আধুনিক বিজ্ঞান শুধু চমকপ্রদ আবিষ্কারের জন্যই নয়, তার নিজের অস্তিত্বের জন্যই মুসলমানদের কাছে ঋণী।

ইমাম মাহদী আবির্ভূত হয়ে আবারও ইসলামী সভ্যতাকে উন্নতির চরম শিখরে পৌঁছে দিবেন এবং ইসলাম ও মুসলিম জাতী হবে সব থেকে শ্রেষ্ঠ ও উন্নত জাতী।

iqna

 

আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None