মুসলিম রোগীকে ‘কৃষ্ণ কৃষ্ণ’ বলতে বাধ্য করলো ডাক্তার

অস্ত্রোপচারের আগে বেডে শুয়ে কৃষ্ণনাম নিতে হবে, না হলে অপারেশন
করবেন না চিকিৎসক। আর তাই প্রাণের ভয়ে শেষপর্যন্ত শ্রীকৃষ্ণের নাম নিতে
বাধ্য হলেন রোগী।

 
বার্তা সংস্থা ইকনা: শুনতে অবাক লাগলেও এমনই ঘটেছে ভারতের কর্নাটকের চিক্কাবাল্লাপুর জেলার একটি সরকারি হাসপাতালে।

অস্ত্রোপচারের আগে এক মুসলিম নারীকে দিয়ে জোর করে কৃষ্ণনাম জপানোর
অভিযোগ উঠেছে এক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে। ইতোমধ্যে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন
ওই নারী। সোমবার এ সংক্রান্ত একটি খবর প্রকাশ করেছে দেশটির সংবাদ প্রতিদিন
পত্রিকা।

১২ ডিসেম্বর ওই হাসপাতালে বন্ধ্যাকরণ প্রকল্পে অস্ত্রোপচার করাতে গিয়েছিলেন নাসিমা বানু। সেখানেই তার সঙ্গে এই ঘটনা ঘটে।

তিনি বলেন, আমি বেঙ্গালুরুতে থাকি। কিন্তু চিন্তামনিতে আমার আত্মীয়রা থাকে বলেই আমি সেখানে অস্ত্রোপচারের জন্য গিয়েছিলাম।

ঘটনার দিন সকাল ৯টায় আমি হাসপাতালে যাই। এরপর সব পরীক্ষার পর জানা যায় বেলা ১টায় আমার অস্ত্রোপচার হবে।

কিন্তু যে ডাক্তার সবার অপারেশন করছিলেন, তিনি প্রত্যেককে কৃষ্ণনাম জপ করতে বলছিলেন। ওখানে একমাত্র মুসলিম নারী আমি ছিলাম।

কিন্তু তিনি আমাকে বলেন, কৃষ্ণ কৃষ্ণ না বললে তিনি আমার অস্ত্রোপচার
করবেন না। আমি ভয় পেয়ে তার কথামতো কৃষ্ণনাম জপ করি। এর পরই তিনি আমার
অস্ত্রোপচার করেন।

বেঙ্গালুরুর নন্দিনী লে-আউটের বাসিন্দা নাসিমার বোন চিন্তামনি গ্রামে
থাকেন। সেখানকারই সরকারি হাসপাতালের পক্ষ থেকে বন্ধাকরণ প্রকল্পের আয়োজন
করা হয়েছিল।

তাই দু’মেয়ের মা নাসিমা সেখানেই অপারেশন করানোর ব্যাপারে মনস্থির করেন।
কিন্তু সেখানে যে তার সঙ্গে এ ঘটনা ঘটবে- সেটা ঘুণাক্ষরেও ভাবতে পারেননি।

পরে তিনি চিন্তামনি থানায় এ অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। ইতোমধ্যে গোটা
ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত ডাক্তারের কাছ থেকে অবশ্য কোনো
প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।
iqna

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 3 (2টি রেটিং)

বন্ধ্যাকরণই যখন করতে গেলেন, তখন আর নতুন করে ধর্ম হারানোর কী বাকি থাকে!

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 3 (2টি রেটিং)