যুদ্ধাপরাধের বিচারে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য

বাংলাদেশে যুদ্ধাপরাধের বিচারে আন্তর্জাতিক মান বজায় এবং স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও নিরপেক্ষতার ওপর জোর দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য।

বিচারপ্রক্রিয়ার সঙ্গে রাজনীতিকে না জড়াতেও দেশদুটির পক্ষ থেকে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

আজ সোমবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের বিচার কাজ শুরু হওয়ার পর ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস ও ব্রিটিশ হাই কমিশন কর্তৃপক্ষ এ মনোভাবের কথা জানিয়েছে।

ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস বলেছে, যুদ্ধাপরাধের বিচারপ্রক্রিয়ায় বাংলাদেশ সরকারের স্বচ্ছতার বিষয়টি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।
যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে গ্রেপ্তারকৃদের সঙ্গে ভালো আচরণ করার পাশাপাশি তাদের আত্নপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দিতে বলা হয়েছে মার্কিন দূতাবাসের পক্ষ থেকে।

এতে আরো মন্তব্য করা হয় যে, বিচারপ্রক্রিয়াকে কোনোভাবেই রাজনীতির সঙ্গে জড়ানো উচিত হবে না। পাশাপাশি বিচারপ্রক্রিয়া যাতে আন্তর্জাতিক মান অনুসরণ করে এবং স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ হয়, সেটাও দেখতে হবে।

অন্যদিকে, যুক্তরাজ্য তাদের প্রতিক্রিয়ায় বলেছে, যুদ্ধাপরাধের বিচারে বাংলাদেশ সরকার এবং জনগণের মনোভাব সম্পর্কে তারা(যুক্তরাজ্য) অবগত রয়েছে।

বিচার প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা ও নিরপেক্ষতা নিশ্চিত করার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক মান অনুসারে গ্রেপ্তারকৃতদের আইনি সুরক্ষা নিশ্চিত করার আহবান জানানো হয় যুক্তরাজ্যের পক্ষ থেকে।

বিস্তারিত
প্রথম আলো : Click This Link

আরটিএনএন : Click This Link

 

ছবি: 
আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)

আমাদের সবকিছু কি আন্তর্জাতিক মানের? তাইলে বিচার প্রক্রিয়াটা কেন আন্তর্জাতিক মানের হতে হবে?

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)