দাড়ি ও মৌলবাদি মুসলমান

সালাম  আলাইকুম

 

দাড়ি  ও  মৌলবাদি  মুসলমান

  

হাজীদের  মুখে  দাড়ি  নেই  , এটা  আগে  চিন্তাও  করা যেত  না ।  অথচ  আজ  আমাদের আধুনিক  মুসলমান  ভাইরা  হজ্জ থেকে  ফিরতে  না ফিরতেই     দাড়ি  কাটতে   ছুরিতে শান  দেন  (  রেজার হাতে  নেন ) ।  যারা  হজ্জে যান  নি ,  সেই  বালেগ   মুসলমান পুরুষের জন্যও  দাড়ি রাখা  ওয়াজিব ।

 

অথচ  নির্বিকারভাবে  লাখ লাখ  বা কোটি  কোটি  তরুণ – যুবক – এমন কী  বৃদ্ধ  মুসলমানও  রোজ দাড়ি কাটেন ।  এর  কারণ  কী ?    পশ্চিমা  গণমাধ্যমের  কল্যাণে আধুনিক  পুরুষের  পরিচয়  বা  প্রতীক  হয়ে  দাড়িয়েছে     দাড়িবিহীন   মুখ ।    দাড়ি  রাখলে  সে হয়  যায়  মৌলবাদি ,  সন্ত্রাসী মুসলমান ।   নাটকে  ,  সিনেমায়  বা  গল্পের বইতে  কোন  মুসলমান  পুরুষ  সন্ত্রাস  করছে  অথচ   তার মুখে  দাড়ি  নেই  , এমনটা সাধারণত  দেখা যায় না ।  

 

যে যত  পরিস্কারভাবে , সুন্দরভাবে   দাড়ি  কাটতে পারবে , যার  মুখ থাকবে  ঝককঝকে  তকতকে  ,  মনে করা হয়  সেই  হচ্ছে  আধুনিক  পুরুষ ।  সুন্দরী রমণীরা  তার   কাছে  ছুটে আসবে ,  তার পাশে  ঘনিষ্ঠ  হয়ে  দাড়িয়ে   ভূবন ভুলানো  হাসি  হাসবে ,  সুন্দরী নারীকে  খুশী করতে পেরে পুরুষটির জীবনও   ধন্য হয়  ।  বিভিন্ন  শেভিং  ক্রীম  ও  আফটার  শেভ  লোশনে  আমরা  এমনটাই  দেখি ।  অথচ  দাড়ি  কাটতে   গিয়ে তারা  যে  আল্লাহর  রাসূলের  পথ  থেকে  সরে  যাচ্ছেন  , শেষ নবীর  আদেশ অমান্য করছেন , সেটা  নিয়ে  তাদের   কোন  চিন্তা  নেই । 

 

নবীর আদর্শের  বিপরীতে যাওয়ার  পাশাপাশি  রোজ  সকালে  কত  সময়  , পরিশ্রম ,  টাকা  খরচ হচ্ছে   রেজার ,  ক্রীম  আর লোশনের পিছনে  ।  এই  সময়  ,  শক্তি আর  টাকা  আরো  কত ভাল  কাজে ব্যবহার করা যেত ।

 

 

 ইয়েমেনের  রাজার  পক্ষ  থেকে  দুইজন  দূত   একবার রাসূল    এর  কাছে আসে ।  তাদের মুখে দাড়ি  ছিল  না  আর   গোঁফ   ছিল  লম্বা ।   বিরক্ত হয়ে   রাসূল      মুখ  ফিরিয়ে  নিয়ে বললেন  ,   এমন   করতে  কে  তোমাদেরকে বলেছে ?   তারা উত্তর  দিল , আমাদের  প্রভু   অর্থাৎ  রাজা ।    হজরত  মুহাম্মাদ  صلى الله عليه وسلم
তাদেরকে  জানিয়ে   দিলেন  , আর  আমার  প্রভু  অর্থাৎ  আল্লাহতালা  আমাকে  আদেশ দিয়েছেন   দাড়ি  রাখতে   আর  গোঁফ  ছাঁটতে  ।   

হে দাড়ি ও  গোঁফবিহীন  মুসলমান  পুরুষরা  ;     ভেবে  দেখুন ,   যদি  রাসুল      এর  সাথে   কিয়ামতের  দিন  আপনার মুখোমুখি  দেখা হয়  আর  বিরক্ত  হয়ে    আল্লাহর  রাসুল    আপনার    থেকে  মুখ  ফিরিয়ে  নেন ,  তাহলে  সেটা  কি আপনার  জন্য  খুব  নিরাপদ  হবে  ?

ইউরোপ – আমেরিকায় যারা  থাকেন , তারা না হয়  যুক্তি  দেখাতে পারেন  যে  দাড়ি রাখলে তাদের  নানা  সমস্যা হয় ,  মুসলিম প্রধান  দেশগুলির পুরুষদের  যুক্তি কী ?

   

 পরিবারের পুরুষ সদস্যরা  যেন   এই   ওয়াজিব পালনে  আগ্রহী  হোন , সেজন্য  নারীদেরকে এগিয়ে  আসতে  হবে ।    আসুন আমরা  যে যার    পিতা ,  ভাই , স্বামী ,  ভাগ্নে – ভাতিজাকে  উৎসাহ  দেই    দাড়ি রাখার  জন্য  ।   দাড়ি  রাখলে   মানুষ  হাসবে , মৌলবাদি বলবে ,  অজ্ঞ  মানুষদের  এই  উপহাসের  ভয়  আপনাকে  যেন ওয়াজিব  পালনে  বিরত না  রাখে ,  আমীন ।  

  সহায়ক সূত্র :  ইন্টারনেট

 

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4.5 (2টি রেটিং)

আমার ব্যক্তি জীবনের কিছু অভিজ্ঞতা শেয়ার করি আপনার পোষ্টে-

সতের বছর থেকে দাড়ী রাখি আলহামদুলিল্লাহ্। এটা আমার আবেগ নয়; বরং চিন্তার সিদ্ধান্ত। আজো মাঝে মাঝে ভাবি, দাড়ী না রাখলে আমাকে কেমন দেখাতো? আমি আজো এ সিদ্ধান্তেই আসি যে, দাড়ীতেই আমি সুন্দর।

বিয়ের বছর পরিবার ও স্বজনদের সবাই চিন্তিত, দাড়ী ওয়ালা পাত্রের জন্য পাত্রী পাবো কোথায়? তাদের চিন্তামত অনেক পাত্রী দাড়ীর কথা শুনে সরাসরি 'না' বলেও দিয়েছে। শুধু কি পাত্রী? পাত্রীর মা সহ 'না' ঘোষণা করেছেন। কিন্তু যত দেখেছি বেশীর ভাগ ক্ষেত্রে আমিই পছন্দ করতে পারিনি। শেষে এমন একজন আল্লাহ্ মিলিয়ে দিলেন, যার পছন্দই ছিল আমার দাড়ীসহ অবয়ব। সিদ্ধান্ত ছিল আমারও যে, দাড়ী পছন্দ করে না এমন কেউ যেন আমার না হয়। আল্লাহ আসলে তেমনটিই মিলিয়ে রাখেন আমাদের জন্য যেমনটি আমরা নিজেরা।

আশ্চর্য হই তাদের দেখে, যাদের বয়স আর কেউ পছন্দ করার মত পর্যায়ে নেই, অথচ এ বয়সেও দাড়ী কামিয়ে রাখে নিজেকে সুন্দর দেখাবে ভেবে। মানুষ কত অজ্ঞতা ধারন করে...।

খুব  ভালো লাগলো 

সালাম

 

ঠিকই বলেছেন ,  অনেক  মেয়ে ও   তাদের অভিভাবকরা  দাড়ি থাকলেই  বিয়ের প্রস্তাব  ফিরিয়ে দেন  - খুবই  হাস্যকর  ও  দু:খজনক  বিষয়  এটি ।

তবে  পুরুষদেরও  উচিত   বিয়ের জন্য  দাড়ি কাটতে হবে  এই প্রস্তাবে  রাজী না হওয়া ।  ইনশাআল্লাহ    যথাসময়ে  উপযুক্ত  ধার্মিক  পাত্রী  আল্লাহ  ঠিকই মিলিয়ে  দেবেন ।

সালাম,

`vwo ivLv wK cyiæl‡`i ¯^v‡¯’¨i Rb¨ fv‡jv?

Avgv‡`i mgq.Kg : 22/01/2016

download`vwo ivLv wK ¯^v‡¯’¨i Rb¨ fv‡jv? bvwK Avcbvi gyLfwZ© `vwo Avm‡j bvbviKg †ivM-RxevYyi GK weivU Av¯Ívbv? G wb‡q bZyb weZK© ïiæ n‡q‡Q weÁvbx Avi M‡elK‡`i g‡a¨|

 

 

wewewmi GK Abyôvb, ÔUªv÷ wg, AvB A¨vg G W±iÕ m¤úÖwZ wVK GB cÖ‡kœ GKUv †QvÆ cix¶v Pvwj‡qwQj| Zvi wfwˇZ weÁvbxiv ej‡Qb, wK¬b †kfW cyiæ‡li †P‡q `vwoIqvjv‡`i gy‡L †ivM-Rxevby †ewk, Ggb †Kv‡bv cÖgvY Zviv cvbwb| hviv `vwo iv‡Lb, Zviv Gi g‡a¨ bvbv †ivM-RxevYy enb K‡i P‡j‡Qb Ggb fq A‡b‡Ki g‡a¨B KvR K‡i|

 

hy³iv‡óªi GKwU nvmcvZvj m¤úÖwZ G wb‡q M‡elYv Pvjvq| Zv‡`i M‡elYvi dj A‡bK‡KB AevK K‡i‡Q| ÔRvb©vj Ae nmwcUvj Bb‡dKk‡bÕ cÖKvwkZ GB M‡elYvi d‡j ejv n‡”Q, `vwoIqvjv‡`i †P‡q eis `vwo Kvgv‡bv cyiæ‡li gy‡LB Zviv †ewk †ivM-RxevYy cvIqv †M‡Q|

M‡elKiv ej‡Qb, †gw_wmwjb-†iwm÷¨v›U ÷¨vd Awiqvm (GgAviGmG) e‡j †h RxevYy A¨vw›Uev‡qvwUK cÖwZ‡ivax, †mwU `vwoIqvjv‡`i PvB‡Z `vwo Kvgv‡bv‡`i gy‡L wZb¸Y †ewk gvÎvq cvIqv †M‡Q| Gi KviY wK?

M‡elKiv ej‡Qb, `vwo Kvgv‡Z wM‡q gy‡Li Pvgovq †h nvjKv Nlv jv‡M, Zv bvwK e¨vK‡Uwiqvi evmv euvavi Rb¨ Av`k© cwi‡ek ˆZwi K‡i| Ab¨w`‡K `vwo bvwK msµgY †VKv‡Z mvnvh¨ K‡i|

wewewmi ÔUªv÷ wg, AvB A¨vg G W±iÕ Abyôv‡b †ek wKQy cyiæ‡li `vwo †_‡K e¨vK‡Uwiqvi bgybv msMÖn K‡i GKB ai‡Yi cix¶v Pvjv‡bv nq|

BDwbfvwm©wU K‡jR, jÛ‡bi M‡elK W. A¨vWvg ievU© GB M‡elYvi dj †`‡L ej‡Qb, `vwo‡Z Ggb wKQy ÔgvB‡µveÕ Av‡Q, hv e¨vK‡Uwiqv aŸs‡m mvnvh¨ K‡i|

m~Î : wewewm evsjv

 

http://www.amadershomoys.com/newsite/2016/01/22/499373.htm#.VqN_Y5p97IU

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4.5 (2টি রেটিং)