জানার চেয়ে মানার মর্তবা বেশী

সূচনাতেঃ- বনী ইসরাইলের মধ্যে ধবংসের সর্ব প্রথম ফিতনাহ মহিলাই ছিল। বলা হয়, হযরত মুসা (আঃ) এর যুগে বালআম ইবনে বাউর নামে এক ব্যক্তি ছিল। তার দোয়া আল্লাহ পাক কবুল করতেন। এবং তিনি ইসমে আজমের মাধ্যমে সব দোয়া কবুল করিয়ে নিতেন।

বিবরণেঃ- এই সময়েই হযরত মুসা (আঃ) জাব্বারিনদের সাথে যুদ্ধরত অবস্থায় শাম দেশের বনী কেনান নামক স্থানে তাবু গাড়লেন। যেহেতু বালআম ইবনে বাউর জাব্বারিনদের অন্তর্ভুক্ত, সে কারনে জাব্বারিন সম্প্রদায়ের লোকেরা বালআমের নিকট এসে মুসা (আঃ) ও তার সাথীদের বিরুদ্ধে বদ-দোয়া করতে বললেন। মুসা (আঃ) নবী হওয়ার কারনে বদ-দোয়া করতে অস্বীকার করলেন বালআম। বালআম তার জাতির বার বার অনুরোধের কারনে ইস্তেখারা করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাদের বিদায় দিলেন। বালআম যেহেতু ইস্তেখারা বিহীন কোন কাজ করতেন না। সে ইস্তেখারা করলো এবং সে ইস্তখারায় নবী ও তার সাহাবীদের বিরুদ্ধে বদ-দোয়া না করার শক্ত ভাবে নির্দেশ দেয়া হল। তার জাতির লোকেরা আবার আসলে, বালআম ইস্তেখারার কঠোর নির্দেশের কথা বললে, তারা তার এই কথার দিকে ভ্রুক্ষেপ না করে বার বার বালআমকে অনুরোধ করতে লাগলো। স্বজাতির কথায় বালআম তার নিজ গাধায় আরোহন করে বদ-দোয়া করার স্থানে এগুতে লাগলো। পথে আল্লাহর হুকুমে ঐগাধা বসে পড়লো। গাধা চলার জন্য বালআম তার গাধাকে প্রহার করতে লাগলো।

আল্লাহর কুদরতে গাধার জবানঃ- বালআম যখন গাধাকে প্রহার করতে লাগলো আল্লাহর হুকুমে গাধার জবান খুলে গেল, গাধা বলতে লাগলো হে বালআম তুমি অজ্ঞ, তোমার উপর আমার আফছুছ! তুমি কি জান না তুমি কোথায় যাচ্ছ? তুমি যদিও আমাকে সামনে চলার চেষ্টা করছ, কিন্তু ফেরেশতাগণ আমাকে পিছনে যেতে বাধ্য করছে। বালআম গাধাকে কথা বলতে দেখে আশ্চার্য হলেন। তবুও সে বদ-দোয়া করার উদ্দেশ্যে গাধাকে ছেড়ে, পায়ে হেঁটে বদ-দোয়ার স্থানে আরোহন করে পাহাড়ে উঠলেন।

কুদরতের শানঃ- কুদরতের শান আল্লাহর ইচ্ছায় বালআমের মুখ দিয়ে উল্টো কথা বাহির করালেন। অর্থ্যাৎ বালআমের মুখ দিয়ে নিজের সম্প্রদায়ের লোকদের নাশ-বিনাশের কথা বাহির হতে লাগলো। বালআমের গোত্রগণ এই আচরণ দেখে বালআমকে গাল মন্দ দিতে আরম্ভ করলো। বালআম উত্তরে বললো এখানে আমার করার কিছু নেই, আমার ইচ্ছার বিরুদ্ধে আল্লাহপাক আমার থেকে তোমাদের বিরুদ্ধে কথা বের করাচ্ছেন। তারপরও বালআম বদ-দোয়া করতেই থাকলেন। যার কারনে শাস্তি স্বরুপ তার জিহবা মুখ থেকে বের হয়ে বুক পর্যন্ত চলে আসল। অতঃপর বালআম নিজের বর্বাদ হওয়া ঈমান ও একিনের সব বর্বাদী স্বচোক্ষে অবলোকন করল।


বালামের শেষ পরামর্শঃ- অতঃপর বনী ইসরাইলদের ধবংস করার নিমিত্তে পরামর্শ দিলেন। তা হল স্বগোত্রীয় যুবুতী, সুন্দরী মহিলাদেরকে বনী ইসরাইলদের মধ্যে অনুপ্রবেশ করানোর পরামর্শ দিলেন। এবং তাদেরকে বলে দেয়া হল যে, মুসলমান মুযাহিদ গণের মধ্যে কেহ যদি খারাপ কর্মের আমন্ত্রন জানায়, তাদের ডাকে সারা দেওয়ার। অতঃপর কুসাই বিন ছুওর নামক এক মহিলা, ঝমঝম বিন শালুম নামক এক মুযাহিদ কমান্ডারের সামনে দিয়ে যাচ্ছিল, ঐমুযাহিদ ঐমহিলার প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ে, এবং মুসা (আঃ) এর অনুমতি প্রাপ্তির আশায় মুসা (আঃ) এর নিকট মহিলাকে নিয়ে গেলেন। মুসা (আঃ) ঐমহিলাকে হারাম সাব্যস্ত করলেন, এবং তার কাছেও না যেতে কঠোর ভাবে নির্দেশ দিলেন। কিন্তু ঐমুযাহিদ মুসা (আঃ) এর কথা অমান্য করে, ঐমহিলাকে তার ঘরে নিয়ে গর্হিত কাজ করলেন। যার পরিপেক্ষিতে সমস্ত মুযাহিদদের প্রতি আল্লাহর আজাব নেমে আসল, এবং কিছুক্ষনের মধ্যে সত্তর হাজার মুযাহিদ ধবংস হয়ে গেল।

এক পাহারাদারের ভাবনাঃ- অপরদিকে ফাকছ নামক এক ব্যক্তি(হযরত হারুন (আঃ)এর নাতী) মুসা (আঃ)এর পাহারাদার ছিলেন। সে যখন বুঝলো একজন মুযাহিদের গর্হিত কাজের কারনে, সত্তর হাজার মানুষ মারা গেল, সাথে সাথে সে অস্ত্র হাতে নিয়ে ঝমঝমের অবস্থানে প্রবেশ করে, ঝমঝম ও ঐমহিলাকে মেরে ফেললো। এবং আল্লাহর তা’য়ালার অবধারিত আজাব উঠে গেল।

‘’মেশকাত শরীফ’’

ফরিয়াদঃ- আল্লাহ আমাদের সবাইকে সবরকম গুনাহ থেকে বাঁচিয়ে রাখুন। এবং ছোট বড় সব গুনাহ থেকে তওবা করার সুযোগ করে দিন।

পরিশেষেঃ- আল্লাহপাক মানুষকে গুনাহ কি? এর শাস্তি কি? এবং এর প্রতিকার কি?  তা বুঝার, এবং সে মতে আমল করার যোগ্যতা দিন। এবং আল্লাহর আযাব থেকে আমাদেরকে সদাই রক্ষা করেন।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)

পাঁচ তারা।

-

"নির্মাণ ম্যাগাজিন" ©www.nirmanmagazine.com

সালাম

আপনাকে যাযায়ে খায়ের।

-

▬▬▬▬▬▬▬▬ஜ۩۞۩ஜ▬▬▬▬▬▬▬▬
                         স্বপ্নের বাঁধন                      
▬▬▬▬▬▬▬▬ஜ۩۞۩ஜ▬▬▬▬▬▬▬▬

sl

 

জাতি  বানান  বারবার ভুল  লেখা হয়েছে  , ঠিক  করে  নিলে  ভাল হয় ।

 

*****

সালাম

আপনাকে ধন্যবাদ ভূল ধরিয়ে দেয়ার জন্য, আমি ঠিক করে দিয়েছি।

-

▬▬▬▬▬▬▬▬ஜ۩۞۩ஜ▬▬▬▬▬▬▬▬
                         স্বপ্নের বাঁধন                      
▬▬▬▬▬▬▬▬ஜ۩۞۩ஜ▬▬▬▬▬▬▬▬

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)