ভাল কাজের শেষ নেই (পর্ব ১ )

ভাল কাজের শেষ নেই (পর্ব ১ )

আমরা জানি ভাল কাজের শেষ নেই,  এবং এও জানি কেউ যদি কারো জন্য কোন ভাল কাজ করে অথবা ছোট থেকে ছোট কোন সহযোগীতা করে সেটা প্রশংসা নিজে নিজে করেও শেষ করতে পারে না। বাকি অন্যজন কি আর করবে। নিয়ম হল আমি যদি কারো জন্য সামান্য কোন ছোট কাজ করি তা শুধু করবেো একমাত্র আল্লাহর রাজী খুশির জন্য আর কাউকে এর মধ্যে অংশীদ্বার স্থাপন করবোনা। আমি যাই কিছু করি আল্লাহর জন্য করবো।

সেই ভাল কাজটা হতে পারে সামান্য শুকনা রুটি দিয়ে কাউকে সাহায্য করা, অথবা কোন অপরিচিত ব্যক্তিকে পথের সন্ধান দিয়ে হলেও। আসুন আজ থেকে ছোট ছোট ভাল কাজ গুলো করার জন্য নিজেকে তৈরি করি। এবং অন্যকে উৎসাহিত করি মানুষকে সহযোগীতা করতে।
وعن أبي العبَّاسِ عبدِ اللهِ بنِ عباسِ بنِ عبد المطلب رضِيَ اللهُ عنهما ، عن رَسُول الله صلى الله عليه وسلم ، فيما يروي 
عن ربهِ ، تباركَ وتعالى ، قَالَ : (( إنَّ اللهَ كَتَبَ الحَسَنَاتِ والسَّيِّئَاتِ ثُمَّ بَيَّنَ ذلِكَ ، فَمَنْ هَمَّ (1) بحَسَنَةٍ فَلَمْ يَعْمَلْهَا كَتَبَها اللهُ تَبَارَكَ وتَعَالى 
عِنْدَهُ حَسَنَةً كامِلَةً ،وَإنْ هَمَّ بهَا فَعَمِلَهَا كَتَبَهَا اللهُ عَشْرَ حَسَناتٍ إِلى سَبْعمئةِ ضِعْفٍ إِلى أَضعَافٍ كَثيرةٍ ، وإنْ هَمَّ بِسَيِّئَةٍ فَلَمْ يَعْمَلْهَا كَتَبَهَا اللهُ 
تَعَالَى عِنْدَهُ حَسَنَةً كَامِلةً ، وَإنْ هَمَّ بِهَا فَعَمِلَهَا كَتَبَهَا اللهُ سَيِّئَةً وَاحِدَةً )) مُتَّفَقٌ عليهِ .

أخرجه : البخاري 8/128 ( 6491 ) ، ومسلم 1/83 ( 131 ) ( 207 ) و( 208 ) .
(1) همّ بالأمر يهمّ ، إذا عزم عليه . النهاية 5/274 .

হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা) বর্ননা করেন, রাসূলে আকরাম সাল্লালাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাঁর মহিমান্বিত প্রভূর সূত্রে বর্ণনা করতে গিয়ে বলেনঃ আল্লাহ তা’আলা সৎ কাজ ও পাপ কাজে সীমা চিহ্নিত করে দিয়েছেন এবং সেগুলোর বৈশিষ্ট্য স্পষ্টভাবে বিবৃত করেছেন। অতএব, যে ব্যক্তি কোন সৎ কাজে সংকল্প ব্যক্ত করেও এখন পর্যন্ত তা সম্পাদন করতে পারেনি, আল্লাহ তার আমলনামায় একটি পূর্ণ নেকি লিপিবদ্ধ করার আদেশ দেন। আর সংকল্প পোষণের পর যদি উক্ত কাজটি সম্পাদন করা হয়, তাহলে আল্লাহ তার আমলনামায় দশটি নেকী থেকে শুরু করে সাত'শ, এমনকি তার চেয়েও কয়েকগুন বেশি নেকী লিপিবদ্ধ করে দেন। আর যদি সে কোন পাপ কাজের ইচ্ছা পোষণ করেও তা সম্পাদন না করে, তবে আল্লাহ তার বিনিময়ে তার আমলনামায় একটি পূর্ণ নেকী লিপিবদ্ধ করেন। আর যদি ইচ্ছা পোষনের পর সেই খারাপ কাজটি সে করেই ফেলে, তাহলে আল্লাহ তার আমলনামায় শুধু একটি পাপই লিখে রাখেন।

[বুখারী: ৮/১২৮ (৬৪৯১) ও মুসলিম: ১/৮৩ (১৩১), (২০৭) ও (২০৮)]

আজকে জেনে নিলাম নিয়্যত কিভাবে করলে কি পরিমান নেকি হবে এবং কি পরিমান গুনাহ হবে। আল্লাহ কত বড় মেহেরবানী যে নেক কাজের ইচ্ছা করে যদি পূর্ণ করতে না পারে তবুও একটি নেকি দেন। আর যদি পূর্ণ করে তবে দশটি নেকি দেন। অনুরুপ ভাবে কেউ যদি খারাপের ইচ্ছা করেন এবং পূর্ণ না করে তবে গুনাহ লেখা হয়না। আর যদি পূর্ণ করেই ফেলে তবে শুধু মাত্র একটি গুনাহই লেখেন। তাই আমরা যে কোন কাজের পূর্বে আমাদের ইচ্ছাকে যাচাই-বাছাই করে নেব যাতে করে আমাদের আমল নামায় গুনাহ লিখিত না হয়। আমরা যদি কখনো গুনাহের ইচ্ছা করি আল্লাহ যেন আমাদেরকে সেই গুনাহ থেকে সাথেই তওবার

সুযোগ করে দেন। অথবা সঠিক সময়ে সঠিক বুঝ দান করেন।
মহান আল্লাহ আমাদের সবাইকে তৌফিক দিন। সহজ করে দিন। আর কবুল করে নিন। 

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

আরেকটি শিক্ষণীয় ধারাবাহিক। জাযাকিল্লাহ্ খায়ের।

All the praiss are for allah.I am happy reading this passage.

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)