ভাল বন্ধু হয়ে!! ( ধারাবাহিক গল্প ৬)

পরশ ভাবির সাথে যেতে না চাইলেও রোকেয়ার কান্না পরশকে টেনে হেঁচড়ে নিয়ে গেলো রোকেয়া ভাবির ঘরে। রোকেয়া ভাবির ঘরে পরশ গেলো ঠিকই কিন্তু সেই আগের পরশ হয়ে নয় ভিন্ন পরশ হয়ে। এ ক'দিনে পরশ যেন অন্য পরশে রুপ নিয়েছে। রোকেয়া ভাবি পরশকে খাবার দিলো নিজের জন্যেও নিলো কিন্তু পরশ নিশ্চুপ। কোন কথা নেই পরশের মুখে। ভাবির ছোট ছেলে যে পরশকে মা বলে ডাকতো সে নানান প্রশ্ন করতে থাকলো কিন্তু আগে যত প্রশ্নই সে করতো পরশ জবাব দিতো কিন্তু আজকে পরশ কোন কথারই জবাব দেয়না। চুপচাপ খাচ্ছে আর অল্প খাবার খেয়েই হাত ধুইয়ে ফেলে।

রোকেয়া ভাবি খেয়াল করে পরশের মুখে অজানা কষ্টের ছাপ। রোকেয়া ভাবি খেয়াল করে পরশের চেহারায় আগে যেই উচ্ছলতা ছিলো সেটা এখন নেই, নেই পরশের মুখে সবসময় লেগে থাকা হাসিটাও।  আর পরশের এই ভাবটাই রোকেয়া ভাবিকে আরও ভাবিয়ে তোলে। রোকেয়া ভাবির সন্দেহ আর প্রবল হয়ে ভাবি জানতে চায় পরশ তুই আমার কাছে কিছু লুকাচ্ছিস নাতো? পরশ এখনো চুপ। ভাবির আবারো প্রশ্ন তুই কিছু লাকাচ্ছিস নাতো আমার কাছে? কেউ কি কিছু বলেছে তোকে আমার ঘরে আসিস এজন্য? সত্য করে বল নয়তো পরে জানলে আমার মনে খুবই কষ্ট লাগবে।

পরশ কোন কথা বলেনা পরশের চোখেও পানি টলটল করছে। সে মুখফুটে কিছু না বললেও তার চোখের পানিই বলছে কোন কিছু ঘটেছে। খুব কষ্টোকে বুকের মাঝে চেপে রেখে পরশ বলে ভাবি আমাকে কোন কিছুর জন্যই জোর করবেন না। আমার যখন ভালো লাগে তখনই আমি আপনার ঘরে আসবো নয়তো জোর করবেন না আমাকে। আর কোন বিষয় জানতেও চাইবেন না আর জানতে চাইলেও আমি বলবোনা। আমাকে ক্ষমা করুন ভাবি আমাকে ক্ষমা করুন বলেই পরশ রোকেয়া ভাবির ঘর থেকে বের হয়ে চলে যায়। আর ভাবি পেছন থেকে ডাকতে থাকে পরশ শুন; শুনে যা আমি খবর নেবো কে তোকে আমার ঘরে আসতে নিষেধ করেছে তারপর যা হবার হবে। কিন্তু পরশ পিছনে ফিরে না তাকিয়ে চলে যায় নিজের ঘরে।

রোকেয়া ভাবিও খুব কাঁদে সেদিন আর তার তেমন খাওয়া হয়না। রোকেয়ার স্বামী বাসায় আসলেই পরশের খবর নিতো সবসময়। জানতে চাইতো সারাদিন তারা কি কি করেছে? কি কি পড়েছে? সেদিন রাতেও রোকেয়ার স্বামী বাসায় এসেই পরশের খবর জানতে চায়। বলে যে, আমার বোনের খবর কি? রোকেয়ার চোখ লাল দেখে রোকেয়ার স্বামী বলে কিরে কি হয়েছে তোমার? আর চোখেরই বা এই লাল বর্ণ কেন? রোকেয়া জানায় পরশের খবর। পরশ আর আসবেনা সেটাও জানায়। তার স্বামী ও এবার রেগে গিয়ে বলে কে বলেছে তুমি খোজ-খবর নাও প্রয়োজনে তার বিচার হবে কেন আমার বোনকে আমার ঘরে আসতে নিষেধ করেছে? কার এত বড় সাহস? আমি দেখে নেবো কে এই লোক? আর কতবড় তার কলিজা বলেই রোকেয়ার স্বামী রাতেই পরশদের ঘরে যায়।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)