বাস্তবতার মুখোমুখি

31
dec , 2013 রাত নয়টার পর বাসে উঠলাম গন্তব্য স্থল রাজশাহী ; ঘণ্টা ছয়েক এর
পথ । ভাবলাম মহাসড়কে দুই - আড়াই ঘণ্টার জ্যাম মিলে ভোর রাতে গিয়ে পোঁছাবো ।
মাঝ রাস্তায় গিয়েও দেখি জ্যাম নেই । যেন আফসোস কারণ জ্যাম না হলে তো আমাকে অসময়ে গিয়ে পোঁছাতে হবে ।

সময় গড়িয়ে রাত সাড়ে তিনটা রাজশাহী বাস ষ্টেশনে পোঁছলাম । কোথায় যাবো এত
রাতে ; নিজ বাসায় এখনি গেলে হয়ত মাঝপথে টহল পুলিশ বা যৌথবাহিনীর সম্মুখে পড়বার ঝুঁকি আছে । কি দরকার অযথা ২ ঘণ্টার জন্য ঝামেলার ঝুঁকি নেয়া ।
তড়িৎ সিদ্ধান্ত নিয়ে চলে গেলাম বাস ষ্টেশনের পাশেই রাজশাহী রেল ষ্টেশনে ।

চারদিকে নিরবতা ,শুধু পিন পিন বাতাস কাঁপিয়ে দিচ্ছে ৫ ফুট ৬ ইঞ্চির এই
আদম বংশধরকে । যতই খিঁচুনি দিয়ে চাদর মুড়ি দেই ততই যেন ঠাণ্ডা বাড়ছে ।

ভূগোলিক অবস্থানের কারণে অন্যান্য অঞ্চলের তুলনায় রাজশাহীতে শীত বেশ ভালই পড়ে ।

ষ্টেশনে ঢুকার সাথে সাথে দেখি ষ্টেশনের ভিতরে সারিবদ্ধভাবে সব ছিন্নমূল , বস্তিবাসী মানুষগুলো শুয়ে আছে ।
ভাবছি কি করা যায় ?
বসার জায়গা খুজছি । একপাশে দেখছি চারজন মহিলা গল্প করছে , কাছে গিয়ে বললাম খালা ঃ এখানে কোথাও বসা যাবে ?
একটি পিলার দেখিয়ে বলল ঃ ঐখানে ফাঁকা আছে , গিয়ে বসতে পারো [রাজশাহীর আঞ্চলিক ভাষায় বলেছিল ]
যেই পরামর্শ সেই কাজ , দেখলাম মেঝেটা ভালোই পরিষ্কার আর মোজাইক করা ।

ব্যাগের মধ্যে থাকা লুঙ্গিটা বের করলাম । ভালো করে বিছিয়ে নিয়ে পিলারে হেলান দিয়ে ব্যাগটা হাতে নিয়ে বসে পড়লাম
কি অদ্ভুত দৃশ্য , প্রচণ্ড শীতের মাঝে মানুষগুলো কিভাবে ঘুমাচ্ছে ।
কারো গায়ে কিন্তু ভালো গরমের কাঁথা নেই ।
দেখতে দেখতে কেন যেন শুইতে ইচ্ছা হল ।

ব্যাগটাকে মাথার মধ্যে দিয়ে চাদরটাকে সারা শরীর মুড়ি দিয়ে চোখ বন্ধ করে দিলাম । দেখি ঘুম আসে কি না ?
নাহ কাজ হচ্ছে না উপরের শীত বন্ধ করলাম কিন্তু মনে হচ্ছে নিচের ফ্লোরটার সাথে deep ফ্রিজের কানেকশন রয়েছে ।
ঠাণ্ডার কারণে মনে হচ্ছে নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে ।
এদিক ওদিক নাড়াচড়া করেও কাজ হচ্ছে না। অনেক কষ্টে পার করে দিলাম দু ঘণ্টা ।

ভাবলাম কতো কষ্ট করে মানুষ গুলো রাত কাটাচ্ছে । কেউ কি দেখার নেই , কেউ না ?
এদেশের সরকার যদি উদ্যোগ নেয় বা বিত্তবানরা , তাহলে এই মানুষগুলো অন্তত আরাম করে ঘুমটা যেতে পারে ।

আফসোস ; সবাই নিজেকে নিয়ে busy ।
অথচ এই মানুষগুলোর ভোটে কিন্তু জয় পরাজয় নির্ধারণ হয় ।
এদের কাছে happy new year বলে কিছু নেই , সবই সমান ।

আসুন সবাই এগিয়ে আসি , নিঃস্বার্থভাবে এই ছিন্নমূল , খেটেখাওয়া ,বস্তিতে থাকা মানুষগুলোর জন্য ।
ওরা আমাদের ভাই , বোন , স্বজন ।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4.5 (2টি রেটিং)

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4.5 (2টি রেটিং)