‘তালাকনামা’ -আ ব দু ল হা ই শি ক দা র

(বর্তমান সময়ের জন্য এটমবোম-কবিতা, শেয়ার না করে পারলাম না।)

তুই আমার উপর কেরদানি ফলাস—
তোর কেরদানির বীজ আমি অপারেশন করে ফেলে দেব।
তোকে আমি এক তালাক দেব।

তুই আমার চৌদ্দ পুরুষের ভিটেমাটি
তোর দুষ্কর্মের দোসরদের কাছে বন্ধক দিয়ে এসেছিস।
খ্যাতি আর প্রতিপত্তির মোহে তুই বোধবর্জিত অন্ধ,
বাড়ির ভিতর দিয়ে শয়তানের চলাচলের পথ করে দিয়েছিস।
তুই তোর মহাজন বাপকে এনে বসিয়েছিস বেডরুমে।
এখন বলছিস ইজ্জতের চেয়ে বন্ধুত্ব বড়!

তুই গাধার বাচ্চা গাধা।
তোর পাছায় আমি লাথি মারি।

প্রতিদিন তোর পড়শি তোর জমি দখল করে কেটে নেয় সোনার ফসল।
প্রতিদিন ধ্বস্ত-বিধ্বস্ত হয় সীমানাপ্রাচীর।
প্রতিদিন প্রতিবেশী তোর ভাইদের নির্বিচারে খুন করে—
তোর নদীর পানি আটকে দেয় এজিদ বাহিনী,
তোর বুকের ওপর প্রতিদিন ছড়িয়ে দেয় বিভেদের এসিড।

আর তুই বেশরম।
আর তুই জাত নচ্ছার।
আর তুই পাজির পা ঝাড়া।
সে সব প্রতিকারের বদলে বলছিস—
এর সব কিছুই হচ্ছে পবিত্র ও মহান বন্ধুত্বের নামে।

তোর বাড়ি ভেঙে নিয়ে যায় আগ্রাসন।
হিংসা ও ঘৃণার কুয়াশায় তোর আকাশ বাতাস অস্থির।
তোর আত্মার বিরুদ্ধে তোর দেহ,
দেহের বিরুদ্ধে আত্মার বিষোদগার।
তোর মৃত্তিকা আজ আকাশ বিদ্বেষী—

আকাশ ঢেকেছে উদাসীনতার মেঘ।
আর তুই মৈত্রীর অমিয় সঙ্গীত।
আর তুই অহিংসার চরম উপাসক!
আর তুই জয় হোক বন্ধুত্বের জয় হোক!

তোকে আমি দুই তালাক দেব।

তোকে সবাই জানে তুই দক্ষিণ এশিয়ার মস্তানের চামচা।
তোকে সবাই জানে তুই মহাজনের পা চাটা কুকুর।
তোকে সবাই জানে তুই মেষের চামড়ায় মোড়া ভাড়া খাটা জল্লাদ।

তোর যতো হম্বিতম্বি নিজের বাড়িতে।
তোর জবরদস্তি নিজের ভাইদের উপর।
তোর যতো বাহাদুরি দুর্বলের উপর।

তুই জঘন্য তুই ইতর।
তুই তোর জন্মদাত্রী জননীকে অপবাদে মলিন করেছিস।
নিজের সহধর্মিণীকে তুই মহাজনের শয্যায় যেতে বাধ্য করেছিস!
তুই নপুংসক, তুই অমানুষ!
তুই মীরজাফরের চাইতেও নিকৃষ্ট
তুই মইন-ফখরের চাইতেও বেশি বেশি নেড়ি কুত্তা!

তোকে আমি তিন তালাক দিলাম।

চড়িয়ে চড়িয়ে তোকে আমি নীতিকথা শিখাব।
তারপর সেলাই করে দেব পাছা।
তারপর গোবর মাখিয়ে দেব।

তুই নচ্ছারের নচ্ছার।
তুই গাধার বাচ্চা গাধা।
— তোকে আমি বাইন তালাক দিলাম।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)

বুঝলাম না কি বিষয়টা বুঝাতে চেয়েছেন। তবে ভাল লেগেছে।

অনেক ধন্যবাদ

-

▬▬▬▬▬▬▬▬ஜ۩۞۩ஜ▬▬▬▬▬▬▬▬
                         স্বপ্নের বাঁধন                      
▬▬▬▬▬▬▬▬ஜ۩۞۩ஜ▬▬▬▬▬▬▬▬

আমি না, কবিতাটিতে কবি আব্দুল হাই শিকদার বর্তমান বাংলাদেশের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটের কালো অধ্যায় তুলে ধরছেন।

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)