তবুও সামনে চলা

আগুন লাগা সন্ধ্যার মত
মানুষের মনের কোনে দেখা দেয় স্মৃতি সন্ধ্যা।

স্মৃতির নক্ষত্র জ্বলে উঠে হৃদয় আকাশে
এভাবে কত জীবন কাঁদে হাসে জীবন উপন্যাসে।

গভীর আঁধার ভেদ করে
আসে কত প্রভাতী আলো।

তারপরও আমরা অসহায় পৃথিবীর মাঝে
দিনের শেষে আঁধারের বুকে আশ্রয় নেয় কালো।

যাকে বলে গভীর কালো রাত্রি
তারপরও রাতের আছে চাঁদ।

কিন্তু আমরা মানুষ খুবই অসহায়
পৃথিবীর ধরা বাঁধা নিয়ম নীতির কাছে।

পৃথিবীর নীতিতেই আমাদের জীবন চক্র চলে
সবাইকেই মেনে নিতে হয় পৃথিবীর নীতি
অপ্রত্যাশিত মনে।

তারপরও বেঁচে আছি, বেঁচে আছে সবাই
কিছু পাবার প্রত্যাশায় বা,

পাওয়ার পূর্ণতার প্রত্যাশায়
এই তো জীবন নিয়তি

চলছে যেন কোনভাবে হেসে কেঁদে
জানিনা ভাগ্যে কি আছে?

তবে মনে আছে কিছু হতাশা
কিছু প্রত্যাশা।

আর এই নিয়েই চলছি সম্মুখ পানে।
হতাশিত মনে ভাবছি........

হঠাৎ কোন ঝড়ে কোন ক্ষতি হয় কি না?
আরও ভাবছি ক্ষনিকেই হয়তো পৌছে যেতে পারি
জীবনের পূর্ণতায়।

অদৃষ্টই ভাল জানেন
কি আছে ললাটে?

কি আছে ভাগ্যে?
কি হবে অবশেষে?

আমি কি এভাবেই রবো
পাগলিনীর বেশে?

৫ই আগষ্ট ২০০২

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

কবিতাটি পড়লে মনে হয় সমকালের; অথচ কত পুরোনো, ২০০২ সালের।

-

"নির্মাণ ম্যাগাজিন" ©www.nirmanmagazine.com

মন্তব্য করার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)