'চিরন্তনের পথে' -এর ব্লগ

বিবর্ণ পৃথিবীতে সুবর্ণ সুযোগ

পৃথিবী আজ করোনা মহামারীতে বিবর্ণ। প্রতিদিন অসুস্থতার গুণতি বেড়েই চলেছে। সেই সাথে পাল্লা দিয়ে হারিয়ে যাচ্ছে ওপারের যাত্রীরা, দীর্ঘ হতে দীর্ঘতর হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল।

এ ঘন দুর্যোগে আমাদের সম্মুখে এসে দাঁড়িয়েছিল রমাদ্বানের মত কল্যাণময় মাস। দুইটি দশক পার করে ফেলেছি আমরা। জানিনা কি অর্জন পেয়েছি ওপারের সঞ্চয়ে। তবে আজ থেকে এমন এক সঞ্চয়ের দুয়ার উন্মুক্ত হলো যা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল হয়ে আছে বিগত প্রায় পনরশ' বছর ধরে। তা হলো "লাইলাতুল কদর" বা "মহিমান্বিত রাত"।

আকাংখা, সাধনা ও সাফল্য হোক আগামী দশ দিনে আমাদের নিত্য সঙ্গী। ইন শা আল্লাহ।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

বাইবেলের ভবিষ্যৎ বাণী ফলছে, বিপর্যয় আসন্ন

সভ্যতা ধ্বংসের ব্যাপারে বিভিন্ন ধর্মগ্রন্থে নানা আলামতের বর্ণনা রয়েছে। খ্রিস্টানদের পবিত্র ধর্ম গ্রন্থ বাইবেল’এও সভ্যতা ধ্বংসের সময় পৃথিবীতে যে পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে তা উল্লেখ করা হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম এক্সপ্রেস ইউকে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, বিশ্বের সাম্প্রতিক পরিস্থিতির সঙ্গে সভ্যতার শেষ সময়ের বাইবেল’এ বর্ণিত আলামতের মিল খুঁজে পাচ্ছেন খ্রিস্টীয় ধর্মগুরুরা।

খ্রিস্টীয় ওয়েবসাইট সাইনপোস্ট’এ উল্লেখিত বিষয়গুলোকে উদ্ধৃত করে প্রতিবেদনে বলা হয়, সম্প্রতি জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তর নিয়ে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনিদের মধ্যে যে সংঘাত শুরু হয়েছে তা বাইবেলে স্পষ্ট উল্লেখ রয়েছে। পবিত্র ভূমিতে ঈশ্বরের অভিশপ্ত ইহুদি জাতি আগ্রাসনের পাশাপাশি যে রক্তপাত ঘটাচ্ছে তা চরম অধর্মের পরিচয় বহন করে!

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

২. একটু ভেবে দেখুন এবং কৃতজ্ঞ হোন

আপনার প্রতি আল্লাহ্ তা'য়ালার অসংখ্য করুণার কথা স্মরণ করুন, কীভাবে সে করুণাসমূহ আপনাকে আপাদমস্তক বেষ্টন করে রেখেছে-আসলে সর্বদিক দিয়েই ঐ করুণাসমূহ আপনাকে ঘিরে রেখেছে।

وَإِنْ تَعُدُّوا نِعْمَتَ اللَّهِ لَا تُحْصُوهَا

“যদি তুমি আল্লাহর নিয়ামতরাজিকে গণনা করতে চাও তবে তা তুমি কখনও গণনা করে শেষ করতে পারবে না।" (১৪-সূরা ইবরাহীম: আয়াত-৩৪)

সুস্থতা, নিরাপত্তা, খাদ্য, বস্ত্র, বায়ু ও পানি ইত্যাদি সবকিছুই দুনিয়াটাকে আপনার বলে ঘোষণা দিচ্ছে-তবুও আপনি বুঝতে পারছেন না। জীবন ধারণের জন্য অপরিহার্য প্রয়োজনীয় যা কিছু থাকতে হয় তার সবকিছুই আপনার আছে- তবুও আপনি অজ্ঞই থেকে গেলেন।

وَأَسْبَغَ عَلَيْكُمْ نِعَمَهُ ظَاهِرَةً وَبَاطِنَةً

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)

ইখওয়ানুল মুসলিমুন এর ৯০ বছরঃ একটি পর্যালোচনা -ড. আব্দুস সালাম আজাদী


ইখওয়ানের প্রশিক্ষণ পদ্ধতি নিয়ে বই লিখেছেন অনেকেই। ডঃ ইউসুফ আলক্বারাদাওয়ীর লেখা “আলতারবিয়্যাহ ইসলামিয়্যাহ ওয়া মাদ্রাসাতু হাসান আলবান্না” বইটা এর মধ্যে খুব গুরুত্বপূর্ণ। তিনি উল্লেখ করেছেন, ইখওয়ানের প্রশিক্ষণের প্রথম লক্ষ্যবস্তু হলো মানুষের ক্বলবের উন্নয়ন। এটা সম্পন্ন হবে সহীহ সুন্নাহকে সঠিক ভাবে পালন করা, ফারায়েদ্ব গুলোকে পরিপূর্ণ ভাবে আদায় করা। জামাআতের সাথে সালাত আদায় করা। বেশি বেশি নফল কাজ করা। তাহাজ্জুদ পালন ও সেখানে বেশি বেশি কুরআন তিলাওয়াতে নিজকে অভ্যস্ত বানানো।

ছবি: 
আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (3টি রেটিং)

১. হে আল্লাহ!

১. হে আল্লাহ!

يَسْأَلُهُ مَنْ فِي السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضِ كُلَّ يَوْمٍ هُوَ فِي شَأْنٍ

“আকাশসমূহ ও পৃথিবীতে যা কিছু আছে সবই তার কাছে সাহায্য প্রার্থনা করে। প্রতি মুহুর্তে তিনি কাজে রত।” (৫৫-সূরা আর রাহমান: আয়াত-২৯)

(যেমন কাউকে সম্মান দান করা, কাউকে অপমানিত করা, নবসৃষ্টির মাধ্যমে কাউকে জীবন দান করা, কাউকেবা মৃত্যু দান করা ইত্যাদি কাজে রত)।

যখন বিক্ষুব্ধ ঝঞা বায়ুতে সমুদ্র উত্তাল-তরঙ্গায়িত থাকে, তখন নৌকার আরোহীগণ আর্তনাদ করে বলে, “হে আল্লাহ!”

যখন মরুভূমিতে উট চালক ও কাফেলা পথ হারিয়ে ফেলে তখন তারা আর্তচিৎকার করে বলে, “হে আল্লাহ!"

যখন বিপর্যয় ও দুর্যোগ দেখা দেয় তখন দুর্দশাগ্রস্তরা বলে উঠে, “হে আল্লাহ!"

দরজা দিয়ে যখন কেউ প্রবেশ করতে চায় আর তার সামনেই দরজা বন্ধ করে দেয়া হয় এবং অভাবীদের সামনে যখন বাধার প্রাচীর নির্মাণ করা হয় তখন তারা চিৎকার দিয়ে বলে, “হে আল্লাহ!"

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (3টি রেটিং)

পৃথিবীর দিনগুলো: "লেডি হিটলার"-এ কলংক কোথায় রাখি?

বিশ্বের বুকে বর্তমান বাংলাদেশ নামক এই ভূখণ্ডটি ইতিহাসের বিভিন্ন পর্যায়ে নানাভাবে সুনাম কুড়িয়েছে। কখনো ভৌগলিক অবস্থানের কারণে, কখনো বীরত্বের কারণে, কখনো বা প্রাকৃতিক দুর্যোগের মোকাবিলা করেও মাথা উঁচু করে টিকে থাকার প্রাণান্ত সংগ্রামের কারণে। কারণ খুঁজলে আরো বহু বহু কারণ জড়ো করা যাবে।

ঠিক তেমনি ইতিহাসের নানা পর্যায়ে লেখা রয়েছে এই ভূখণ্ডের নানা দুর্নামের কথাও। যা বার বার ম্লান করে দিয়েছে সুনামের সমুজ্জ্বল প্রদীপকে। দেশে দেশে দেশান্তরিত বাংলাভাষাভাষীরা যার সুফল ও কুফল দু'টোই টের পেয়ে থাকে।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)

পৃথিবীর দিনগুলো: মধ্যপ্রাচ্যের শ্রমবাজারে বাংলাদেশীরা বিপন্নের পথে

প্রায় এক বছর পর এ পর্বে কলম ধরলাম। মাঝখানে জীবন থেকে হারিয়ে গেছে সুদীর্ঘ একটি বছর। অনেক পেয়েছি, হারিয়েছিও বহু কিছু। তারপরও সান্ত্বনা এই যে, পৃথিবীর দিনগুলো এখনো চলমান। এখনো এই আত্মা তার ধারক দেহটি নিয়ে ঘোরাফেরা করছে মহাজগতের পৃথিবী নামক গ্রহের অলিগলিতে। আকাশের রঙে পরিবর্তন আসেনি তেমন, মাটির আদ্রতাও ঠিক আগের মতই আছে, বাসাতের গন্ধে আজন্ম পাওয়া সেই স্বাদ আজো পুরোনোর মতই। শুধু বদলে গেছে মানুষ, মানুষের আচরণ এবং মানুষের চরিত্র।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)

আল্লাহর শপথ আমি নামাজ পড়তাম -কুরআনের আলো.কম

আল্লাহর শপথ আমি নামাজ পড়তাম-কুরআনের আলো.কম

রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন,

দুটি নিয়ামত এমন আছে, যে দুটোতে অনেক মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত। তা হল সুস্থতা আর অবসর। (সহীহ বুখারী ৫৯৭০, ইফা)

এটি একটি সচিত্র সত্যি ঘটনা যা আপনার জীবন, আপনার চিন্তা ধারা ও জীবনের উদ্দেশ্য বদলে দিতে পারে।

ঘটনাটি বাহরাইনের ইব্রাহিম নাসের নামের এক যুবকের। সে জন্মগতভাবেই
পক্ষাঘাতগ্রস্ত, শুধু তার আঙ্গুল ও মাথা নাড়াতে সক্ষম। এমনকি তার নিঃশ্বাস
প্রশ্বাসের জন্যও তাকে যন্ত্রপাতির সাহায্য নিতে হয়।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

পৃথিবীর দিনগুলো: ১৮ এপ্রিল ২০১২

মানব চরিত্র সম্পর্কে একটু বেশীই আগ্রহ বোধ হয় আমার। তাই কারো সাথে প্রথম সাক্ষাতেই একটা সাময়িক হিসাব-নিকাষ সেরে নেই। হয়ত সবাই তাই করে। কিন্তু আমার প্রথম হিসাব-নিকাষের পরই একটা সিদ্ধান্তে পৌঁছে যাই যে, এর সাথে আমার কতদূর চলবে। বন্ধুত্বের এমন অনেক সিঁড়িয়ে পেরিয়েছি যেখানে পিছলে পড়তে হয়েছিল। সেই প্রশ্ন রেখেছিলাম- "ভালবাসায় কতভাগ অভিনয়?" -সে হিসেবে এসব বন্ধুত্বের ক্ষেত্রে অভিনয়টা ছিল একটু বেশী এবং পোক্ত। তাই প্রথম দর্শনে ধরা দেয়নি আসল পরিচয়। বহু সময় লেগেছে, কিন্তু হিসেব ঠিকই মিলেছে।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

পৃথিবীর দিনগুলো: ১৭ এপ্রিল ২০১২

গতকাল থেকে একটা প্রশ্ন মনের মাঝে খোঁচাখুঁচি করে যাচ্ছে- "ভালবাসাবাসিতে শতকরা কত ভাগ অভিনয়?"। এ কথা সত্য যে, পৃথিবীতে শতভাগ সম্ভব নয়; এটা সে জন্য যথার্থ জায়গাও নয়। তবু একটা ভাগাভাগি হওয়া দরকার। অনেক ভেবেচিন্তে কিছু সাধারণ হিসেব মেলাতে চেষ্টা করলাম। তা এরূপ- সম্পর্কের হিসেবে ভালবাসা বিভক্ত। একেকটি সম্পর্কের জন্য একেক রকম উপাদান, পর্যায় ও পরিণতি দৃশ্যমান। পরিমাপের ক্ষেত্রেও বিভিন্ন পর্যায়ের, কোথাও দশ ভাগ ভালবাসা তো নব্বই ভাগ অভিনয়, কোথাও আধা আধা, কোথাও আরেকটু বেশী। জীবনের বাস্তবতায় মানুষ নিজের মনকে অন্যের কাছে পুরোপুরি তুলে ধরতে পারে না তা যত প্রিয়জনই হোক না কেন। এ হিসেবে পৃথিবীতে প্রতিটি মানুষ একা।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)
Syndicate content