বিবিসি বাংলা

বিবিসি বাংলার সংবাদের নিরপেক্ষতা প্রশ্নের মুখে।বিবিসি দাবি করে তারা নিরপেক্ষ সংবাদ প্রচার করে কিন্তু তাদের সংবাদ নিরপেক্ষ হচ্ছে না।বিবিসি বাংলা আয়োজিত বাংলাদেশ সংলাপে যত অতিথিকে আমন্ত্রন জানানো হয়েছে তাদের বেশির ভাগই হচ্ছে কমিউনিস্ট সমাজতন্ত্রী সেকুলারপন্থি বুদ্ধিজীবি।অন্যদিকে বাংলাদেশে বিরাট সংখ্যক মানুষ ইসলামি মূল্যবোধে বিশ্বাসী।তাদের পক্ষে যারা কথা বলে সেসব বুদ্ধিজীবিকে বিবিসি বাংলাদেশ সংলাপে আমন্ত্রন জানায় নি।ইরাক আফগান যুদ্ধের সময় বিবিসির সংবাদ ছিল আগ্রাসী বাহিনীর পক্ষে।সেসব যুদ্ধে নানা মিথ্যা সংবাদ দিয়ে বিবিসি জনগনকে বিভ্রান্ত করেছিল।সাম্রাজ্যবাদী লুটেরা পশ্চিমা খুনি বাহিনী ইরাক আফগানিস্তানে যে গনহত্যা চালিয়ে ছিল বিবিসি তা প্রকাশ করে নাই।তুরস্ক শ্রীলংকার বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসী সংগঠনকে বিবিসি বলে বিদ্রোহী অথবা গেরিলা সংগঠন।কিন্তু ফিলিস্তিনির স্বাধীনতাকামী হামাসকে বলে জঙ্গি সংগঠন।এই যে বিবিসির দ্বিমুখী নীতি তাতেই প্রমানিত হয় বিবিসি পক্ষপাতদুষ্ট।সেকুলার বুদ্ধিজীবিদের কথিত নিরপেক্ষ রাজনৈতিক বিশ্লেষক সাজিয়ে বিবিসি মানুষকে ধোকা দিচ্ছে।একটি পক্ষকে কাছে টেনে বিবিসি তার সংবাদের বিশ্বাস যোগ্যতা নষ্ট করছে।সেকুলার পশ্চিমা রাষ্ট্র গুলো তাদের মতবাদ সেকুলারিজম রফতানি করতে বিবিসিকে ব্যবহার করছে।বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে হেফাজতকে উগ্রপন্থি উল্লেখ করায় বিবিসি বাংলা তার নিরপেক্ষতার যে দাবি করে আসছিল তা মিথ্যা প্রমানিত হয়েছে।কোটি কোটি মানুষ হেফাজতকে উগ্রপন্থি মনে করে না।তাদের কাছে হেফাজত উগ্র নয়।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)