সেনা অফিসার হত্যা

“আমি চিৎকার করে কাঁদিতে চাহিয়া করিতে পারিনি চিৎকার, বুকের ব্যাথা বুকে চাপায়ে নিজেকে দিয়েছি ধিক্কার’।
২০০৯, ২৫ শে ফেব্রুয়ারি, ৫৭ জন চৌকস সেনা অফিসার হত্যা:
বুদ্ধিজীবী হত্যার কথা বইয়ে পড়েছি, সেই থেকে তাদের হত্যাকারীদের ঘৃনা করি....
জেল হত্যার কথা ইতিহাসে পড়েছি, সেই থেকে হত্যাকারীদের ঘৃনা করি....
জাতির ৫৭ সেনানায়কের লাশের বিভত্‍স দৃশ্য দেখেছি, উপলব্ধি করছি ষড়যন্ত্রের নির্মম বিষাক্ত তীর। তাই স্বাধীনতার চেতনা যতই ফেরী করা হোক আমি তাদের ঘৃণা করি করবো যত দিন বেঁচে থাকবো।...
বিশেষ দ্রস্টাব্দ্য
ফেরাউন, নমরুদ, হিটলার, মুসোলিনী, সাদ্দাম হোসেন, গাদ্দাফী এমন কি কথিত ছিল যাদের রাজ্যে সূর্য অস্ত যায় না সেই ইংরেজ স্বৈরাচারী শাসকেরও পতন হয়েছে। কোন শাসন ব্যবস্হাই পৃথিবীতে চিরস্থায়ী হতে পারেনি আর পারবেও না। কিন্তু ইতিহাসের বড় শিক্ষা ইতিহাস থেকে কেউ শিক্ষা নেয় না। তবে ইতিহাসের পুনারাবৃত্তি না ঘটলেও অত্যাচারির পরিনাম সবসময়ই নির্মম শুধু পদ্ধতিটাই বদল হয়।

আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None