ছায়া ও অশ্বথ বিষয়ক খণ্ডকবিতা

ছায়া ও অশ্বথ বিষয়ক খণ্ডকবিতা

এক/ক.

সূর্য ডুবে গেলে

কবরের ঘুমে যায় অশ্বথ ছায়া

একচিলতে রোদের আশায়

পরবাসী স্বামীর মতো

অপেক্ষার প্রহর কাটায় প্রাচীন অশ্বথ।

এক/খ.

সব রাত্রী ঘরে ফেরে

তিনমাথা মানুষের মতো

একচিলতে রোদে

ছায়া হয়ে শুয়ে থাকে প্রাচীন অশ্বথ।

দুই/ক.

চৈত্র দুপুরে আমার ছায়াটি অদৃশ্য হয়ে গেলে

দীর্ঘ পদযাত্রায় ক্লান্ত পথিকের মতো

ছায়া খুঁজতে অশ্বথের নীচে দাঁড়ালে

কোথা থেকে লোকটি এসে জিজ্ঞেস করে-

কী খুঁজছেন হুজুর?

ছায়া। আপনি?

আমিও।

দুই/খ.

অশ্বথের নীচে দাঁড়িয়ে লোকটিকে বলতে শুনেছি

সব পথিকের ছায়া কেড়েছে প্রাচীন অশ্বথ

আমি তার মূল খুঁড়ে ছায়া নিয়ে যাবো

এই দেখুন খন্তা, কুড়াল...

বলেই লোকটি খুঁড়তে থাকে অশ্বথের শেকড়

আজও সে খুঁড়ে যাচ্ছে

কান সজাগ থাকলে আপনিও শুনতে পাবেন।

তিন/ক.

গতকাল সূর্যের আলোয় যে সুরমা রঙের ছায়াটি

আমার উঠোন পর্যন্ত এসেছিলো

আজ রাতেও চাঁদের আলোয়

সে আমার প্রাঙ্গণে আছড়ে পড়েছে

তাকে পাঁজাকোলা করে ঘরে প্রবেশ করি

সে মিশে যায় আমার ভেতর

এখন আমার কোনো ছায়া নেই।

তিন/খ.

ল্যাম্পপোস্টের নিচে দাঁড়িয়ে

যে উচ্চারণ করে

আমার কোনো ছায়া নেই-

প্রভূ সে তোমার প্রতিদ্বন্দ্বী হতে চায়।

http://afsarnizam.wordpress.com/

http://afsarnizam.blogspot.com/

আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None