ফেরেশতাদের দোয়া প্রাপ্ত মানুষ !!!

এই পৃথিবীতে ঐ সকল মানুষগণই সুভাগ্যবান যাদের জন্য আসমানে
দোয়া করা হয়। অর্থাৎ ফেরেশতারা দোয়া করেন। আর ফেরেশতারা হচ্ছে নিষ্পাপ, যারা সব
সময় আল্লাহর ইবাদাতে মশগুল থাকে। আল্লাহ তাদেরকে বিশেষ ভাবে তৈরী করেছেন এবং বিশেষ
কিছু ক্ষমতার অধিকারী করেও তাঁদেরকে বানিয়েছেন। কোরআন ও হাদীস দ্বারা প্রমানীত যে
আল্লাহ ফেরেশতাদের দোয়া কবুল করে থাকেন।

ফেরেস্তাদের সম্পর্কে উল্লিখিত বিষয়গুলি জানার পর
ফেরেস্তাদের দুরূদ ও তাদের দোয়া অর্জনের আকাঙ্খা পোষণ কি কেউ করবে না?

অপরপদিকে ফেরেস্তাদের লা’নত ও বদদোয়া থেকে বাঁচার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা কি কেউ করবে না?

কুরআন ও সুন্নাত এর মাধ্যমে জানা যায় যে, দুনিয়াতে এমন
সোভাগ্যবান ব্যক্তি রয়েছে যাদের জন্য ফেরেস্তাগণ  আল্লাহ তায়ালার নিকট দোয়া করে,  তাদের গুনাহ মাফের জন্য প্রার্থনা
করে এবং তাদের জন্য আল্লাহর রহমত অর্জনের উদ্দেশ্যে আবেদন করে থাকে।

 আবার দুনিয়াতে এমন বদ নসীব লোকও রয়েছে ফেরেস্তাগণ তাদের জন্য বদদোয়া
করে এবং তাদের ধ্বংস ও অপমান-লাঞ্ছনার জন্য আল্লাহর নিকট আবেদন করে।

আল্লাহ আমাদের সকলকে ফেরেশতাদের বদদোয়া হতে রক্ষা করুন।
আমীন

যাঁদের জন্য আসমানের ফেরেশতাগণ দোয়া করেন-

-  অজু অবস্থায় ঘুমানো ব্যক্তিগণ

-  মসজিদে নামাযের অপেক্ষায় অবস্থানকারী ব্যক্তিগণ

-  প্রথম কাতারের নামাযীগণ

-  কাতারের ডান পাশের মুসল্লিগণ

-  কাতারে পরস্পর মিলিতভাবে দাঁড়ানো ব্যক্তিগণ

-  ইমাম সূরা ফাতিহা শেষ করার সময় জামাতে উপস্থিত নামাযীগণ।

-  নামাযের পরে ঐ স্থানে বসে থাকা ব্যক্তিগণ।

-  ফজর ও আসর এর নামায জামাতের সাথে আদায়কারীগণ।

-  কুরআন খতমকারীগণ

-  নবী (সা.) এর উপর দুরূদ পাঠকারীগণ।

-  এমন অনুপস্থিত মুসলমান যাদের জন্য দোয়া করা হয়।

-  অনুপস্থিত ভাইয়ের জন্য দোয়াকারীগণ।

-  কল্যাণের পথে ব্যয়কারীগণ

-  রোযার সময় সাহারী আহারকারীগণ

-  এমন রোযাদার যাদের সামনে পানাহার করা হয়।

-  রোগী পরিদর্শন কারীগণ।

-  যারা রোগীর নিকট উত্তম কথা বলে।

-  যারা মৃত ব্যক্তির নিকট উত্তম কথা বলে।

-  যারা লোকদের উত্তম কথা শিক্ষা দেয়।

-  ঈমান আনয়নকারী, তওবাকারী, আল্লাহর
পথের অনুসারী এবং তাদের সৎকর্মশীল আত্মীয়গণ।

-  সর্বশ্রেষ্ঠ নবী হযরত মুহাম্মাদ (সা.) এর উপর দুরূদ ও
সালাম করা হয়।

আর এই সম্পর্কে মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন-  “নিশ্চয় আল্লাহ নবীর প্রতি অনুগ্রহ
করেন এবং তার ফেরেস্তারাও নবীর জন্য অনুগ্রহ প্রার্থনা করেন। হে মুমীনগণ তোমরাও
নবীর জন্য অনুগ্রহ প্রার্থনা কর এবং তাকে যথাযথভাবে সালাম জানাও।”
(সূরা আহযাবঃ ৫৬)

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)

মাশ-আল্লাহ! খুব সুন্দর পোস্ট! আল্লাহ আমাদের উপর সহায় হোন!
আমিন ছুম্মা আমিন!

-

▬▬▬▬▬▬▬▬ஜ۩۞۩ஜ▬▬▬▬▬▬▬▬
                         স্বপ্নের বাঁধন                      
▬▬▬▬▬▬▬▬ஜ۩۞۩ஜ▬▬▬▬▬▬▬▬

সালাম ,

এটি  ঠিক  বুঝলাম  না  - যারা মৃত ব্যক্তির নিকট উত্তম কথা বলে    ।   এখানে   কি   মৃত  ব্যক্তি     সম্পর্কে   ভাল  কথা  বলতে  বলা  হয়েছে  ?

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)