সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের সমস্যার সমাধানের জন্য কফি আনানের সঙ্গে সুচির বৈঠক

রোহিঙ্গা মুসলমানদের সমস্যার সমাধানের জন্য গতকাল (৫ সেপ্টেম্বর)
মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন দলের নেতা অং সান সুচি ও জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব
কফি আনান সাক্ষাত করেছেন।

সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের সমস্যার সমাধান কফি আনানের সঙ্গে সুচির বৈঠক

বার্তা সংস্থা ইকনা: মিয়ানমারের স্টেট
কাউন্সিলর অং সান সুচি নিশ্চিত হয়ে বলেছেন: মিয়ানমারের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাখাইন রাজ্যে
মুসলিম নিয়ে যে ধর্মীয় সংঘাত সৃষ্টি হয়েছে, তা জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনানের নেতৃত্বে
'রাখাইন কমিশনে'র মাধ্যমে সমাধান হবে
এবং এর মাধ্যমে এদেশের মানুষের ক্ষতের আরোগ্য হবে।

রাখাইন রাজ্যের দীর্ঘমেয়াদী সমস্যার সমাধান করার লক্ষ্যে গতমাসে মিয়ানমারে এই
কমিশন প্রতিষ্ঠিত করা হয়। রাখাইন রাজ্যে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে বৌদ্ধদের
পাশবিক অত্যাচারের বিষয়টি মানবাধিকার গ্রুপ নথিভুক্ত করেছে।

মিয়ানমারের অধিকাংশ বৌদ্ধরা এই কমিশন গঠনরে ব্যাপারে বিরোধিতা করেছে এবং এর কার্যক্রমের
প্রতিবাদ করছে।

রাখাইন রাজ্য সহকারে দেশটির সকল বৌদ্ধরা সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের বাংলাদেশি
অবৈধ নাগরিক হিসেবে গণ্য করে। অথচ রোহিঙ্গা মুসলমানেরা কয়েক প্রজন্মের ধরে সেদেশে বসবাস
করছে।

২০১২ সালে বৌদ্ধদের পাশবিক হামলার ফলে শতাধিক রোহিঙ্গা মুসলমান নিহত হয়েছেন। এছাড়াও
অনেকেই আহত এবং গৃহহীন হয়ে তাবুতে বসবাস করছে।

গতকাল অনুষ্ঠিত বৈঠকে কফি আনানের উদ্দেশ্য সুচি বলেন: এরপর থেকে আপনি নিজেই রোহিঙ্গা
মুসলমানদের সমস্যা খুব নিকট থেকেই উপলব্ধি করতে পারবেন এবং এসকল সমস্যার মূল উৎপাটন
করে সুন্দর সমাধান দেবেন।

তিনি বলেন: এমন একটি ক্ষত রয়েছে যা আমাদের সকলকেই যন্ত্রণার মধ্যে রেখেছে। আমরা
আশাবাদী কফি আনান এবং এই কমিটির সকল সদস্য এই ক্ষতের নিরাময় করবে।

সূচি বলেন: আমরা মুসলমানদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে এবং তাদের সমস্যা সমাধান করতে
ব্যর্থ হয়েছি। আশাকরি আপনি এই কমিশনের প্রধান হিসাবে বিষয়টির একটি সুন্দর সুরাহা করবেন।

এদিকে জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান বলেন: রাখাইন রাজ্যে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা
মুসলিমদের সকল সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধান এবং সুন্দর ভবিষ্যৎ গঠন করার ব্যাপারে আমি
অত্যন্ত আশাবাদী।

কফি আনান এবং এই কমিশনের সদস্যরা রোহিঙ্গাদের সমস্যা নিকট থেকে উপলব্ধি করার জন্য
আজ রাখাইন রাজ্যে ভ্রমণ করবে।

তবে রাখাইন রাজ্যের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল 'আরাকান ন্যাশনাল পার্টি' (অধিকাংশ প্রতিনিধি
রাখাইনের অধিবাসী) কফি আনান এবং তার কমিশনকে কোন সহযোগিতা করবে না বলে জানিয়েছে।

এই দল ঘোষণা করেছে: আমরা এই কমিশন চাই না। কারণ, রাখাইনের জনগণের ইতিহাস সম্পর্কে যে সকল বিদেশী
লোকদের কোন ধারণা নেই, তাদেরকে আমরা চাই না। তারা কীভাবে এই সমস্যার সমাধান করবে। জাতিসংঘ প্রতিনিধিরা
কখনোই এখানকার সঠিক রিপোর্ট প্রকাশ করেনি।

iqna

আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None