আব্দুল বাসেতের অপ্রকাশিত কথা + ছবি

বিশ্বের সকল কুরআন প্রেমীগণ অধ্যাপক আব্দুল বাসেত মুহাম্মাদ আব্দুস
সামাদ'কে এক নামে চেনে। তার সুললিত কণ্ঠ কুরআন তিলাওয়াত করে তিনি সকলের মন
জয় করেছেন। তিনি তার ঐশ্বরিক কণ্ঠস্বরে কুরআন তিলাওয়াত করে সকলকে আকৃষ্ট
করেছেন।

چهارشنبه//ناگفته‌هایی از استاد عبدالباسط/ پسران از پدر می‌گویند + عکس

বার্তা সংস্থা ইকনা: কুরআনের অধ্যাপক আব্দুল বাসেত মুহাম্মাদ
আব্দুস সামাদ কুরআন মাহফিলে অংশগ্রহণ করার জন্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সফর করেছেন।

গত বছরের ৩০শে নভেম্বরে মরহুম আব্দুল বাসেত মুহাম্মাদ আব্দুস
সামাদের ২৮তম মৃত্যুবার্ষিকী ছিল। এই উপলক্ষে সেদেশের রাজধানী কায়রোর 'সাইয়্যেদা যায়নাব' এলাকার
'আমির তাজ' প্যালেসে কালচারাল ডেভেলপমেন্ট
ফান্ডের পক্ষ থেকে এক স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই অনুষ্ঠানে বিশ্ব বিখ্যাত এই ক্বারির
সন্তানগণ এবং তার বন্ধুরা উপস্থিত ছিলেন।

উক্ত অনুষ্ঠানের প্রতিবেদন 'আল-বিওয়াবাতুল নিউজ'-এ প্রকাশ করেছে। প্রকাশিত
রিপোর্টটি নিম্নে তুলে ধরা হলো:

পিতার সম্পর্কে সন্তানদের বক্তব্য:

এই অনুষ্ঠানে কুরআনের ক্বারি এবং অধ্যাপক আব্দুল বাসেত মুহাম্মাদ
আব্দুস সামাদের দুই সন্তান –"শেখ ইয়াসির" এবং
"তারেক আব্দুল বাসিত" উপস্থিত ছিলেন। আব্দুল বাসেত তার সন্তানদেরকেও কুরআন
ক্বারি হিসেবে গড়ে তুলেছেন।

স্মরণ সভার শুরুতেই কুরআন তিলাওয়াত করেন আব্দুল বাসেতের ছেলে
শেখ ইয়াসির। পরবর্তীতে অধ্যাপক আব্দুল বাসেতের জীবনীর আলোকে তথ্যচিত্র প্রচারিত হয়।
তথ্যচিত্রের এক পর্যায়ে অমর এই ক্বারি সুললিত কণ্ঠে কুরআন তিলাওয়াত পরিবেশন করা হয়।
প্রসিদ্ধ এই ক্বারির মনোরম ও সুললিত কণ্ঠস্বর, প্রতিভাধর, তিলাওয়াতের সময় দীর্ঘ শ্বাস ও মনোযোগ সহকারে তিলাওয়াত এবং প্রশান্তির
কারণে শ্রোতাদের অন্তরে সর্বক্ষণ জীবিত রয়েছেন।

আব্দুল বাসেত মিশরের আল-আকসার প্রদেশের আরমিন্ট শহরের নিকটে
আল-মাযায়েযা গ্রামে ১৯২৭ সালে জন্মগ্রহণ করেছেন। তার জীবনের আলোকে প্রকাশিত ভিডিওতে
বলা হয়েছে,
তার প্রতিভা ও কুরআন মুখস্থ করার কৌশল, কুরআন শিক্ষার মকতবে শিক্ষকের মনোযোগ আকর্ষণ সম্পর্কে বিস্তারিত
ব্যাখ্যা দেয়া হয়েছে। আব্দুল বাসেতের সুললিত কণ্ঠ ঠিক যেন নদীর পানির কলরব ধ্বনির মত
প্রবাহিত হত।

পবিত্র কুরআনের জন্য ৩ কিলোমিটার পথ অতিক্রম

স্বর্গীয় কণ্ঠস্বরের অধিকারী আব্দুল বাসিত কুরআন তিলাওয়াত শ্রবণের
জন্য প্রতিদিন ৩ কিলোমিটার পথ পায়ে হেটে অতিক্রম করতেন। তার শৈশব কালে শুধুমাত্র মেয়রের
বাড়ীতে একটি রেডিও ছিল। ঐ রেডিওতে তার প্রিয় ক্বারি 'শেখ মোহাম্মাদ রাফাতে'র কুরআন
তিলাওয়াত শ্রবণের জন্য তিনি প্রতিদিন তিন কিলোমিটার পথ পায়ে হেটে মেয়রের বাড়ীতে যেতেন
এবং ফেরার পথে মোহাম্মাদ রাফাতের অনুরূপ কুরআন তিলাওয়াত করতেন। তার সুমিষ্ট কণ্ঠে কুরআন
তিলাওয়াত শুনে গ্রামবাসীরা তাকে এত কম বয়সেই "শাইখ" বলে সম্বোধন করত।

আব্দুল বাসিত মাত্র ১০ বছরেই সম্পূর্ণ কুরআন হেফজ করেছেন। কুরআন
তিলাওয়াত শেখার জন্য আল-মাতায়ানা গ্রামে তার শিক্ষক 'মোহাম্মাদ সালিম আল-মানশাভী'র মকতবে যেতেন। মোহাম্মাদ সালিম আল-মানশাভী অতি প্রসিদ্ধ একজন ক্বারি।

মিশরের রেডিওর সাবেক প্রধান 'ফাহমী আমর'
বলেন: মিশরের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মোস্তাফা নাহাস পাশা
সাধারণত আসরের নামাজ কায়রোর সাইয়্যেদা যায়নাব (সা.
আ.) মসজিদে আদায় করতেন এবং তখন আব্দুল বাসেত আসরের নামাজের পূর্বে উক্ত
মসজিদের কুরআন
তিলাওয়াত করতেন। ১৯৫১ সালের এক দিনে মিশরের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মোস্তাফা
নাহাস পাশা নামাজ আদায় করার জন্য মসজিদে উপস্থিত হলে আব্দুল
বাসেতের কুরআন তিলাওয়াত শুনে মুগ্ধ হন এবং তখন তার সাথে রেডিওর এক
কর্মকর্তা ছিলেন।
তাকে ডেকে নাহাস পাশা বললেন: এই ক্বারি কি রেডিওতে তিলাওয়াত করে? উত্তরে বলল: না জনাব, আমিও প্রথমবারের
মত তার তিলাওয়াত শুনলাম। তখন প্রধানমন্ত্রী, আব্দুল
বাসেতকে রেডিওয় কুরআন তিলাওয়াত করার জন্য নির্দেশ দিলেন।

Normal
0

false
false
false

EN-US
X-NONE
FA

/* Style Definitions */
table.MsoNormalTable
{mso-style-name:"Table Normal";
mso-tstyle-rowband-size:0;
mso-tstyle-colband-size:0;
mso-style-noshow:yes;
mso-style-priority:99;
mso-style-parent:"";
mso-padding-alt:0cm 5.4pt 0cm 5.4pt;
mso-para-margin-top:0cm;
mso-para-margin-right:0cm;
mso-para-margin-bottom:10.0pt;
mso-para-margin-left:0cm;
line-height:115%;
mso-pagination:widow-orphan;
font-size:11.0pt;
font-family:"Calibri","sans-serif";
mso-ascii-font-family:Calibri;
mso-ascii-theme-font:minor-latin;
mso-hansi-font-family:Calibri;
mso-hansi-theme-font:minor-latin;}

বিস্তারিত দেখতে এখানে ক্লিক করুন

Normal
0

false
false
false

EN-US
X-NONE
FA

/* Style Definitions */
table.MsoNormalTable
{mso-style-name:"Table Normal";
mso-tstyle-rowband-size:0;
mso-tstyle-colband-size:0;
mso-style-noshow:yes;
mso-style-priority:99;
mso-style-parent:"";
mso-padding-alt:0cm 5.4pt 0cm 5.4pt;
mso-para-margin-top:0cm;
mso-para-margin-right:0cm;
mso-para-margin-bottom:10.0pt;
mso-para-margin-left:0cm;
line-height:115%;
mso-pagination:widow-orphan;
font-size:11.0pt;
font-family:"Calibri","sans-serif";
mso-ascii-font-family:Calibri;
mso-ascii-theme-font:minor-latin;
mso-hansi-font-family:Calibri;
mso-hansi-theme-font:minor-latin;}

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)