যদি কাগজে লিখেও পাঠানো হতো..

যদি কাগজে লিখেও পাঠানো হতো..

“হে নাবী, যদি তোমার নিকট কাগজে লিখা কোনো কিতাবও নাযিল করতাম এবং মানুষ নিজেদের হাত দিয়ে স্পর্শ করেও দেখে নিতো, তাহলেও আজ যারা সত্যকে অস্বীকার করছে তারা বলতো: এটা সুস্পষ্ট যাদু ছাড়া আর কিছুই নয়। 

তারা বলে, এ নাবীর কাছে কোন মালাইকা পাঠানো হয়না কেনো?০ যদি মালাইকাই পাঠাতাম, তাহলে এতোদিনে কবেই ফায়সালা হয়ে যেতো, তখন তাদেরকে আর কোন অবকাশই দেয়া হতোনা ০০” (আল কুরআন, সুরা আল আনআম, আয়াত ৭-৮)

টীকা ০ : অর্থাৎ কাফিররা বলতো: যখন এ ব্যক্তিকে আল্লাহর পক্ষ থেকে নাবী হিসেবে পাঠানো হয়েছে তখন আকাশ থেকে একজন মালাকও (ফেরেশতা) পাঠানো উচিত ছিলো। এ মালাক লোকদের ডেকে ডেকে বলবে, ইনি আল্লাহর নাবী, এর কথা মেনে চলো, অন্যথায় তোমাদের শাস্তি দেয়া হবে।

মুর্খ আপত্তিকারীরা অবাক হচ্ছিলো এই ভেবে যে, পৃথিবী ও আকাশের মহা শক্তিশালী ও মহাপরাক্রমশালী স্রষ্টা একজনকে নিজের পয়গাম্বর নিযুক্ত করবেন এবং তাকে মানুষের গালিগালাজ ও প্রস্তরাঘাত সহ্য করার জন্য সহায় সম্বলহীনভাবে ছেড়ে দেবেন, এটা কেমন করে হতে পারে? এতোবড়ো বাদশাহর দুত বিপুল সংখ্যক রাজকীয় ও সরকারী আমলা-কর্মচারীসহ না এলেও অন্তত: আরদালী হিসেবে একজন মালাককে তো সংগে নিয়ে আসবেন। সে মালাক তার হেফাজত করতো, মানুষের উপর তার প্রভাব বিস্তারে সাহায্য করতো, তিনি আল্লাহর পক্ষ থেকে নিযুক্ত - একথা সবাইকে বুঝাতো এবং অস্বাভাবিক ও অলৌকিক পদ্ধতিতে তার দায়িত্ব সম্পাদন করতো। 

টাকা ০০ : এটা হচ্ছে কাফিরদের আপত্তির প্রথম জওয়াব। অর্থাৎ ইমান আনার ও নিজের কর্মনীতি সংশোধন করার জন্য তোমরা যে সময়-সুযোগ ও অবকাশ লাভ করেছো এর সময়সীমা ততোক্ষণ পযন্ত, যতোক্ষণ সত্য অদৃশ্যের পর্দান্তরালে গোপন রয়েছে।

অন্যথায় অদৃশ্যের পর্দা ছিন্ন হবার সাথে সাথেই অবকাশের সুযোগও শেষ হয়ে যাবে। এরপর শুধু হিসাব নেবার কাজটি বাকী থাকবে। কেননা দুনিয়ার জীবন তোমাদের জন্য একটি পরীক্ষাকাল। ..... এ পরীক্ষার জন্য অদৃশ্যের অদৃশ্য থাকাটা হচ্ছে একটি অপরিহায শর্ত এবং তোমাদের দুনিয়ার জীবন, যা আসলে পরীক্ষার জন্য অবকাশ মাত্র, এটিও ততোক্ষণ পযন্ত প্রতিষ্ঠিত থাকতে পারে যতোক্ষণ অদৃশ্য অদৃশ্যই থাকে। যখনই অদৃশ্য দৃশ্যমান হয়ে যাবে তখনই এ অবকাশ শেষ হয়ে যাবে। তখন পরীক্ষার পরিবর্তে পরীক্ষার ফল প্রকাশের সময় সমাগত হবে। কাজেই তোমাদের দাবী অনুসারে কোন মালাক বা মালাইকাদেরকে তার আসল চেহারায় তোমাদের সামনে দাড় করিয়ে দেয়া সম্ভব নয়। কারন আল্লাহ এখনই তোমাদের পরীক্ষার সময়কাল শেষ করে দিতে চাননা। ।   

(তাফহীমুল কুরআন। সুরা আল আনআম ৭, ৮ আয়াতের ব্যাখ্যা)

আপনার রেটিং: None

Rate This

আপনার রেটিং: None