দ্রুতযান এক্সপ্রেস

R.I.P পর-উপকার ! বৃহষ্পতিবার ,দ্রুতযান এক্সপ্রেসে করে বাড়ী ফেরার পথে সান্তাহার থেকে একজন আইনজীবি ভদ্রলোক উঠলেন,উনি নাটোর জজ কোর্টের সিনিয়র আইনজীবি এবং সনামধন্য । টিকিট কাটেননি ,আমার সীটে আমাকে না বলেই ঠেলে বসে গেলেন, মাত্র নেওয়া না পড়া দৈনিকটা না বলেই নিয়ে এপার ওপার কচলাকচলি করে দুই টাকার নোট বানায়া আবার আরেকজনের হাতে ট্রান্সফার করলো, আমি নির্বাক! আমারে আরও সরে যেতে বলে আরাম করে জায়গা নিয়ে বসল। একটু পর জমিয়ে গল্প স্টার্ট দিয়ে উনার পরিচয় পেশ করে উনার পারিবারিক ঐতিহ্য র গল্প গেলালেন, আমি হাসিমুখে গিললাম।

এরপর আসলেন মুল কথায় : "বাবা তোমার টিকিটটা আমাকে দাও ,তুমিতো নাটোর নেমে যাবে ,আমি আরো দূরে যাব, টিকিট কাটিনি তাই যদি কোথাও আটকায় তাহলে তোমার এইটা দিয়ে এট লিস্ট নাটোর পর্যন্ত কাটা আছে বলে চালিয়ে দেব।", "কিন্তু আঙ্কেল, টিকিট তো স্টেশন গেটে চেক করে, না পাইলে ফাইন ইভেন চার্জশিট! ইদানিং হিসাব কড়া। ", "আরে ধূর, এসব কিছু হবেনা, নাটোরের ছেলে নাটোর নামবা কিসের টিকিট!" আমি মানিব্যাগ থেকে টিকিট বের করে দিতে উনি স্মিত হাসি দিয়ে সাফারীর পকেটে ঢুকায়ে নিলেন। বাঘের ভয় থাকলে রাত দ্রুত নামে, আমি এক চিপা দিয়া বাহির হইতে গিয়া বেরসিক চেকার আটকায়া দিলো! টি. টী রুমে আধা ঘন্টা ধরে বসে আছি, অবশেষে ব টি.টি আরও তিনটা মুরগী ধরে তৃপ্তির হাঁসি নিয়ে ঢুকলেন। তাদের মাঝে একজন কালাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর চিকিৎসক। উনার শ্বশুর আবার রেলের বড় কর্মকর্তা। তবে টিকিট না কেটে ভ্রমন বিষয়ক বিব্রতকর কথা উনি শশুরকে জানাতে লজ্জাবোধ করাতে গালি গেলা ও জরিমানা গোনা দুটো নিয়ে বিদায় হলেন ,যাবার সময় "প্রতিদিন সিরিয়ালের পাঁচ দশটা ভ্যানওয়ালাও দেখে নিব, হাইকোর্ট খাওয়াবো, কলার ধইরা থ্রেট লাগায় আর তুমি টি টি গালি তো দিবাই " এইটা বিরবির কইরা আওরাইলো। এইবার আমার পালা। পাশে জি আর পি থানার ও সি আঙ্কেল রে দেইখা হালে পানি পাইলাম (উনি পরিচিত আমার), টি টি রে যতই বুঝাইয়া ব্যাপারটা কই ততই চেইতা যায়। "উকিল এর কাছে মা* খাইসেন এখন আমার কাছে জরিমানা গোনেন"! ,এক্টু এক্সপ্ল্যানেশনে গেলে "চার্জশিট খাওয়াবো,কথা আগাইলে "কয়া হুমকি দেয়। আমি ঘামি লজ্জায়, মানিব্যাগে হাত দিতেই ওসি আঙ্কেল কথা কাইড়া নিয়া কয় "বাপের খায়া পরের উপকারের মজা বুঝছো তো ?" , "জি আঙ্কেল " ,"যাও যাও উপকারী ছাওয়াল !" ,"জী স্লামালিকুম "। বাইরে বের হয়ে পুরাই ফাঁকা ফাঁকা লাগলো ,বলতকারের (!) পরের অনুভুতি মনে হয় !

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)

এই দেশে  শিক্ষত লোকের বড় অভাব ।

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (2টি রেটিং)