শীতের সকালে মা

শীতের সকালে মা

মামুনুর রশীদ

********

দূর মসজিদের মুয়াজ্জিনের সাথে একই তালে

ঘরের কোনের মুয়জ্জিন, যুগল ধ্বনি তোলে

প্রথম ধ্বনির সাথেই মায়ের ঘুমের ইতি

কম্বলখানা ছাড়িয়ে মায়ের চাদর হল সাথী।

 

নিঃশব্দ পদচারনে সোজা আমার শয়ন কক্ষে আগমন

আমার ডানদিকটায় বসে “ওঠ বাবা ওঠ” নামাজের সময়
হয়ে গেছে বলে কাটায় কিছুক্ষণ

মায়ের সাথে সুর মিলিয়ে “উঠছি মা” বলেই মাকে
বিদায় করা

মায়ের কক্ষ ত্যাগ নিশ্চিত জেনেই আবার ঘুমিয়ে
পড়া।

 

সর্বকার্য সম্পাদন শেষে মায়ের ফের আগমন

আমায় শায়িত দেখে মায়ের মেজাজটা যেন ছুঁয়েছে
গগন

চিৎকার চেঁচামেচিতে আর কি ঘুমানো যায়?

কোনমতে উঠে শরীর বাঁচানোই যেন হয়েছে দায়।

 

ব্রাশখানা হাতে আলখেল্লায় পুকুর ঘাটে

বাড়ীর বধূরা দাঁড়িয়ে আছে কলসি হাতে

বাহারী পিঠার সুগন্ধে পুরো বাড়ী মৌ মৌ

মায়েদের সাথে পাল্লাদিয়ে কম যাচ্ছেনা বাড়ীর
ঝি-বৌ।

পড়ার টেবিলে বসতেই মায়ের হাতে ভাঁপা পিঠা

নে নামাজতো পড়লিনা, এখন পিঠা খা

পাশে বসে হাত বুলিয়ে “কাল থেকে নামাজ পড়িস
বাবা”

নামাজ না পড়লে কাল ওপাড়ে কেমনে নাজাত পাবা?

 

স্কুল যাবার পথে হাতে নিয়ে টাকা দুই

একটাকা তোর বোনকে দিবি একটাকা নিবি তুই

ছুটে চললাম আমরা সবাই মা দাঁড়িয়ে পথে

ভুলতে পারিনা আজও সেই স্মৃতি ভুলবোনা কোন
মতে।

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4.8 (6টি রেটিং)

মামুন ভাই আপনার কবিতা যতই পড়ি ততই ভালো লাগে।তার চাইতে ভালো লাগে আপনার আবৃতি।চালিয়ে যান।

না ভাই আসলে তেমন ভাল লিখতে জানিনা, তবুও একটু ব্যর্থ চেষ্টা করলাম, যদি কখনো ভাল লিখতে পারি এই আশায়।

-

 

 

মায়ের কথা আসলেই নিজের আবেগকে আর নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারিনা। আল্লাহর কাছে দু'আ করি আল্লাহ আমাদের সবার মাকে ভাল রাখুক স্বদেশের মাটিতে।
আর যারা মা হারিয়েছেন তাদের মাকে আল্লাহ জান্নাত দান করুক, আমিন।

সুন্দর কবিতা লিখেছেন মামুন ভাই। ধন্যবাদ।

অত্যন্ত সুন্দর একটি মন্তব্য করেছেন, আমরা আসলেই মাকে ছেড়ে এখানে কিভাবে যে পড়ে আছি? মাঝে মাঝে ঠিক বুঝে উঠতে পারিনা। আপনার সাথে আমিও সকলের মায়ের জন্য দোয়া করছি। আমিন।

-

 

 

ওগো মা.......... তুমি এই পৃথিবীর  শ্রেষ্ঠ নেয়ামত,তোমারি পদতলে রয়েছে জান্নাত। কুরআনে আল্লাহ তায়ালা তারি পরে মা বাপের কথা দিলেন তাদেরী প্রতি সদা ইহসানের তরে।

-

moniruzzaman

ওগো মা.......... তুমি এই পৃথিবীর  শ্রেষ্ঠ নেয়ামত,তোমারি পদতলে রয়েছে জান্নাত। হ্যাঁ ঠিকই বলেছেন, কিন্তু আমরা মাঝে মাঝে ভুলে যাই। যাই হোক আমরা সকলেই যেন মায়ের প্রকৃত সম্মান দিতে পারি। আল্লাহ্‌ যেন আমাদেরকে সেই তৌফিক দান করেন আমিন।

-

 

 

খুব ভাল লেগেছে, তবে মাঝে মধ্যে নকুল কুমারের গানের মত মনেহয়েছে।

-

anowar hossain

আপনাকে অনেক ধন্যবাদ, কিন্তু কোন জায়গাটাতে নকুল কুমারের গানের মত মনে হয়েছে? জানালে উপকৃত হতাম।

-

 

 

মায়ের সাথে সুর মিলিয়ে “উঠছি মা” বলেই মাকে
বিদায় করা
মায়ের কক্ষ ত্যাগ নিশ্চিত জেনেই আবার ঘুমিয়ে
পড়া।

জি ভাইজান আমি ছোটবেলায় অনেক বেশী দুষ্ট ছিলাম। তাই আম্মার সাথেও দুষ্টুমি করতাম।

-

 

 

কবিতাটার বিশেষত্ব বোধহয় একটা চমৎকার চিত্র অংকনের জন্য। যেখানে শীতের ভোর, মা ছেলে নামাজের জন্য ডাকছে, তারপর ভোরের পারিপার্শ্বিকতা ইত্যাদি; মুগ্ধ হবার মত।

জি ভাইজান, কিন্তু কাঁচা লেখক হওয়ার কারণে হয়তো বিশেষত্বটি খুব ভাল করে তুলে ধরতে পারিনি। আশা করি সামনে কিছু লিখলে আরও সুন্দর ও মার্জিত ভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করব।

-

 

 

চমৎকার হয়েছে ধন্যবাদ লেখক সাহেবকে।

আপনার অনুপ্রেরণা পেয়ে অনেক ভাল লাগল, আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

-

 

 

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 4.8 (6টি রেটিং)