লাশ কেন কথা বলেনা...!

অনেক হল, এবার বুঝি আপনার আমার পালা। আগে ছিল প্রতিটি রাত হয়তো নির্ঘুম যেত। কিন্তু এখন রাতকে বিশ্বাস করলেউ আপনি পারবেন না দিনকে বিশ্বাস করতে। মনে হয় এই বুঝি ধারাল তরবারি আমার মন্ডুটাকে বিভৎসভাবে ধর থেকে আলাদা করে দিচ্ছে। আগে দেখেছি চোর ডাকাত তাদের কাজের জন্য কখনই দিন না রাতকেউ প্রধন্য দিয়েছে। রাতে যেগে কতই না রাস্তা পাহারা দিয়েছি চোর ডাকাত যেন না আসে। কিন্তু এখন রাতের ঘুম কেড়ে নেয়াটা কমলে দিনের কাজকে থমকে দিয়েছে।

ঐ যে সারিবদ্ধ লাশ কেন তারা কথা বলে না। তারা কফিনে বন্ধি, চিতায় জ্বলে, দাফনে মাটিচাপায় পড়ে থাকে। কিছু করার নাই। সুর্য উঠছে কিন্তু আলো দিতে পারছে না। মেঘের কালো ছায়ায় বন্ধি। আলোর দিশা পাবার আগে কালো মেঘেরা বন্ধি করে দিচ্ছে সেই সূর্যের আলো। কেন? উত্তর আপনারো নেই আমারো নাই।

উত্তর নেই তা নয় হারিয়ে ফেলেছি মেঘকে সরিয়ে প্রকৃত আলোর সন্ধানে বের হওয়ার ক্ষমতা। হারিয়ে ফেলেছি সেই সাহস যেটা পূজি করে বাশের লাঠি হাতে নিয়ে নেমেছিল বীর বাঙালী শত্রুকে মোকাবেলার জন্য। দেশের প্রতিটি মানুষ আজ মেঘের হাতে বন্ধী। 

মেঘ দেখে কেউ করিসনে ভয়, আড়ালে তার সূর্য হাঁসে। সূর্য হেসে করবে কি? যদি মেঘকে সবাই ভয় পায়। 

মুক্তচিন্তাকরা পাপ মহা পাপ। কারন যে চিন্তা করে তাকেই দিনের কাজ করতে দেওয়া হবেনা। সব কিছুর মধ্যে ধর্মটেনে ধর্মের নামে মানুষ হত্যা কোন বিধাতার কোন কিতাবে? মানুষ করে বিধাতা আপনাকে আমাকে সৃষ্টি করেছেন মানুষে ভালবাসতে। মতপার্থক্য নিয়ে হত্যা করতে নয়। নিজেকে আস্তিকভেবে মানুষ হত্যা করা কোন আস্তিকতা। ইসলাম সত্য ধর্ম কোরআনের হেফাজত কারী খোদ আল্লাহ নিজে। আপনাকে হত্যা করতে তিনি বলেনি। হ্যা যখন বলেছিলেন তখন শেষ। নয়ত নবী কেন ধর্মনিয়ে বাড়াবাড়ি করতে বারন করেছেন। কে আগে নবী না আল্লাহ? প্রশ্নের উত্তর কোনটা?

আল্লাহকে পেতে গেলে নবীকে মানতে জানতে হবে। অনুসরন করতে হবে। তার বিদায় হজ্জের বাণী কাজে লাগাতে হবে। দরকার নাইতো তার আগের হাদিস টেনে মানুষ হয়ে মানুষ হত্যা করা। বিদায় হজ্জে বলা হয়নি ধর্মের জন্য আরেক ভাইকে হত্যা কর। যেখানে বিধাতা সকল মুসলিম জাতিকে রক্ষা করার জন্য প্রতিজ্ঞাত সেখানে আপনার কি দরকার রাজিব, বাবু,অভিজিৎ, নিলাদ্রি, অনন্ত, সর্ব শেষ দীপন কে হত্য করার। দীপনের কি দোষ সে হিন্দু? তার ছেলে মাদ্রাসায় পড়ে। হিন্দু হলে নিশ্চয় ছেলেকে মাদ্রাসায় এলেম শিক্ষা দিতেন না। কেন এত কিছু জানেন সবে এটা জানেন না? যে ব্যাক্তি একবার কালেমা পড়ে তাকে হত্যা করা জায়েজ নাই। যাই হোক বিশ্বধার আপনাদের মঙ্গল করুক। সঠিক পথে আপনি আসেন দুনিয়া আসবে। নিজেই যখন অন্ধকারে অন্যকে হত্য করে কি আলোর দিশা দিবেন।

পরিশেষে তোমরা মানুষ নও, মানুষ কখনই মানুষকে হত্যা করে না। হিংস্র জানোয়ার পোষ না মানাতে পারলে তাদের জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া উচিৎ তার পর মানুষকে ক্ষতি করতে আসলে মেরে ফেলাই ভাল।

জানিনা হবে কিনা এদের বিচার। বিচারের আশা করি না। বিধাতার কাছে বিচার থাকলো।

----

"রক্তপান রক্তক্ষেকো রক্ত তোদের প্রাণ,

আর কত নিবি বল নিজ মানুষের জান।

থাম থাম আজি থেমে যা তোরা বন্ধ করি বলি খেলা,

মানুষ হয়ে আয়রে তোরা এইযে তরী ধারায়।"

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)

উত্তর নেই তা নয় হারিয়ে ফেলেছি মেঘকে সরিয়ে প্রকৃত আলোর সন্ধানে বের
হওয়ার ক্ষমতা। হারিয়ে ফেলেছি সেই সাহস যেটা পূজি করে বাশের লাঠি হাতে
নিয়ে নেমেছিল বীর বাঙালী শত্রুকে মোকাবেলার জন্য। দেশের প্রতিটি মানুষ আজ
মেঘের হাতে বন্ধী।

likely

মেঘ দেখে কেউ করিসনে ভয়, আড়ালে তার সূর্য হাঁসে।

-

saddam

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 5 (টি রেটিং)