চারিদিকে ঠুসঠাস করে লক্ষী কে আগমন

চারিদিকে ঠুস ঠাস।
যেন মনে হয় কোন আন্দোলন কারী কক্টেল ফুটাচ্ছে আর তা প্রতিরোধে সরকার বাহিনী সাউন্ড গ্রেনেড ব্যাবহার করছে।।

কিন্তু বাস্তবে তা না।
এই সাউন্ডের মাধ্যমে লক্ষী কে ঘরে আনা হয়।।
মুলত লক্ষী নামের একটি হাইওয়ান আছে দুনিয়াতে।।
যে কিনা ঘুমিয়ে থাকে সর্বদা।
আর অদৃশ্য কিছু লোক ঐ লক্ষী কে মানুষের ঘরে প্রবেশ করাতে আপ্রাণ চেষ্টা চালায় ঐ লক্ষী নামের জিনিষ টার গলায় রশি বেধে।
তবুও লক্ষী বাবুজির ঘুম না ভাংগায় এবার সুন্দর একটি পন্থা অবলম্বন করলো বুদ্ধিজীবী রা।।
চারিদিকে শুধু ঠুস ঠাস আওয়াজ হবে আর ঘুমন্ত লক্ষী বাবুজির ঘুম ভেংগে যাবে এতেই প্রতিটি ঘরে ঘরে লক্ষী কে টেনে টেনে ডুকানো সম্ভব হয়।।
আর তার সুত্র ধরেই এখন চারিদিকে শুধু ঠুসঠাস শুরু হয় লক্ষীকে আমন্ত্রণ জানাতে।।
.
.
.
.
.
★আসলে এটি বাস্তব ইতিহাস নয় ★
তবে হিন্দুদের পাশাপাশি মুসলিম ছেলেদের এহেন কর্মকান্ডে এটিই মনে হয় আমার।।

কখন হেদায়েত পাবে এই জাতী?
এই জাতী কি জানে না শব্দ ধুষণ মানুষের জন্য শারীরিক ও মানুষিক ভাবে কতটুকু হুমকি??

হে আল্লাহ আমাদের হেদায়েত দিন

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 3 (টি রেটিং)

Rate This

আপনার রেটিং: None গড় রেটিং: 3 (টি রেটিং)